৪ মাঘ  ১৪২৫  শনিবার ১৯ জানুয়ারি ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফিরে দেখা ২০১৮ ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নতুন বছরের শুরুতে একই মাসে একবার সূর্যগ্রহণ এবং দু’বার চন্দ্রগ্রহণের সাক্ষী থাকতে চলেছে দুনিয়া। তবে ২০১৯-এ এই রবিবার প্রথম আংশিক সূর্যগ্রহণ হবে। দু’সপ্তাহ পরেই ২০ ও ২১ জানুয়ারি হবে পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ। গ্রহণের সময় চাঁদ অন্যদিনের তুলনায় অনেকটা বড় থাকবে। বিজ্ঞানীরা এই চাঁদের নাম দিয়েছেন সুপার উলফ ব্লাড মুন। এই বছর মোট ছ’টি চন্দ্রগ্রহণ হবে। তবে ভারত থেকে অধিকাংশ গ্রহণই দেখা যাবে না। ‘ফুল উলফ’ চাঁদ বিষয়টি কী! কোথায় ও কখন দেখা যাবে?

মহাজাগতিক দুনিয়ায় এই বিরলতম ঘটনার সাক্ষী থাকার আগে সূর্যগ্রহণ সম্পর্কে আগে কয়েকটি বিষয় জেনে নেওয়া উচিত। গ্রহণ সম্পর্কে কিছু তথ্য জেনে নিন। ৬ জানুয়ারি বছরের প্রথম আংশিক সূর্যগ্রহণ হচ্ছে। সূর্যের কিছু অংশ অন্ধকারাচ্ছন্ন থাকবে। কিন্তু এই গ্রহণ ভারত থেকে দেখা যাবে না। এই গ্রহণ নিয়ে নাসা গুগল ম্যাপ ধরে একটি ম্যাপ তৈরি করেছে। যেসব এলাকা এই গ্রহণ মানচিত্রের মধ্যে পড়ছে, সেখান থেকেই দেখা যাবে। উত্তর-পূর্ব এশিয়া, চিন, সাইবেরিয়ার কিছু অংশ, কোরিয়া, জাপানে দেখা যাবে এই আংশিক গ্রহণ। ভারতীয় সময় সকাল ৫টা থেকে ৯টা পর্যন্ত চলবে গ্রহণ। নাসা জানিয়েছে, গ্রহণের সানগ্লাস লাগিয়ে তবেই এই গ্রহণ দেখুন। খালি চোখে এই গ্রহণ না দেখার অনুরোধ করেছেন বিজ্ঞানীরাও। মোবাইল ফোনের স্ক্রিন, টেলিভিশন, ক্যামেরার স্ক্রিন, টেলিস্কোপের মাধ্যমে দেখলে কোনও সমস্যা নেই। খালি চোখে দেখলে চোখ খারাপ হয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা আছে। তবে ভারতীয়দের এত পরিশ্রমের কোনও প্রয়োজন নেই। রবিবার এই গ্রহণ দেখতে হলে টিভি বা অনলাইন মাধ্যমই ভরসা।

[মার্কিন ‘মাদার অফ অল বম্বস’-এর চেয়েও শক্তিশালী মারণাস্ত্র এবার চিনের অস্ত্রাগারে]

২০ ও ২১ জানুয়ারি মহাকাশে চাঁদের জোড়া গ্রহণ আছে। যার বৈজ্ঞানিক নাম সুপার ব্লাড উলফ মুন। নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে, এটি সাধারণ ঘটনা নয়। বিশেষ কিছু হতে চলেছে এই গ্রহণে। 

ফুল উলফ মুন কী ?

মহাজগতের বিরলতম ঘটনা এই সুপার উলফ ব্লাড মুন। এই গ্রহণের সময় চাঁদ পৃথিবীর কক্ষপথের সবথেকে কাছে চলে আসবে। এটি পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণ হতে চলেছে। জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা বলছেন, ফুল উলফ মুন। আর প্রত্যেক পূর্ণগ্রাস চন্দ্রগ্রহণেই চাঁদের রং লাল হয়ে যায়। সব মিলিয়ে এই নামকরণ করা হয়েছে। এক ঘণ্টা দু’মিনিট পূর্ণগ্রাস থাকবে চাঁদ। আর আংশিক গ্রহণ থাকবে তিন ঘণ্টা ১৭ মিনিট। কিন্তু দুর্ভাগ্যবশত এই গ্রহণও ভারত থেকে দেখা যাবে না।

[‘সার্জিক্যাল স্ট্রাইক মনগড়া কল্পনা’, মোদির দাবি উড়িয়ে বিবৃতি পাকিস্তানের]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং