BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বয়স বাড়লে আর ছাত্র রাজনীতি নয়: পার্থ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 25, 2016 8:50 am|    Updated: July 25, 2016 8:50 am

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের গণ্ডি পেরোলেই ছাত্র রাজনীতি থেকে অব্যাহতি নিয়ে সুযোগ দিতে হবে নতুন পড়ুয়াদের৷ রবিবার তৃণমূল ছাত্র পরিষদের (টিএমসিপি) প্রতিষ্ঠা দিবসের প্রস্তুতি সংক্রান্ত আলোচনাসভায় এমনটাই কড়া নির্দেশ দিলেন দলের মহাসচিব পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ দলীয় ছাত্র সংগঠনের প্রতি তাঁর নির্দেশ, ছাত্র না হলে আর ছাত্র-রাজনীতি করা যাবে না৷ বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ছাত্র রাজনীতি থেকে অব্যাহতি নিতে হবে৷ সেক্ষেত্রে চাইলে যুব রাজনীতিতে অংশগ্রহণ করা যাবে৷

এদিন পার্থবাবু কটাক্ষ করে বলেন, “বাবা-ছেলে একসঙ্গে কলেজ যাচ্ছে, তা যেন না হয়৷” প্রতিষ্ঠা দিবস উপলক্ষে যাতে কোথাও কোন চাঁদা তোলা না হয় তা নিয়েও এদিন কড়া অবস্থান রাখেন তিনি৷ তাঁর কথায়, ২১ জুলাইয়ের আগেও দলীয় নেতানেত্রীদের উদ্দেশে বার্তা রাখা হয়েছিল যাতে সমাবেশের নাম করে কোথাও কোনও চাঁদা না তোলা হয়৷ ঠিক তেমনই ছাত্র সংগঠনের উদ্দেশেও এদিন পার্থবাবুর নির্দেশ, প্রতিষ্ঠা দিবসকে কেন্দ্র করে কেউ যেন কোনও চাঁদা না তোলে৷ যদি এমন কোনও অভিযোগ আসে তবে দল উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া৷

ছাত্র সংগঠনের নামে কোনও অনৈতিক কাজকর্ম বরদাস্ত হবে না বলে এদিন ছাত্র-ছাত্রীদের সাবধান করেন দলের মহাসচিব৷ টিএমসিপির রাজ্য সভাপতি জয়া দত্তকে নির্দেশ দেন যে, কোথাও কোনও রকমের অনৈতিক কাজকর্মের অভিযোগ এলে যেন তাঁকে অবিলম্বে জানানো হয়৷ রাজনৈতিক রং না দেখে সেক্ষেত্রে উপযুক্ত ব্যবস্থা নেওয়া হবে৷ এ প্রসঙ্গে পার্থবাবু যোগ করেন, মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় এ বিষয়ে খুবই কড়া৷ অনৈতিক কাজের কোনও অভিযোগ উঠলে তা একেবারেই রেয়াত করবেন না তিনি৷

কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের অনুষ্ঠানে অর্থের বিনিময়ে সেলিব্রিটি অভিনেতা-অভিনেত্রীদের নিয়ে আসার প্রবণতা বন্ধ হওয়া দরকার বলে এদিন মত রাখেন পার্থ চট্টোপাধ্যায়৷ তিনি মনে করছেন, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের পড়ুয়াদের মধ্যেই অনেক ধরনের প্রতিভা লুকিয়ে রয়েছে৷ অনেকেই ভাল নাচ, গান, নাটক করতে পারেন৷ অভিনেতা-অভিনেত্রীদের পরিবর্তে অনুষ্ঠানে অংশ নেওয়ার জন্য তাঁদের খুঁজে নিতে হবে৷ এ কাজের দায়িত্ব নিতে হবে ছাত্র সংসদকেই৷

শাসক দলের ছাত্র সংগঠন হওয়ার সুবাদে সবকিছুতে ছাড় মিলবে এমনটা  ভাবার কোনও কারণ নেই বলেও এদিন স্পষ্ট ভাষায় জানিয়ে দেন তিনি৷ ছাত্র সংগঠনের প্রতি তাঁর বার্তা, গণতন্ত্রকে প্রাধান্য দিতে হবে৷ কাজ করতে হবে সমাজের কল্যাণে৷ এছাড়াও কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ে শান্তিশৃঙ্খলা বজায় রেখে পড়াশোনার পরিবেশ বজায় রাখার পিছনে ছাত্র সংগঠনের গুরুদায়িত্বের কথাও এদিন আরও একবার মনে করিয়ে দেন তিনি৷

আগামী ২৮ আগস্ট টিএমসিপির প্রতিষ্ঠা দিবস৷ কিন্তু ওইদিন রবিবার হওয়ায় বহু ছাত্র-ছাত্রী আসতে পারবে না বলে ২৬ আগস্ট মেয়ো রোডে গান্ধীমূর্তির পাদদেশে তা উদযাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে দল৷ এদিন তারই প্রস্তুতি, প্রচারপর্ব নিয়ে আলোচনা করেন পার্থবাবু৷ ছিলেন বিধায়ক তথা বর্ষীয়ান নেতা তাপস রায় ও জয়া দত্তও৷ পার্থবাবু জানান, অনুষ্ঠানের ব্যানার হবে একটাই৷ আর সেখানে একমাত্র মুখ্যমন্ত্রীর ছবি থাকবে৷ অন্য কোনও দলীয় নেতানেত্রীর ছবি থাকা চলবে না৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement