BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ২৫ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

২১-এর সমাবেশ ঘিরে বজ্র আটুঁনি ধর্মতলায়

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 20, 2016 3:00 pm|    Updated: August 21, 2020 12:58 pm

An Images

স্টাফ রিপোর্টার: রাত পোহালেই তৃণমূলের শহিদ দিবস৷ শেষ মুহূর্তের প্রস্তুতি তুঙ্গে৷ মঞ্চ বাঁধার কাজ শেষ৷ নেতৃত্ব দফায় দফায় তার খোঁজ রাখছেন৷ নেতৃত্ব প্রস্তুত নেত্রীর বার্তা শুনতে৷ তৈরি নেত্রীও৷ ধর্মতলার মহাসমাবেশে কাল মমতা কী বলেন, সবার নজর সেদিকেই৷ আজ বিকেলে কাজের ফাঁকে এক দফায় প্রস্তুতি দেখতে আসতে পারেন স্বয়ং নেত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের৷ প্রশাসনে ইতিমধ্যে দফায় দফায় একাধিক কড়া পদক্ষেপ নিয়েছেন মুখ্যমন্ত্রী৷ তোলাবাজি, সিন্ডিকেট নিয়ে নিয়েছেন একাধিক পদক্ষেপ৷ দলীয় স্তরে এবার তাঁর কী পদক্ষেপ, তা শুনতেই এবার অধিক আগ্রহে আসছেন দলীয় নেতা-কর্মীরা৷ আপাতত গ্রাম থেকে শহর, কলকাতার ধর্মতলামুখী গোটা রাজ্যের মানুষ৷ দলীয় নেতা-কর্মীরা ইতিমধ্যে উত্তরবঙ্গ থেকে এসে পৌঁছেছেন৷ একদিকে তাঁদের নিরাপত্তা, অন্যদিকে, বৃহস্পতিবার সপ্তাহের ব্যস্ত দিনে দলীয় সমাবেশের জেরে যাতে অফিসকর্মীদের কোনওভাবে বিপত্তিতে না পড়তে হয়, তার জেরে মোতায়েন থাকছে অসংখ্য পুলিশকর্মী৷

২১ জুলাইয়ে শহরে নিরাপত্তা, আইনশৃঙ্খলা এবং ট্রাফিক নিয়ে লালবাজারে পদস্থ পুলিশকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন পুলিশ কমিশনার রাজীব কুমার৷ সভাস্থলের দিকে অযাচিত গাড়ি যাতে কোনওভাবেই আসতে না পারে, তার জন্যই এই বিশেষ চেকিংয়ের ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ নির্দিষ্ট দূরত্বে থাকবে ‘ড্রপ গেট’ ও ‘সিজার ব্যারিকেড’৷ অত্যাধুনিক সরঞ্জামের মাধ্যমে প্রতিটি গাড়ি আলাদা করে চেক করা হবে৷ শহিদ দিবসের দিন সকাল আটটা থেকে রাত আটটা পর্যন্ত শহরে কোনও মালবাহী গাড়ি চলতে পারবে না বলে নির্দেশিকা জারি করেছে লালবাজার৷ পুলিশ জানিয়েছে, নিরাপত্তার চাদরে মুড়ে ফেলা হচ্ছে ধর্মতলা সংলগ্ন এলাকা৷ অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার সুপ্রতিম সরকার জানান, শহিদ দিবসের নিরাপত্তায় নামছে ২৮০০ পুলিশ৷ রাস্তায় থাকছেন ২৩ জন ডেপুটি কমিশনার, ৬০ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট কমিশনার, ১৬০ জন ইন্সপেক্টর, ৪০০ জন সাব ইন্সপেক্টের ও সার্জেন্ট, ৪৫০ জন অ্যাসিস্ট্যান্ট সাব ইন্সপেক্টর, ২০০ জন মহিলা পুলিশ৷ জনতার উপর নজরদারি ও শিয়ালদহ স্টেশন-সহ শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে সভাস্থলের দিকে আসবে মিছিল৷ কিন্তু মিছিলের জন্য যাতে যান চলাচলের অসুবিধা না হয়, সেই বিষয়ে নজর রাখবে ট্রাফিক পুলিশ৷ পুলিশ জানিয়েছে, কলকাতার বাইরে থেকে কয়েক হাজার গাড়ি আসতে পারে কলকাতায়৷ সেগুলি মূলত ময়দান ও তার সংলগ্ন এলাকায় পার্কিং করবে৷ এ ছাড়াও সেন্ট্রাল অ্যাভিনিউ-সহ কয়েকটি রাস্তায় গাড়ি পার্কিং করা যাবে৷

২১১ আসন নিয়ে দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করেছে তৃণমূল কংগ্রেস৷ দ্বিতীয়বার মা-মাটি-মানুষের সরকার গঠনের জন্য বৃহস্পতিবার ২১ জুলাইয়ের মঞ্চ থেকে রাজ্যের মানুষকে ধন্যবাদ জানাবেন তৃণমূল নেত্রী৷ মুখ্যমন্ত্রী হওয়ার পর এটাই মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের প্রথম প্রকাশ্য রাজনৈতিক সভা৷ এই সভা থেকে দলীয় শৃঙ্খলা ও অনুশাসনের বার্তা তৃণমূল নেত্রী দিতে পারেন বলে খবর৷ দল মনে করছে, এবার জনসমাগমে অতীতের সব রেকর্ড ছাপিয়ে যাবে৷ কর্মী-সমর্থকদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থা, মঞ্চ প্রস্তুতির যাবতীয় ব্যস্ততা তুঙ্গে৷ ১৫০ জন ডাক্তারকে নিয়ে মেডিক্যাল টিম তৈরি করা হয়েছে৷ থাকছে স্ক্যান, ইসিজির ব্যবস্থা৷ সবদিকের প্রস্তুতি খতিয়ে দেখছেন সুব্রত বক্সি, পার্থ চট্টোপাধ্যায়, অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়, মুকুল রায়, শোভন চট্টোপাধ্যায়, শোভনদেব চট্টোপাধ্যায়রা৷ অন্যদিকে সমাবেশকে ঘিরে নিশিছদ্র নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ থাকছে ‘ড্রপ গেট’ ও ‘সিজার ব্যারিকেড’৷

ক্ষুদিরাম অনুশীলন কেন্দ্র, সল্টলেক স্টেডিয়াম, শিয়ালদহ ও ধর্মতলার একাধিক ধর্মশালায় কর্মীদের থাকার ব্যবস্থা করা হয়েছে৷ সমাবেশের দিন ১৩টি অ্যাম্বুল্যান্স থাকবে বিভিন্ন জায়গায়৷ শিয়ালদহ, ধর্মতলা, হাওড়া, ইএম বাইপাস-সহ একাধিক জায়গায় ক্যাম্প তৈরি করা হয়েছে দলের পক্ষ থেকে৷ জেলার কর্মীদের সাহায্য করার জন্য দলের তরফে বেশ কয়েকটি টিম তৈরি করা হয়েছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement