BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আজও দিনভর চলবে দুর্ভোগের বৃষ্টি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 18, 2016 9:10 am|    Updated: August 18, 2016 9:10 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: বঙ্গোপসাগরে তৈরি হওয়া নিম্নচাপ আরও ঘনীভূত৷ যার জেরে আজও কলকাতা-সহ দক্ষিণবঙ্গের বিভিন্ন জেলায় বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানাল আলিপুর আবহাওয়া দফতর৷ কোথাও হাল্কা তো কোথাও ভারী বৃষ্টির সম্ভাবনা রয়েছে৷ সঙ্গে ঝোড়ো হাওয়ার দাপট৷ নিম্নচাপের প্রভাব কম না হলে আগামী ২-৩ দিন এই আবহাওয়া চলতে পারে বলে জানা গিয়েছে৷

বুধবারের ঘণ্টাখানেকের বৃষ্টিতেই প্রায় লন্ডভন্ড অবস্থা হয় কলকাতা ও শহরতলীর৷বিপর্যস্ত হয় স্বাভাবিক জনজীবন৷ গাছ ভেঙে পড়ে যাদবপুরের দু’জন ও বেলেঘাটায় একজনের মৃত্যু হয়েছে৷ আহত হয়ে হাসপাতালে মৃত্যুর সঙ্গে পাঞ্জা লড়ছেন আরও অন্তত চারজন৷ কলকাতা পুলিশের হিসাবে শুধু শহরেই গাছ ভেঙে পড়েছে ৩৫টি৷ গাছ পড়ে রাস্তা আটকে গিয়ে প্রবল যানজট হয়েছে৷ শিয়ালদহের বিভিন্ন শাখায় তার ছিঁড়ে ব্যাহত হয়েছে ট্রেন চলাচল৷

বেলেঘাটার সরকার মাঠের উল্টোদিকে দাঁড়িয়ে ছিলেন অমল মুখোপাধ্যায় (৬৮)৷ হঠাৎ গাছ ভেঙে পড়ে তাঁর মাথার উপর৷ ঘটনাস্থলেই মারা যান তিনি৷ যাদবপুর বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে বছর বত্রিশের এক যুবকের উপর গাছ ভেঙে পড়ায় তিনিও মারা যান৷ রাত পর্যন্ত তাঁর পরিচয় পাওয়া যায়নি৷ ওই গাছ ভাঙার ঘটনায় পরে হাসপাতালে মৃত্যু হয় মধুমিতা হেমব্রম (১৮) নামের এক তরুণীর৷

রাতেই মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের নির্দেশে যাদবপুরে কেপিসি হাসপাতালে গাছ পড়ে আহত হওয়া ব্যক্তিদের দেখতে যান মেয়র ও মন্ত্রী শোভন চট্টোপাধ্যায়৷ সেখানে তিনি জানান, আহতদের চিকিৎসার সব আর্থিক দায় পুরসভা বহন করবে৷

কলকাতার উপর দিয়ে প্রায় ৭০ কিলোমিটার প্রতি ঘণ্টা বেগে ঝড় বয়ে গিয়েছে বলে জানা গিয়েছে৷দক্ষিণবঙ্গের জেলাগুলিতে ঝড় না হলেও বৃষ্টিতে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির খবর এসেছে৷ কলকাতার লাগোয়া জেলাগুলিতে ইতিমধ্যেই পান ও সবজি চাষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে৷ বৃহস্পতিবার আরও বেশি বৃষ্টি হলে কৃষিতে ক্ষতির পরিমাণ বাড়বে৷ কোথাও কোথাও বন্যার আশঙ্কাও দেখা দিতে পারে৷ রাজ্যের উপকূলবর্তী এলাকা বিশেষ করে সুন্দরবনের কিছু এলাকায় অতিরিক্ত সতর্কতা জারি হয়েছে৷ উপকূল এলাকায় মৎস্যজীবীদের সতর্ক করা হয়েছে৷ দিঘা, মন্দারমণি, শঙ্করপুর বা তাজপুরের মতো সমুদ্র সৈকতে যাঁরা বেড়াতে গিয়েছেন তাঁদেরও সতর্ক করা হয়েছে৷ জল বাড়তে পারে দামোদর, কংসাবতীরও৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement