BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পুঞ্চে যুদ্ধবিরতি লঙ্ঘন করে ওয়াঘায় মিষ্টি বিনিময় পাকিস্তানের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 14, 2016 3:00 pm|    Updated: August 14, 2016 3:51 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানের দু’মুখো নীতি ফের প্রকাশ্যে এল রবিবার৷ এদিন ওয়াঘা সীমান্তে ভারতীয় সেনাবাহিনীর জন্য মিষ্টি পাঠাল পাক রেঞ্জার্স। তখনই অন্যদিকে পুঞ্চ সেক্টরে ভারতীয় সেনা ছাউনি লক্ষ্য করে গুলিবর্ষণ করল পাক সেনা৷ এই পরিস্থিতিতে রাজনৈতিক মহলের একাংশ অপেক্ষা করছেন ১৫ আগস্টের জন্য৷ ওইদিন দেশের স্বাধীনতা দিসব উপলক্ষ্যে ভারতীয় সেনাও পাক রেঞ্জার্সের হাতে মিষ্টি তুলে দেয় কি না, সেদিকেই তাকিয়ে গোটা দেশ৷

দু’দেশের সম্পর্ক বন্ধুত্বপূর্ণ করার লক্ষ্যে বহু বছর ধরে এই মিষ্টি বিনিময় প্রথা চলছিল৷ ইদ, দীপাবলি ও স্বাধীনতা দিবসে কুচকাওয়াজের পর দু’দেশের সেনাবাহিনীর মধ্যে মিষ্টি বিনিময় হয়৷ সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্তারা তাঁদের সরকারি পোশাকে ওয়াঘার সীমান্ত পেরিয়ে পাকিস্তানে ঢুকে মিষ্টি বিতরণ করেন৷ আবার পাক সেনাও ভারতে এসে সেনাবাহিনীকে মিষ্টি খাওয়াতো৷ কিন্তু গতবছর ওয়াঘায় মিষ্টি বিনিময়ের রীতিতে ইতি টেনেছিল ভারত৷ ২০১৫-য় পাক মিষ্টি গ্রহণ করেনি ভারত, পাকিস্তানকে মিষ্টি পৌঁছেও দেয়নি৷ গতবছরের জুলাই মাসে পাঞ্জাবে তিন পাক জঙ্গি অনুপ্রবেশ করে৷ জঙ্গিদের গুলিতে নিহত হন ১০ ভারতীয় নাগরিক৷ তারপর আগস্টের পাঁচ তারিখ উধমপুরে বিএসএফ কনভয়ে হামলা চালায় আরও দুই পাক জঙ্গি৷ সেই হামলায় শহিদ হন দু’জন সীমান্তরক্ষা বাহিনীর সদস্য৷ প্রতিবাদে ১৫ আগস্ট ওয়াঘা সীমান্তে পাকিস্তানের সঙ্গে মিষ্টি বিনিময় বন্ধ করে ভারত৷

এবছরও ভারত-পাক সম্পর্কের বরফ গলার কোনও লক্ষণ এখনও পর্যন্ত দেখা যায়নি৷ নতুন বছরের শুরুতেই পাঠানকোটে বায়ুসেনা ঘাঁটিতে হামলা চালায় পাক জঙ্গিরা৷ ওই হামলায় অন্তত ৭ নিরাপত্তারক্ষী শহিদ হন, মারা যান আরও এক নাগরিক৷ এরই মধ্যে কাশ্মীরে হিজবুল জঙ্গি বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর থেকেই উপত্যকায় অশান্তির আগুনে ঘি ঢেলে চলেছে ইসলামাবাদ৷ যদিও মুখে সে কথা স্বীকার করেনি পাকিস্তান৷ শনিবার দিল্লিতে পাক হাই কমিশনার আব্দুল বসিত পাকিস্তানের স্বাধীনতা দিবস উদযাপন অনুষ্ঠানে মন্তব্য করেন, কাশ্মীরের মানুষের লড়াই বিফলে যাবে না৷ ইসলামাবাদে একই সুর শোনা গিয়েছে পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের গলাতেও৷ এই পরিস্থিতিতে আগামীকাল ভারত পাক সেনার সঙ্গে সৌজন্যের খাতিরে মিষ্টি বিনিময় করে কি না, সেদিকেই তাকিয়ে রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement