২৯ ভাদ্র  ১৪২৬  সোমবার ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রামনবমী উপলক্ষে অস্ত্র হাতে মিছিল করার অভিযোগ এবার মামলা দায়ের হল বিজেপির রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষের বিরুদ্ধে। খড়গপুর টাউন থানায় দায়ের হওয়া অভিযোগের ভিত্তিতে মামলা রুজু করল পুলিশ।

রামনবমী পালনের অভূতপূর্ব নজির এ বছর দেখা গিয়েছিল রাজ্যে। সংঘের ডাকে সাড়া দিয়ে বহু সভ্য সমর্থক পথে নামেন। অস্ত্র হাতে নিয়ে মিছিল করতে দেখা যায় খুদে পড়ুয়াদেরও। খড়গপুরে রাজ্য সভাপতি দিলীপ ঘোষকেও অস্ত্র হাতে মিছিলে শামিল হতে দেখা যায়। এ ব্যাপারেই থানায় অভিযোগ করেন এক স্থানীয় বাসিন্দা। সেই অভিযোগের প্রেক্ষিতেই অস্ত্র আইনে মামলা রুজু করল পুলিশ। জানা যাচ্ছে, নয় ইঞ্চির বেশি ছোরা জাতীয় অস্ত্র সঙ্গে রাখা বা  প্রকাশ্যে সে অস্ত্র প্রদর্শন করা বেআইনি। এ ব্যাপারে নির্দিষ্ট কিছু নির্দেশিকা আছে। মারণাস্ত্র নিয়ে কোনও শোভাযাত্রা করাও বেআইনি। সেই নির্দেশিকা লঙ্ঘনেরই অভিযোগ উঠেছে বিজেপি রাজ্য সভাপতির বিরুদ্ধে। সেই প্রেক্ষিতেই জামিন অযোগ্য ধারায় রুজু হয়েছে এই মামলা।

‘রাজনৈতিক নেতারা অস্ত্র হাতে মিছিল করলে আইন আইনের পথে চলবে ]

পাশাপাশি কলকাতাতেও রুজু হয়েছে মামলা। ভবানীপুর, এন্টালি ও পোস্তাতে একই অভিযোগে মিছিল আয়োজকদের বিরুদ্ধে স্বতঃপ্রণোদিত মামলা রুজু হয়েছে। জানা যাচ্ছে, মিছিলের অনুমতি থাকলেও অস্ত্র হাতে মিছিলের অনুমতি ছিল না। তাই ওই মিছিলে পুলিশের নির্দেশিকা অমান্য করা হয়েছে বলেই অভিযোগ। পড়ুয়াদের হাতে অস্ত্র দেখে বিজেপি কর্মীদের বিরুদ্ধে অভিযোগ জানায় স্থানীয় মানুষরাও।

এদিন পুরুলিয়ার সভা থেকেও এই ঘটনার তীব্র সমালোচনা করেছেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তাঁর মতে বাংলার সংস্কৃতি যাঁরা জানে না, যাঁরা বাংলার প্রতি দায়বদ্ধ নন, সেরকম কয়েকজন নেতাই তরোয়াল হাতে মিছিল করেছে। এক ধর্মের মানুষ তরোয়াল হাতে মিছিল করলে অন্য ধর্মের মানুষও তাই করবে। তাঁর প্রশ্ন, তাহলে কি তরোয়ালে তরোয়ালে যুদ্ধ বাধবে?  তাহলে কি বাংলায় শান্তি থাকবে? রাজনৈতিক নেতারা অস্ত্র হাতে মিছিল করলে আইন আইনের পথে চলবে বলেও জানিয়েছিলেন মুখ্যমন্ত্রী।

রাজ্যে আরএসএসকে নিষিদ্ধ করার ডাক দিলেন শাহি ইমাম বরকতি ]

ঘটনার প্রতিক্রিয়া জানাতে গিয়ে দিলীপ ঘোষ জানান, “আইন শুধু একজনের জন্য থাকবে তা তো হয় না। চেয়ারম্যানও আমার সঙ্গে ছিলেন। তাহলে একই অভিযোগে দুজনকেই গ্রেপ্তার করা হোক।”  তাঁর প্রশ্ন, মহরমের সময়ও অস্ত্র প্রদর্শন হয়। তখন আইনের ব্যবস্থা নেওয়া হয় না কেন?

যুগ্ম কমিশনার সদর সুপ্রতীম সরকার জানিয়েছেন, অভিযুক্তদের বিরুদ্ধে আইন মোতাবেক কড়া ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং