BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সিন্ডিকেটের লরিতে পিষ্ট মা ও শিশু

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 25, 2016 11:02 am|    Updated: July 25, 2016 11:02 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: বেপরোয়া লরির চাকায় পিষ্ট হয়ে মৃত্যু হল মা ও তাঁর তিন বছরের সন্তানের৷ রবিবার দুপুরের এই ঘটনায় কার্যত রণক্ষেত্রের চেহারা নেয় রাজারহাট সংলগ্ন মাঝেরহাট এলাকা৷ চলল একাধিক সিন্ডিকেটের অফিসে ভাঙচুর, ইটবৃষ্টি৷ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে লাঠিচার্য করতে হয় পুলিশকে৷ প্রায় এক ঘণ্টা ধরে দফায় দফায় মাঝেরহাটের দেবকী মেমোরিয়াল স্কুলের সামনে চলে জনতা-পুলিশ খণ্ডযুদ্ধ৷ ঘাতক লরিটিতে ভাঙচুর চালায় উত্তেজিত জনতা৷ স্থানীয় নির্মীয়মাণ বহুতলেও চলে ভাঙচুর৷ দীর্ঘক্ষণ পর লাঠিচার্জ করে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে পুলিশ৷

ঘটনার সূত্রপাত এদিন সকাল সাড়ে ১১টা নাগাদ৷ রাজারহাটের কাছে দেবকী মেমোরিয়াল স্কুলের সামনে দিয়ে যাচ্ছিলেন সাহেরি বিবি(২৭) এবং তাঁর তিন বছরের ছেলে সোহান আলি৷ তাঁরা মাঝেরহাটের বাসিন্দা৷ শ্বশুরবাড়ি থেকে নারায়ণপুরে বাপের বাড়িতে ফিরছিলেন৷ স্কুলের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময়ই মূল রাস্তার পাশের গলি থেকে একটি বেপরোয়া লরি (WB 25E5653) বেরিয়ে মা ও তাঁর সন্তানকে পিষে দেয়৷ ঘটনাস্হলেই মৃত্যু হয় তাঁদের৷ ঘাতক লরির চালককে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ যদিও খালাসি পলাতক৷

এদিকে স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, এলাকারই সিন্ডিকেটের লোকজন সরু রাস্তায় লরিতে করে মাল ঢোকাচ্ছে৷ রাস্তাজুড়ে ফেলে রাখা হচ্ছে পাথর, বালি-সহ বিভিন্ন ইমারতি সামগ্রী৷ ফলে রাস্তা দিয়ে সাধারণ মানুষের হাঁটাচলা দায় হয়ে দাঁড়িয়েছে৷ যার জেরে মাঝে মধ্যেই ঘটছে দুর্ঘটনা৷ ঘটনায় স্থানীয় সিন্ডিকেটের চাঁই মুনিয়া দত্তর নাম উঠেছে৷ লরিটি তার মাল সরবরাহের কাজেই ব্যবহৃত হত বলে অভিযোগ৷ এর আগে জলাশয় বুজিয়ে বাড়ি তৈরির অভিযোগ উঠেছে মুনিয়ার বিরুদ্ধে৷

স্থানীয় বাসিন্দাদের অভিযোগ, জেলার এক প্রভাবশালী তৃণমূল নেতার হাত মুনিয়ার মাথার উপর থাকার কারণেই এলাকাজুড়ে বে-আইনি কাজ চালাচ্ছে সে৷ মূলত প্রোমোটিংয়ের ব্যবসাকে হাতিয়ার করেই এলাকায় প্রভাব বাড়িয়েছে মুনিয়া৷ একাধিক সিন্ডিকেটও রয়েছে তার৷ দীর্ঘদিন ধরেই রাজারহাট এলাকার সিন্ডিকেটের মাথা হয়ে উঠেছিল সে৷ এদিকে পুলিশ জানিয়েছে, ঘটনায় ঘাতক গাড়ির চালক আমিন বাদশা ওরফে ঝণ্টুকে গ্রেফতার করা হয়েছে৷ সে মুর্শিদাবাদের বেলডাঙার বাসিন্দা৷ ওই লরির খালাসির সন্ধান চালানো হচ্ছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement