BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

প্রয়াত বেসিককে সম্মান জানাতে রুপোর পদক নিচ্ছেন না যোগেশ্বর

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: September 1, 2016 9:45 am|    Updated: September 1, 2016 9:45 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: “যো লিখা হোতা হ্যায়, ও হোতা রহতা হ্যায়!” টুইটার-বার্তায় স্পষ্ট উচ্ছ্বাস ছিল যোগেশ্বরের৷

যদিও সেটা নিতান্তই ক্ষণস্থায়ী! একদিন আগেই যোগেশ্বর দত্তকে জানিয়ে দেওয়া হয়, ২০১২-র লন্ডন ওলিম্পিকে তাঁর জেতা ব্রোঞ্জ বদলে যাচ্ছে রুপোয়৷ কারণ, রুপোজয়ী কুস্তিগির বেসিক কুদুকভ ডোপ টেস্টে ধরা পড়েছেন৷ চার বছর আগে নেওয়া মূত্র নমুনা পরীক্ষা করে নাকি নিষিদ্ধ ওষুধের সন্ধান মিলেছে৷ তাই কুদুকভের পদক ফিরিয়ে নেওয়া হচ্ছে৷ অতএব যোগেশ্বরের ব্রোঞ্জ পদক বদলাচ্ছে রুপোয়৷

লন্ডন ওলিম্পিকের এই খবরে যোগেশ্বরের খুশি হওয়ারই কথা ছিল৷ কিন্তু বুধবার তিনি বলে দিলেন, রুপোর পদকটা গ্রহণ করতে পারবেন না৷ টুইটারে লিখলেন, “বুঝতে পারছি না এই খবরে আমার খুশি হওয়া উচিত, নাকি উচিত নয়৷ ওই রুপোর পদক হাতে করে নিতে পারব না৷ বরং, আমার মনে হয় এই পদক কুদুকভের পরিবারের সঙ্গেই থাক৷ ওর কাছে হেরেছি, ও ডোপ টেস্টে ধরা পড়েছে, সব ঠিক আছে৷ কিন্তু, একজন অ্যাথলিট হিসাবে আমি ওকে সম্মান করি৷”

আন্তর্জাতিক খেলার দুনিয়ায় এখন পেশাদারিত্ব এতটাই যে, কেউ কাউকে নিয়ে বিশেষ আবেগ প্রকাশ করেন না৷ বিশেষ করে কুস্তি, বক্সিংয়ের মতো যেসব খেলা পুরোপুরি ব্যক্তিনির্ভর৷ সেখানে যোগেশ্বর একদম উল্টোদিকে হাঁটলেন৷ ২০১৩-য় এক পথ দুর্ঘটনায় মারা যান কুদুকভ৷ এ খবর অনেকেই হয়তো জানতেন না৷ রিও ওলিম্পিকের আগে ব্যাপারটা সামনে আসে৷ লন্ডন ওলিম্পিকে হওয়া ডোপ পরীক্ষার রিভিউ হচ্ছিল ওই সময়৷ তখনই জানা যায়, কুদুকভ আর বেঁচে নেই৷ এই কারণেই কুদুকভের জেতা ওই পদক হাতে করে নিতে চাইছেন না যোগেশ্বর৷ টুইটারেই লিখলেন, “আমার হাতে কিছু
তো নেই৷ কিন্তু, যদি সম্ভব হয়, তা হলে যেন ওই পদকটা ওঁর পরিবারের কাছেই রেখে দেওয়া হয়৷ সেটা ওঁর পরিবারের পক্ষেও সম্মানজনক হবে৷” টুইটারে বার্তাটা ছড়িয়ে পড়ার পরই বিভিন্ন মহলে তাঁর এই মানসিকতাকে সম্মান জানিয়ে পাল্টা-বার্তাও এসেছে৷

আরেকটা কারণ যোগেশ্বর বলতে চেয়েছেন৷ যে পদক তিনি জেতেননি, সেটা কী করে নেবেন, এটাই বোঝানোর চেষ্টা করেছেন৷ কুদুকভ জানতেই পারলেন না, তাঁর কাছে হেরেও তাঁর প্রতি কতটা শ্রদ্ধা এতদিন মনের মধ্যে জমিয়ে রেখেছিলেন এক ভারতীয়৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement