BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মেসির রেকর্ড, ফাইনালে আর্জেন্টিনা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 22, 2016 2:41 pm|    Updated: June 22, 2016 2:46 pm

An Images

আর্জেন্টিনা – ৪ (লাভেজ্জি, মেসি, হিগুয়েন ২)

আমেরিকা – ০

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বার্সেলোনার জার্সি গায়ে তাঁর ম্যাজিক দেখেছে ফুটবল বিশ্ব৷ দেশের হয়ে মাঠে নামলেই সেই ম্যাজিক উধাও হয়ে যায়৷ এই সমালোচনা এমন আকার নিয়েছিল, যে একটা সময় আর্জেন্টিনা দলে লিওনেল মেসিকে আর দেখতেই চাননি সমর্থকরা৷ সেদিন রাগে আর হতাশায় এলএম টেন যদি অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়ে নিতেন, তাহলে বুধবার সকালের ম্যাজিক দেখাটা স্বপ্নই থেকে যেত৷ সকাল সকাল মন ভাল করে দিলেন ফুটবলের রাজপুত্র৷

মারাদোনা, বাতিস্তুতাদের মতো কিংবদন্তি ফুটবলারকে জন্ম দিয়েছে এই দেশ৷ এই দেশের ফুটবল গাথায় প্রতিটি রন্ধ্রে লুকিয়ে আছে ইতিহাস৷ তবে এদিন সবকিছুকে পিছনে ফেলে এগিয়ে গেলেন মেসি৷ বুঝিয়ে দিলেন, তাঁর উপস্থিতি শুধু সাফল্য এনে দেয় তাই নয়, এনে দেয় ভরসা, লড়াই করার মানসিকতা, সর্বোপরি প্রতিপক্ষকে ধ্বংস করার যাবতীয় উপাদান৷ নাহলে আমেরিকার বুকে আমেরিকানদের এভাবে কেউ হেলায় উড়িয়ে দিতে পারে!

arg_web

আমেরিকাকে খেলার কোনও সুযোগই দিলেন না জিরার্ডো মার্টিনোর ছেলেরা৷ হাসতে হাসতে কোপার ফাইনালে পৌঁছে গেল দল৷ কিংবদন্তি বাতিস্তুতাকে পিছনে ফেলে আর্জেন্টিনার হয়ে সর্বোচ্চ গোলদাতার আসনে (৫৫ গোল) বসলেন মেসি৷ কিন্তু এসব তো কোনও খবরই নয়! কোপার সেমিফাইনালের আসল মজা লুকিয়ে ছিল অন্য জায়গায়৷ মেসির সঙ্গে যে কারও তুলনা চলে না, তা তিনি আরও একবার প্রমাণ করে দিলেন৷ ফ্রি-কিক থেকে বিশ্বমানের গোলটা দেখলে এক মুহূর্তের জন্য গুলিয়ে যেতে পারে, ফুটবলারের বাঁ-পা কি কোনও মানুষের? না কি ভিনগ্রহের প্রাণী এসে অসম্ভবকে
সম্ভব করে গেল? একটা গোল নিজের৷ বাকি দু’টো হল তাঁর অনবদ্য পাস থেকে৷ বিশেষ করে হিগুয়েনের শেষ গোলটার সময় বক্সের সামনে বল সাজিয়ে দিলেন বার্সা তারকা৷ ব্যক্তিগত ক্যারিশমাকে বিসর্জন দিয়ে টিমগেম খেলল দল৷ আর সেখানেই এই আর্জেন্টিনার সাফল্য৷

মেসি যদি এদিনের নায়ক হন তাহলে হিগুয়েন, বানেগা, ওটামেন্ডিরাও তার সমান অংশীদার৷ বিরতির পর অনেক দল ঘুরে দাঁড়াবার জন্য লড়াই চালায়৷ লড়াই চালায় ম্যাচে ফিরে আসার৷ কিন্তু আমেরিকা যেন ধরেই নিয়েছিল, তাঁদের বিদায়ের ঘণ্টা বেজে গিয়েছে৷ জানা নেই আন্তর্জাতিক স্তরে ২৩ বছরের খরা কাটিয়ে এবার কোপার ট্রফি আর্জেন্টিনা ঘরে তুলতে পারবে কিনা৷ তবে চিলি-কলম্বিয়া যেই ফাইনালে উঠুক না কেন, এই আর্জেন্টিনাকে এবার রোখা সত্যিই মুশকিল৷ মেসি যদি তার প্রধান হাতিয়ার হয় তাহলে অবশ্যই প্রশংসা করতে হবে কোচ মার্টিনোকেও৷ দলটাকে একসূত্রে গাঁথতে পেরেছেন৷ বোঝাতে পেরেছেন, শুধু মেসি-নির্ভর হলে দলের পক্ষে ভাল কিছু করা অসম্ভব৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement