BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

দীপার পদক জয়ের আশায় বুক বাঁধছে ১৩০ কোটি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 13, 2016 10:05 pm|    Updated: August 13, 2016 10:05 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফ্ল্যাশব্যাক! ২০১২ লন্ডন ওলিম্পিক৷ পদক জয়ের লড়াইয়ে রিংয়ে নামছেন মেরি কম৷ প্রথম ভারতীয় মহিলা বক্সার হিসেবে কি দেশকে পদক এনে দিতে পারবেন তিনি? এই প্রশ্নের উত্তর খুঁজতে ভারতবাসীর প্রতিটা মুহূর্তে কেটেছিল চরম উদ্বিগ্নে৷ অপেক্ষার অবসান ঘটিয়ে ব্রোঞ্জ পদক নিশ্চিত করেছিলেন মনিপুরি বক্সার৷

কাট টু: ২০১৬ রিও ওলিম্পিক৷ ছবিটা অনেকটা একইরকম৷ বক্সিং রিং নয়৷ এবার জিমন্যাস্টিক্সে প্রথম ভারতীয় মহিলা হিসেবে দেশকে পদক এনে দিতে বদ্ধপরিকর ত্রিপুরার মধ্যবিত্ত পরিবারের মেয়ে দীপা কর্মকার৷ তাঁর সাফল্যের ডানায় ভর করে পদকের স্বপ্নে বুঁদ দেশবাসীও৷

চলতি ওলিম্পিকে এখনও পর্যন্ত পদকের মুখ দেখেনি ভারত৷ দেশের ও দশের যাবতীয় চাহিদা তাই দীপাকে ঘিরেই৷ প্রত্যাশার এত বিরাট বোঝা সামলাতে পারবেন তো তিনি? দীপা কিন্তু বলে দিচ্ছেন তিনি একেবারেই চাপ অনুভব করছেন না৷ “আমি একটুও চাপ অনুভব করছি না৷ অবশ্যই এটা আমার জীবনের সব থেকে বড় ইভেন্ট৷ কিন্তু কোনও টেনশন কাজ করছে না আমার মধ্যে৷ বরং ফাইনাল নিয়ে উৎসাহ অনুভব করছি৷ এটা আমার প্রথম ওলিম্পিক৷ প্রথমবারেই ফাইনালে উঠতে পেরেছি৷ এটাই এখন অনেক৷ এখনও পর্যন্ত নিজের সেরাটা দিয়েছি৷ ফাইনালেও সেটাই করব৷,” বলছেন দীপা৷

কিন্তু ফাইনালের লড়াইটা যে একেবারেই সহজ হবে না, তা দীপা বেশ ভাল করেই জানেন৷ কেন? কারণ বিশ্বের সেরা জিমন্যাস্টদের সঙ্গে প্রতিযোগিতায় নামতে হবে তাঁকে৷ আমেরিকার সিমোন বাইলস বিশ্বের সেরা জিমন্যাস্ট হিসেবে পরিচিত৷ ইতিমধ্যেই দলগত ও ব্যক্তিগত অল-রাউন্ড বিভাগে সোনা ঝুলিতে ভরেছেন তিনি৷ রবিবারও তাঁকে সোনা জয়ের দাবিদার বলে মনে করছে বিশেষজ্ঞমহল৷ তিনি একা নন, ফেভরিটদের তালিকায় রয়েছেন রাশিয়ার মারিয়া প্রাসেকা, সুইস জিউলিয়া স্টেইনগ্রুবার, উত্তর কোরিয়ার আন-জং, উজবেকিস্তানের চুসোভিতানা, কানাডার শ্যালোন ওলসেনের মতো অভিজ্ঞ জিমন্যাস্টরা৷ অর্থাৎ হিসেব মতো ফাইনালে দীপা নামছেন ‘আন্ডারডগ’ হিসেবেই৷ তাহলে দীপার আত্মবিশ্বাসের চাবিকাঠি কী? কেন! রিওয় পা রাখার আগে বিভিন্ন প্রতিযোগিতায় এখনও পর্যন্ত ৭৭টি পদক তো রয়েছে তাঁর ঘরে৷ সেও কি কম কিছু!

অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ ভল্ট হল প্রোদুনোভা ভল্ট৷ জিমন্যাস্টরা সাধারণত এই ভল্টটি এড়িয়েই চলেন৷ একটু এদিক থেকে ওদিক হলেই এই ভল্ট প্রাণ পর্যন্ত কেড়ে নিতে পারে৷ আক্ষরিক অর্থেই তাই মৃত্যুকে জয় করে পদক জিততে হবে দীপাকে৷ পারবেন তো? মেরি কমের মতো আরেক ‘বিস্ময় বালিকা’ হয়ে উঠবেন কি তিনিও? ১৩০ কোটির প্রার্থনা আর শুভেচ্ছা এখন তাঁর সঙ্গেই ৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement