BREAKING NEWS

২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মা-বাবার স্নেহ থেকে বঞ্চিত, আত্মঘাতী কিশোরী

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 2, 2016 12:05 pm|    Updated: August 2, 2016 2:14 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: বাবা দিনমজুর৷ ভুটানে থাকেন৷ বাড়িতে আসেন কোনও মাসে একবার৷ কোনও মাসে দু’বার৷ অভাবের তাড়নায় মা ছ’মাস আগে পড়শি এক ছেলেকে ভালবেসে ঘর ছেড়েছেন বলে অভিযোগ৷ কিশোরী মেয়ের ঠিকানা হয়েছে পিসির বাড়ি৷ কিন্তু পিসির স্নেহ, মা-বাবার ভালবাসার খামতি মেটাতে পারেনি৷ তাকে সবসময় কুরে খেয়েছে একাকিত্বের বিষ৷ সেই জ্বালা সহ্য করতে না পেরে অবশেষে দড়ির ফাঁসে ঝুলে আত্মঘাতী হল সে৷

ডুয়ার্সের ভার্নাবাড়ি চা বাগানের দেওয়াল লাইনের ঘটনা৷ সোমবার সকালে পিসির বাড়ি থেকে মুনিতা লোহার নামে এক কিশোরীর ঝুলন্ত দেহ উদ্ধার হয়৷ পুলিশ সূত্রের খবর, মুনিতার বাবা রোহিত লোহার ভুটানে ঠিকা শ্রমিকের কাজ করেন৷ পেশাগত কারণেই তিনি প্রতিদিন বাড়িতে আসতে পারতেন না৷ অভাবের তাড়নায় মা ছ’মাস আগে এক যুবকের হাত ধরে অন্যত্র সংসার বেঁধেছেন৷ সেই থেকে মুনিতা বিষণ্ণ৷ তার ঠিকানা হয় পিসির বাড়ি৷ পিসি নিজেও দিনমজুর৷ সকাল হলেই তিনি চলে যেতেন কাজে৷ ফলে একা বাড়িতে দিন কাটত কিশোরীর৷ মা-বাবার ভালবাসা সে খুঁজে বেড়াত চা বাগানে৷ কিন্তু তা মেলেনি কোথাও৷ উল্টে শুনতে হয়েছে গঞ্জনা৷ কিশোরীটি একা ফুঁপিয়ে কেঁদেছে অনেকদিন৷ পিসি তাকে সান্ত্বনা দেওয়ার চেষ্টাও করেছেন সাধ্যমতো৷ কিন্তু কোনও কিছুই তাকে আশ্বস্ত করতে পারেনি৷

পরিবার সূত্রের খবর, লেখাপড়া শিখে ভাল চাকরি করার ইচ্ছে ছিল মুনিতার৷ কিন্তু ইচ্ছেপূরণ হয়নি৷ অভাবের জন্য চতুর্থ শ্রেণি পার করে আর স্কুলে যেতে পারেনি ওই কিশোরী৷ গত ছ’মাস ধরে যখনই সঙ্গীদের সঙ্গে দেখা হত তার, বাবা-মায়ের কথাই বারবার বলত সে৷ ঘটনার প্রাথমিক তদন্তে পুলিশের সন্দেহ, মা-বাবার স্নেহ থেকে বঞ্চিত ওই কিশোরী একাকিত্বের যন্ত্রণায় আত্মঘাতী হতে পারে৷

হাসিমারা পুলিশ ফাঁড়ির ওসি কমলেন্দু নারায়ণ বলেন, “সকালে দেহটি উদ্ধার হয়৷ ওই সময় বাড়িতে কেউ ছিল না৷ মনে হচ্ছে মানসিক অবসাদেই মেয়েটি আত্মঘাতী হয়েছে৷ তবে সব দিক খতিয়ে দেখা হচ্ছে৷” মনোরোগ বিশেষজ্ঞদের একাংশ মানসিক অবসাদকেই কিশোরীর মৃত্যুর কারণ বলে মনে করছেন৷

জলপাইগুড়ির মনোরোগ বিশেষেজ্ঞ চিকিৎসক স্বস্তিশোভন চৌধুরি বলেন, মা-বাবার স্নেহ না পেলে ছেলেমেয়েদের মধ্যে ‘সেপারেশন আংজাইটি’ কাজ করে৷ তার থেকে আত্মহত্যার মতো অনেক দুর্ঘটনাই ঘটে৷ মুনিতার ক্ষেত্রেও সেটা হয়েছে কি না পুলিশি তদন্তেই স্পষ্ট হবে৷ শহরাঞ্চলেও এই সমস্যা হামেশাই দেখা যাচ্ছে৷ শুধু দিনমজুর পরিবার নয়, উচ্চশিক্ষিত পরিবারের ছেলেমেয়েরা একাকিত্বের কারণে নেশাগ্রস্ত হয়ে পড়ছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement