BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বাড়ছে সাইবার অপরাধ, উদ্বিগ্ন মুখ্যমন্ত্রী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 20, 2016 8:44 am|    Updated: August 20, 2016 8:45 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: সাধারণ অপরাধ নয়৷ শহরে এখন সাইবার অপরাধ বেশি হচ্ছে বলে জানালেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়৷ শুক্রবার নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে কলকাতা পুলিশের একটি অনুষ্ঠানে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এখন তো আর সাধারণ অপরাধ হয় না৷ বেশি হয় সাইবার অপরাধ৷ একটা টুইটকে কেন্দ্র করে দাঙ্গা পর্যন্ত বেধে যেতে পারে৷ তবে সমস্তরকম অপরাধ রুখতে কলকাতা পুলিশ দারুণ সক্রিয়৷ দেশের অন্যান্য শহরের তুলনায় কলকাতা অনেক নিরাপদ৷”

এদিন নেতাজি ইন্ডোর স্টেডিয়ামে চলচ্চিত্র ও সংগীত জগতের বিশিষ্ট কলাকুশলীদের নিয়ে ‘জয় হে’ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে কলকাতা পুলিশ৷ মূলত পুলিশ পরিবারের সদস্যদের জন্যই এই অনুষ্ঠান৷ অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন রাজ্যের স্বরাষ্ট্রসচিব মলয় দে, রাজ্য পুলিশের ডিজি সুরজিত্‍ কর পুরকায়স্থ, কলকাতা পুলিশের নগরপাল রাজীব কুমার প্রমুখ৷ অনুষ্ঠানের উদ্বোধন করে মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “একটা ছোট ঘটনাকে অনেকেই এখন কুৎসা রটাতে উদ্দেশ্যপ্রণোদিতভাবে বড় করে দেখায়৷ অথচ পুলিশের দৃষ্টান্তমূলক ভাল কাজ কেউ তুলে ধরে না৷ বাংলায় জনসংখ্যার তুলনায় পুলিশের সংখ্যা অনেক কম৷ তার মধ্যেই পুলিশ দিন-রাত পরিশ্রম করে রাজ্যকে সুরক্ষিত রেখেছে৷ দুর্গাপুজো থেকে শুরু করে ইদ, যে কোনও উৎসবে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে সময় না দিয়ে পুলিশকর্মীরা দিন-রাত পথে নামেন শুধুমাত্র সাধারণ মানুষকে ভাল রাখার জন্য৷” মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “সবচেয়ে আগে আমি পুলিশ পরিবারকে স্যালুট জানাচ্ছি৷ কারণ, পরিবার পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা না করলে পুলিশকর্মীরা তাঁদের কঠিন কর্তব্য পালন করতে পারতেন না৷”

14053887_1160703537330319_6481708770894044221_o

গত ১৫ জুলাই দার্জিলিং থেকে ফেরার সময় কার্শিয়াংয়ের কাছে খাদে পড়ে যায় রাষ্ট্রপতি প্রণব মুখোপাধ্যায়ের কনভয়ের একটি গাড়ি৷ মুখ্যমন্ত্রী নিজে দাঁড়িয়ে থেকে উদ্ধারকার্যের নেতৃত্ব দেন৷ তাঁর নির্দেশমতো দশজন পুলিশকর্মী দড়ি বেয়ে খাদে নেমে কনভয়ের গাড়িতে আটকে থাকা নিরাপত্তারক্ষীদের উদ্ধার করেন৷ সেদিনের উদ্ধারকারী দশজন পুলিশকর্মীকে এদিনের অনুষ্ঠানে সাহসিকতার পুরস্কারে পুরস্কৃত করেন মুখ্যমন্ত্রী৷ ওই দশজন পুলিশকর্মীকে পঞ্চাশ হাজার টাকা এবং শংসাপত্র দেওয়া হয়৷ পুরস্কৃত পুলিশকর্মীরা হলেন শেখ মুস্তাফা হোসেন, পার্থজিত্‍ ঘোষ, স্বরূপ গোস্বামী, সুব্রত বটব্যাল, শুভঙ্কর সরকার, বিক্রম বিশ্বাস, সুরজিত্‍ বন্দ্যোপাধ্যায়, প্রশান্ত পাল, রাজেশ পাণ্ডে এবং মহেন্দ্র ছেত্রী৷ আলিপুর বডিগার্ড লাইনে কলকাতা পুলিশ ’ল ইনস্টিটিউট গড়ে তোলা হয়েছে৷ এদিনের অনুষ্ঠানে সেই ’ল কলেজের উদ্বোধন করেন মুখ্যমন্ত্রী৷

13988188_1160703977330275_739519081465732386_o

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement