BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কলকাতা উড়িয়ে দেওয়ার হুমকি দিয়ে জালে কৃতী ছাত্র

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 9, 2016 10:38 am|    Updated: July 9, 2016 10:38 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: “ম্যায় দাউদ ইব্রাহিম বোল রহা হুঁ৷ আধা ঘণ্টা কি অন্দর কলকাত্তা মে ধামাকা হোগা৷ সব কুছ তোড়ফোড় কর দুঙ্গা৷”
গম্ভীর কণ্ঠস্বরের এই হুমকি ফোন এসে পৌঁছল লালবাজারের ১০০ ডায়ালে৷ কিছুক্ষণের মধ্যেই একই হুমকি ফোনে বেজে উঠল লেক থানার টেলিফোন৷ শুক্রবার বিকেলে এই ফোন পেয়েই নড়েচড়ে বসলেন লালবাজারের গোয়েন্দারা৷ চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ল পুলিশমহলে৷ তাহলে কি বাংলাদেশের মতোই কলকাতাতেও কোনও নাশকতা চালাতে হুমকির এই ফোন ‘ইসলামিক স্টেট’ বা ‘আইএস’-এর? কোনওরকম ঝুঁকি না নিয়ে তদন্তে নামলেন লালবাজারের স্পেশাল টাস্ক ফোর্স বা এসটিএফ-এর গোয়েন্দারা৷ সেই হুমকি ফোনের সূত্র ধরে তদন্তে নেমে গড়িয়াহাটের কাঁকুলিয়া রোড থেকে অনির্বাণ সান্যাল নামে সেন্ট পলস কলেজের এক কৃতী ছাত্রকে গ্রেফতার করল গোয়েন্দা পুলিশ৷
এদিন বিকেল প্রায় সাড়ে পাঁচটা৷ এই সময়েই প্রথম হুমকি ফোন আসে লালবাজারের ১০০ ডায়ালে৷ এর পর ওই একই ভাষায়, একই গম্ভীর কণ্ঠস্বরের হুমকি ফোন যায় লেক থানার কর্তব্যরত পুলিশকর্তাদের কাছে৷ ফোন পেয়ে লেক থানার পুলিশ কর্মীরা সঙ্গে সঙ্গে বিষয়টি জানান লালবাজারের কর্তাদের৷ উল্লেখ্য, কোনও সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের পক্ষ থেকে পুলিশের কাছে হুমকি ফোন এলে সচরাচর কেউই ব্যক্তিগত মোবাইল থেকে সেই ফোন করে না৷ এক্ষেত্রে মজার বিষয় হল, এদিনের হুমকি ফোন এসেছিল ব্যক্তিগত একটি মোবাইল থেকে৷ এটিই ছিল তদন্তের ক্ষেত্রে পুলিশের কাছে তুরুপের তাস৷
সেই মোবাইল ফোনের সূত্র ধরে তদন্তে নেমে এসটিএফের গোয়েন্দারা দেখলেন, মোবাইল ফোনটির মালিকের নাম অনির্বাণ সান্যাল৷ বাড়ি গড়িয়াহাটের কাঁকুলিয়া রোডে৷ এই তথ্য পেতেই গড়িয়াহাট থানার পুলিশকর্মীদের নিয়ে এদিন এসটিএফের গোয়েন্দারা বিশাল বাহিনী নিয়ে ঘিরে ফেললেন কাঁকুলিয়া রোডের সেই বাড়ি৷ পুলিশবাহিনীকে তল্লাশি রতে দেখে এলাকায় ছড়িয়ে পড়ল আতঙ্ক৷ সকলেই ভাবলেন এই বাড়িতেই লুকিয়ে রয়েছে কোনও জামাত বা আইএস জঙ্গি৷
এই বাড়ি থেকেই গ্রেফতার করা হল অনির্বাণ সান্যাল (২২)-কে৷ নিয়ে আসা হল গড়িয়াহাট থানায়৷ জানা গেল অনির্বাণ সেন্ট পলস কলেজের পলিটিক্যাল সায়েন্সের তৃতীয় বর্ষের ছাত্র৷ পড়াশোনাতেও সে অত্যন্ত সিরিয়াস৷ এলাকাতেও ভাল ছেলে হিসেবে তার সুনাম রয়েছে৷ তা হলে কেন সে করতে গেল এই কাজ? থানায় বসিয়ে তাকে শুরু হল জিজ্ঞাসাবাদের কাজ৷ উল্লেখ্য, কয়েকদিন আগেই লালবাজারের ১০০ ডায়ালে এই রকমই হুমকি ফোন দিয়ে নবান্নে বোমা রাখা আছে বলে জানিয়ছিল কালীঘাটের বাসিন্দা অনিরুদ্ধ ঘোষ৷ মানসিকভাবে বিপর্যস্ত অনিরুদ্ধবাবু৷ সেই কারণেই তাঁর এই হুমকি ফোন৷ এ বিষয়ে এদিন যুগ্ম নগরপাল (সদর) সুপ্রতিম সরকার জানান, আতঙ্ক ছড়াতে এইরকম হুমকি ফোন যারা দেবে তাদের বিরুদ্ধে আইনত কঠোর ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement