৩২ শ্রাবণ  ১৪২৬  রবিবার ১৮ আগস্ট ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

প্রীতিকা দত্ত: বাবার পছন্দ ফুটবল। ছেলের কিন্তু মায়ের মতো টেনিসের দিকেই ঝোঁক। পাঁচ বছর বয়সেই সে টেনিস তারকা রজার ফেডেরারের ভক্ত৷ ভাবছেন তো কার কথা বলা হচ্ছে? পাঁচ বছরের খুদেটি আর কেউ নয়, ডিউক অ্যান্ড ডাচেস অফ কেমব্রিজ উইলিয়াম-কেটের পুত্র প্রিন্স জর্জ৷ যে জন্মলগ্ন থেকেই সকলের নেকনজরে৷ তাকে ঘিরে আলোচনার শেষ নেই৷

[আরও পড়ুন: ধর্মের আড়ালে সন্ত্রাসের ছোবল, তিউনিসিয়ায় নিষিদ্ধ বোরখা]

বাবা-ছেলে নাকি মা-ছেলের জুটি বেশি হিট? ব্রিটিশ রাজ পরিবারের তথ্য বলছে, পুত্র বরাবরই মায়ের বড় প্রিয়। তা তিনি ভিক্টোরিয়া-পুত্র চালর্স হোন, বা ডায়ানার হ্যারিপ্রীতি বা কেটের পাঁচ বছরের ছেলে জর্জ। ডায়নার বড় ছেলে উইলিয়মের পছন্দ ফুটবল। আর স্ত্রী কেট টেনিসভক্ত। নিয়ম করে প্রতি বছর উইম্বলডন দেখতেও যান তিনি। আর মায়ের এই ভালবাসাই প্রকট হয়ে দেখা দিচ্ছে বড় ছেলে জর্জের মধ্যে। যে কারণে এই বয়সেই আজকাল সবুজ কোর্টে দেখা যাচ্ছে যুবরাজ জর্জকে।
কিন্তু জর্জের গুরু কে? স্বয়ং রজার ফেডেরার! জানা গিয়েছে, ডিউক অ্যান্ড ডাচেস অফ কেমব্রিম বড় ছেলের জন্য পরামর্শ নিচ্ছেন টেনিসগুরু রজার ফেডেরারের কাছ থেকে। ‘সুইস স্পোর্টস স্টার’ ফেডেরার এই রয়্যাল শিষ্যর খবর প্রকাশ্যে আনতেই রীতিমত হইহই
ব্যাপার ব্রিটেনে। পাঁচ বছরের জর্জের পছন্দের খেলা টেনিস। আর তাই উইম্বলডন খেলার ফাঁকে প্রিন্স উইলিয়ম এবং কেটের বার্কশায়ারের বাড়িতে ছুটে গিয়েছিলেন রজার।
বাবা উইলিয়মও খেলার প্রতি অটুট টান। গত বছর বিশ্বকাপ ফুটবল চলাকালীন ইংল্যান্ড যখন সেমি ফাইনালে, উত্তেজনা ধরে রাখতে পারেননি তিনি। নিজেই ইংল্যান্ডের স্টার-ফুটবলার তথা দলের ক্যাপ্টেন হ্যারি কেনকে ফোন করে অভিনন্দন জানান। লাইভ খেলা দেখার ছবি পোস্ট করেন সোশ্যাল মিডিয়ায়। এখানেই শেষ নয়। বিশ্বকাপ শেষে হ্যারি কেনকে বিশেষ সম্মানে সম্মানিতও করেন। শোনা যায়, উইলিয়ম অ্যাশ্টন ভিলা ফুটবল ক্লাবের নিয়মিত খবর রাখেন।

[আরও পড়ুন:‘২০ বছর দেশের সেবা করেছ, তোমার জন্য গর্বিত’, শোয়েবের অবসরের পর টুইট সানিয়ার]

স্বাভাবিক নিয়মেই ‘মিনি রয়্যাল’ জর্জও পেয়েছেন বাবার সেই প্যাশন। কিন্তু শুধু ফুটবলে নয়। কেটের মতোই জর্জ ভালবাসে টেনিস।
তা কেমন খেলছেন খুদে যুবরাজ? জর্জের খেলা প্রসঙ্গে ফেডেরার বলছেন, “জর্জের বয়সে নেটে বল ছোঁয়াটাই বড় কথা। জর্জ বয়সের
তুলনায় এগিয়ে, এটুকু বলতে পারি। শিশুরা এভাবে খেলাধুলোর মধ্যে থাকলেই খুশি হব।” তিনি আরও জানিয়েছেন, জর্জের মা কেট নিজেই টেনিস অ্যাসোসিয়েশনের সঙ্গে যুক্ত। এবং নিয়মিত খোঁজখবর নেন। কেট মিডলটনও জানিয়েছেন, প্রিয় তারকা ফেডেরারকে পেয়ে জর্জ যারপরনাই খুশি।

kate-with-george

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং