BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

পাক অধিকৃত কাশ্মীর নিয়ে আরও আক্রমণাত্মক মোদি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 15, 2016 5:23 pm|    Updated: August 15, 2016 5:34 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের ৭০তম স্বাধীনতা দিবসে লালকেল্লায় দাঁড়িয়ে সন্ত্রাসবাদ প্রসঙ্গে পাকিস্তানকে কড়া হুঁশিয়ারি দিলেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। তিনি স্পষ্ট ভাষায় পাকিস্তানকে সন্ত্রাসবাদে মদত দেওয়ার জন্যে দায়ী করেন। একইসঙ্গে বালুচিস্তানের মাটিতে পাকিস্তান যে হিংসা চালাচ্ছে তাও এদিন বিশ্বের সামনে তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী৷ এই প্রথম স্বাধীনতা দিবসের বক্তৃতায় এরকম সংবেদনশীল বিষয়ে মুখ খুললেন কোনও প্রধানমন্ত্রী৷ মোদির হুঁশিয়ারি, কোনও অবস্থাতেই ভারতের মাটিতে জঙ্গি কার্যকলাপকে বরদাস্ত করা হবে না।

মোদি এদিন আরও বলেন, “বালুচিস্তানের মানুষের প্রতিক্রিয়া পেয়ে আমি আপ্লুত৷ পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মানুষ যেভাবে আমার প্রশংসা করেছেন, আমি তাঁদের কাছে কৃতজ্ঞ৷ আমি কোনওদিন স্বচক্ষে তাঁদের দেখিনি৷ কিন্তু তবু তাঁরা আমায় শুভেচ্ছা জানিয়েছেন৷” প্রধানমন্ত্রী স্পষ্ট করে জানান, পাকিস্তান যেভাবে জঙ্গিদের শহিদের তকমা দেয়, তা দেখে তিনি দুঃখিত৷ কাশ্মীর ইস্যুতে পাকিস্তান যেভাবে ভারতকে নিশানা করতে শুরু করেছে, গত কয়েকদিন ধরে যে তারই পাল্টা জবাব দিতে শুরু করেছে মোদি সরকার, এমনটাই মনে করছে রাজনৈতিক মহলের একাংশ৷ গত শুক্রবারই বিশ্বের বিভিন্ন অংশে ছড়িয়ে থাকা আজাদ কাশ্মীরের প্রবাসীদের সঙ্গে যোগাযোগ রাখার জন্যও প্রধানমন্ত্রী বিদেশমন্ত্রককে নির্দেশ দিয়েছিলেন৷ পাক অধিকৃত কাশ্মীরও জম্মু ও কাশ্মীরের অংশ বলে মন্তব্য করেন মোদি৷ প্রধানমন্ত্রীর দফতরের রাষ্ট্রমন্ত্রী জিতেন্দ্র সিং বলেন, ইসলামাবাদের বেআইনি দখলদারি থেকে পাক অধিকৃত কাশ্মীরের মানুষকে মুক্ত করতে হবে৷

বুরহান ওয়ানির মৃত্যুর পর উপত্যকার মানুষের পাশে দাঁড়ানোর আশ্বাস দিয়েছিল পাকিস্তান। কাশ্মীর যখন এমন একটা কঠিন পরিস্থিতির মধ্য দিয়ে যাচ্ছে সে সময় পাকিস্তানের এমন উস্কানিমূলক আচরণে যথেষ্টই ক্ষুব্ধ হয়েছিল দিল্লি। কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছিল, পাকিস্তান আগে নিজের ঘর সামলাক। ভারতের অভ্যন্তরীণ ব্যাপারে নাক গলানো কোনও ভাবেই মেনে নেওয়া হবে না। এদিনও প্রধানমন্ত্রীর গলাতে সেই একই সুর শোনা গেল৷ এদিন প্রায় ৯৪ মিনিট ভাষণ দেন মোদি৷ দেশের স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে এমন দীর্ঘ ভাষণ এর আগে কেউ দেননি৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement