Advertisement
Advertisement
Bengal Pro T-20 League

ইরফান-সুদীপের দাপটে জয় মুর্শিদাবাদ কিংসের, বেঙ্গল প্রো টি-টোয়েন্টিতে হারের হ্যাটট্রিক হারবার ডায়মন্ডসের

৮ উইকেটে জয় পেল সুদীপ ঘরামির মুর্শিদাবাদ কিংস।

Murshidabad Kings beats Harbour Diamonds in Bengal Pro T-20 League
Published by: Krishanu Mazumder
  • Posted:June 15, 2024 5:03 pm
  • Updated:June 15, 2024 10:47 pm

হারবার ডায়মন্ডস: ১২১/৯ (মনোজ তিওয়ারি ২৭, কৌশিক ২৩, ইরফান আফতাব ১৭/৪)
মুর্শিদাবাদ কিংস: ১২২/২ (সুদীপ ৫১, শুভম ৩৩, মহম্মদ কাইফ ১২/১)
৮ উইকেটে জয়ী মুর্শিদাবাদ কিংস।

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের একটি অল্প রানের ম্যাচ। ফের একবার হারের মুখোমুখি হতে হল হারবার ডায়মন্ডসকে। বলা যায়, বোলিংয়ে ইরফান আফতাব আর ব্যাটে সুদীপ ঘরামির দাপটে ম্যাচ পকেটে পুরে নিল মুশির্দাবাদ কিংস (Murshidabad Kings)। শেষ পর্যন্ত বেঙ্গল প্রো টি-টোয়েন্টি লিগের ম্যাচে (Bengal Pro T-20 League) তারা জিতল ৮ উইকেটে।

Advertisement

এদিন প্রথমে ব্যাট করে মনোজ তিওয়ারির হারবার ডায়মন্ডস (Harbour Diamonds)। এর আগের দুটি ম্যাচই হেরেছে তারা। ফলে এদিন জয়ের জন্য মরিয়া চেষ্টা করবে এরকম ধারণা করা যেতেই পারে। কিন্তু কার্যক্ষেত্রে মাত্র ১২১ রানে বন্দি হয়ে গেল তারা। অধিনায়ক মনোজ ছাড়া কেউ প্রতিরোধই গড়ে তুলতে পারলেন না। কিছুটা চেষ্টা করেছিলেন কৌশিক গিরি। কিন্তু ইরফান আফতাবের বোলিংয়ের কাছে দিশেহারা হয়ে গেলেন বাকিরা। মাত্র ১৭ রান দিয়ে ৪ উইকেট তুলে নেন তিনি।

Advertisement

ব্যাট করতে নেমে সহজেই সেই রান তারা করে নেয় মুর্শিদাবাদ কিংস। শুরুতে অভিজিৎ সিং আউট হয়ে গেলেও চাপে পড়েনি তারা। বরং সুদীপ ঘরামি আর শুভম দে-র জুটিতে অনায়াসে রান তাড়া নেয়। মাত্র ১৫.৪ ওভারে ২ উইকেট হারিয়ে জয়ের কাছে পৌঁছে যায় মুর্শিদাবাদ।

[আরও পড়ুন: যেন ‘মিলিটারি শাসন’, ইউরোতে নামার আগে ইটালি ফুটবলারদের মানতে হচ্ছে গুচ্ছ নিয়ম]

আগের ম্যাচে শ্রাচী রাঢ় টাইগার্সকে হারিয়েছে সারভোটেক শিলিগুড়ি স্ট্রাইকার্স। ২৮ বল বাকি থাকতে ৮ উইকেটে ম্যাচ জিতে নেয় তারা। সারভোটেক শিলিগুড়ি স্ট্রাইকার্সের এটি দ্বিতীয় জয়।
শনিবার টস জিতে সারভোটেক শিলিগুড়ি স্ট্রাইকার্স প্রথমে ব্যাট করতে পাঠায় শ্রাচী রাঢ় টাইগার্সকে। নির্ধারিত ২০ ওভারে শ্রাচী রাঢ় টাইগার্স সাত উইকেটে ১২৩ রান করে। সৌরভ পাল ও সাত্যকী দত্ত ওপেনিং জুটিতে বেশি রান জুড়তে পারেননি। দলের রান যখন ২২, তখন ডাগ আউটে ফেরেন ওপেনার সাত্যকি দত্ত (৫)। আর এক রান যোগ করার পরেই অপর ওপেনার সৌরভ পালও (১০) আউট হন। শ্রাচী রাঢ় টাইগার্সের রান তখন ২৩।

[আরও পড়ুন: হারানো রাজত্ব ফিরে পেতে ভরসা পেদ্রি-রদ্রিরা, একনজরে স্পেনের শক্তি-দুর্বলতা]

এর পরে সুমন্ত গুপ্ত ও অরিন্দম ঘোষ ইনিংসের হাল ধরেন। জুটিতে ৫২ রান জোড়েন এই দুজন। ব্যক্তিগত ২৭ রানে ফেরেন সুমন্ত গুপ্ত। ৩ উইকেটে ৭৫ হয়ে যায় শ্রাচী রাঢ় টাইগার্স। অধিনায়ক শাহবাজ আহমেদ ও অরিন্দম ঘোষ আরও ১৯ রান যোগ করেন। শাহবাজ আহমেদ ১৪ রান করে ফেরেন। তার পরে আর কেউ সেভাবে দাঁড়াতে পারেননি। দলের মধ্যে সর্বোচ্চ রান করেন অরিন্দম ঘোষ (৪০)। শিলিগুড়ি স্ট্রাইকার্সের সূরয জয়সওয়াল ও বিশাল ভাটি ২ টি করে উইকেট নেন।
রান তাড়া করতে নেমে খুব সহজেই ম্যাচ জিতে নেয় সারভোটেক শিলিগুড়ি স্ট্রাইকার্স। ম্যাচের সেরা হন শিলিগুড়ির অঙ্কুর পাল। তিনি ৪৩ বলে ৬২ রানের ইনিংস খেলেন। তবে শুরুতেই অভিষেক রমন (৬) ফিরে যান। তখন শিলিগুড়ি স্ট্রাইকার্সের উপরে চাপ বাড়ানোই যেত। কিন্তু সেই জায়গা থেকে ম্যাচের হাল ধরেন অঙ্কুর ও রাহুল গুপ্ত। তারা ৮৩ রান জোড়েন। ব্যক্তিগত ২৬ রানে ফিরে যান রাহুল গুপ্ত। এরপরে অঙ্কুরের সঙ্গে শান্তনুর পার্টনারশিপ জয় এনে দেয় শিলিগুড়ি স্ট্রাইকার্সকে। দিনান্তে অঙ্কুর ও শান্তনু (২৮) অপরাজিত থেকে যান। 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ