BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মহাশ্বেতা দেবীর প্রয়াণে শোকস্তব্ধ গোটা দেশ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 28, 2016 6:16 pm|    Updated: July 28, 2016 7:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চলে গেলেন লেখিকা মহাশ্বেতা দেবী৷ কিন্তু একে কি সত্যিই চলে যাওয়া বলে? হয়তো থেমে গেল তাঁর কন্ঠস্বর৷ কিন্তু তাঁর লেখায়, আন্দোলনে এবং জীবনদর্শনে তিনি চির অমলিন৷ আগামী প্রজন্মের অনুপ্রেরণা৷

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩ টে ১৬ মিনিটে বাংলা তথা ভারতের সাহিত্য সম্ভাবনার এক যুগের অবসান হয়৷ আর তাঁর মৃত্যুতে শোকস্তব্ধ গোটা দেশ৷ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি হোন কিংবা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায়, শোকবার্তা দিয়েছেন সকলেই৷ বাংলার লেখকমহল থেকে শুরু করে সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রের বিভিন্ন ধারার মানুষের শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন হাজার চুরাশি’র মাকে৷

এদিন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি টুইট করে জানান, “মহাশ্বেতা দেবী লেখনির ক্ষমতাকে সঠিক ভাবে ফুঁটিয়ে তুলেছিলেন৷ তিনি ছিলেন সমবেদনা, সমতা এবং বিচারের কন্ঠস্বর৷ তাঁর মৃত্যুতে শোকাহত৷ তাঁর আত্মার শান্তি কামনা করি৷”

মমতা বন্দোপাধ্যায়ের সঙ্গে তাঁর সম্পর্ক বরাবরই ছিল মধুর৷ উভয়ই ছিলেন গণআন্দোলনের উজ্জ্বল মুখ৷ তাই তাঁর মৃত্যুতে অভিভাবক হারা হলেন মমতা৷ জানিয়েছেন, “দেশ অন্যতম সেরা এক লেখিকাকে হারাল৷ বাংলা হারাল তার মা’কে৷ আর আমি হারালাম একজন খুব কাছের অভিভাবককে৷ মহাশ্বেতা দি’র আত্মার শান্তি কামনা করি৷” তিনি জানিয়েছেন আগামিকাল পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে৷

রাজনৈতিক ব্যক্তিত্বদের পাশাপাশি, সাংস্কৃতিক মহলের বহু ব্যক্তিও তাঁর মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করেছেন৷ নাট্যব্যক্তিত্ব শাঁওলি মিত্র বলেন, “পাঠক হিসাবে ওনার ভক্ত৷ পারিবারিক সম্পর্কে উনি আত্মীয় ছিলেন৷ রাজনৈতিক আন্দোলনের সময় সখ্যতা বাড়ে৷ রাজনৈতিক আন্দোলনকে গণআন্দোলনে পরিণত করার শক্তি রাখতেন৷ ওনার মতো সাহসী লড়াকু মহিলার প্রয়াণ ধাক্কা দিল৷ ওনার লেখা আগামী দিনে কাজ করার প্রেরণা জোগাবে৷”

পরিচালক সৃজিত মুখোপাধ্যায়ও লেখিকার মৃত্যুতে শোকপ্রকাশ করে জানিয়েছেন, “হাজার চুরাশির মা চলে গেলেন৷ RIP মহাশ্বেতা দেবী৷” তাঁদের পাশাপাশি ‘হাজার চুরাশি কী মা’ ছবির পরিচালক গোবিন্দ নিহলানি বললেন, “ওনার বইয়ের উপর ছবি তৈরি করেছিলাম৷ কাজ নিয়ে খুবই সচেতন ছিলেন৷ অনেক সময় বেশি রাতে ফোন করে কাজের খোঁজ নিতেন৷”

নাট্য ব্যক্তিত্ব রুদ্রপ্রসাদ সেনগুপ্ত জানালেন, “কাজের মধ্যে বেঁচে ছিলেন৷ ওনার মতো মানুষ খুব কম দেখেছি৷ ক্ষণজন্মা ছিলেন৷ তাঁর মৃত্যুতে মাতৃরূপা একজন মানুষকে হারালাম৷”

মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দোপাধ্যায় জানিয়েছেন, আগামীকাল লেখিকার মরদেহ ১০-১২.৩০ টা অবধি রবীন্দ্রসদনে রাখা হবে৷ সকল ভক্তদের জন্য লেখিকাকে শেষবার দেখার সুযোগ দেওয়া হবে৷ পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় আগামীকাল তাঁর শেষকৃত্য সম্পন্ন হবে৷

বহু রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব এবং শিল্পীরা লেখিকার প্রয়াণে শোক প্রকাশ করে টুইট করেছেন৷ তারই কিছু রইল এই প্রতিবেদনে৷

Untitled

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement