BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

অজানা জ্বরে দুই পড়ুয়ার মৃত্যু ঘিরে স্কুলে বিক্ষোভ

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: August 1, 2016 3:26 pm|    Updated: August 1, 2016 5:09 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: অজানা জ্বরে দুই পড়ুয়ার মৃত্যুকে কেন্দ্র করে সোমবার সকালে রীতিমতো উত্তাল হল সল্টলেকের একটি অভিজাত স্কুল৷ অভিযোগ, সল্টলেকের ভারতীয় বিদ্যাভবনের ছাত্র বিবস্বান গুহ ঠাকুরতা (৯) ও ছাত্রী পূর্বিতা হাজরা (৫)-র মৃত্যু হয়েছে ডেঙ্গুতে৷ বিবস্বান চতুর্থ শ্রেণির ছাত্র৷ তার বাড়ি সল্টলেকের ১৬৯ নম্বর বিডি ব্লক৷ অন্যদিকে পূর্বিতা হাজরার বাড়ি দমদম গোরাবাজারে৷ বাইপাস সংলগ্ন একটি বেসরকারি হাসপাতালে মৃত্যু হয় বিবস্বানের৷ পূর্বিতার মৃত্যু হয়েছে সল্টলেকের একটি বেসরকারি হাসপাতালে৷ এই ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই উদ্বেগ ছড়ায় অভিভাবকদের মধ্যে৷

ঘটনার জেরে এদিন সকালে স্কুলে এসে কিছু অভিভাবক বিক্ষোভ দেখান৷ দুপুরে মেয়র সব্যসাচী দত্তের সঙ্গে দেখা করার কথা অভিভাবকদের৷

ডেঙ্গুতে দুই পডুয়ার ছাত্র মৃত্যুর ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই এদিন সকালে পড়ুয়াদের অভিভাবকদের একাংশ স্কুলে এসে বিক্ষোভ দেখান৷ তাঁদের অভিযোগ, স্কুলের ভিতরে ও বাইরের অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ৷ আবর্জনা স্তূপাকৃত হয়ে পড়ে থাকে৷ বাথরুমও নিয়মিত পরিষ্কার হয় না৷ স্কুলের অপরিচ্ছন্ন ও অস্বাস্থ্যকর পরিবেশের জন্যই মশার উপদ্রব৷ আর তার থেকেই এমন দুঃখজনক ঘটনা৷

দীর্ঘদিন ধরেই এই অভিযোগ করছেন বলে জানিয়েছেন অভিভাবকরা৷ স্কুলের ভিতরে মশার উপদ্রব মেনে কার্যত মেনে নিয়েছেন স্কুল কর্তৃপক্ষ৷ অভিভাবকদের থেকে এমন অভিযোগ এবং তুমুল বিক্ষোভের পরই তড়িঘড়ি আলোচনায় বসেন স্কুলের প্রিন্সিপাল ডঃ রেখা বৈশ্য, ডিরেক্টর ও প্রধান শিক্ষিকা৷ অভিভাবকদের সঙ্গেও তাঁরা বৈঠক করেন৷

পরে প্রিন্সিপাল জানান, স্কুলের প্রাথমিক বিভাগ আগামী সাত দিনের জন্য বন্ধ রাখা হবে৷ অন্যদিকে সেকেন্ডারি সেকশন বন্ধ থাকবে আগামিকাল৷ সূত্রের খবর, স্কুল বন্ধ রেখে সাফাই করা হবে৷ স্কুলের কাছে একটি বদ্ধ জলাশয়ও রয়েছে৷ তার থেকেও মশার বাড়বাড়ন্ত৷

একই দিনে, একই স্কুলের দুই পড়ুয়ার মৃত্যুর ঘটনা প্রকাশ্যে আসতেই ব্যাপক চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে ওই এলাকায়৷ দুই পড়ুয়ার মৃত্যুর ঘটনাকে দুঃখজনক বলেছেন বিধাননগরের মেয়র সব্যসাচী দত্ত৷ স্কুলে বিক্ষোভ দেখানোর পাশাপাশি সল্টলেকের মেয়র সব্যসাচী দত্তর সঙ্গেও আজ দুপুরে আলোচনায় বসবেন অভিভাবকদের একাংশ৷ অভিভাবকদের দাবি, দ্রূত স্কুলের ভিতরের অপরিচ্ছন্ন পরিবেশ স্বাভাবিক করতে হবে৷ এদিকে সল্টলেক পুর এলাকায় বর্ষার সময় মশা মারার জন্য একগুচ্ছ পরিকল্পনা নেওয়া হয়েছে বলে পুরসভা সূত্রে খবর৷ মূলত বজলেই মশার আড়ত৷ মশার বংশবৃদ্ধির৷ তাই মশা নিধন করতে সল্টলেক পুর এলাকার তিনটি খালে এখন থেকে নিয়ম করে স্পিডবোট চালানো হবে৷ গত তিন দিন ধরে সল্টলেক পুর এলাকার সব ওয়ার্ডে মশা মারার তেল ছড়ানোর কাজ শুরু হয়েছে৷ এই জন্য ইতিমধ্যেই ১১ জন প্রশিক্ষক ও ১১১ জন কর্মী নেওয়া হয়েছে৷ শুধু তাই নয়, সকাল-বিকেল, পাশাপাশি দুপুর বেলাতেও জঞ্জাল সাফাই করা হবে৷ মশা মারার তেল ছড়ানো হবে৷ পুরসভা সূত্রে খবর, প্রয়োজনীয় সব ব্যবস্থা নেওয়া হবে মশা মারার জন্য৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement