২৬ কার্তিক  ১৪২৬  বুধবার ১৩ নভেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উলটে যাওয়া বাসে ভয়াবহ অগ্নিকাণ্ডের জেরে প্রাণ হারালেন ৩০ জখম। মারাত্মক জখম অবস্থায় হাসপাতালে ভরতি রয়েছেন আরও ১৮ জন। স্থানীয় সময় রবিবার রাত একটা নাগাদ মর্মান্তিক এই দুর্ঘটনাটি ঘটেছে কঙ্গোর রাজধানী কিনশাসার কাছে।প্রাথমিকভাবে জানা গিয়েছে, ব্রেক ফেল করার ফলে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে উলটে যায় ওই বাসটি। আর তারপরই তাতে দাউদাউ করে আগুন জ্বলতে থাকে। রাতে সবাই ঘুমোচ্ছিলেন। তাই কিছু বুঝে ওঠার আগে বেশিরভাগ যাত্রী ঝলসে যান। বাস থেকে বেরিয়ে আসার কোনও সুযোগ পাননি তাঁরা। যে ১৮ জন বাস থেকে বেরিয়ে আসতে সক্ষম হয়েছেন তাঁদের শরীরের বেশিরভাগ অংশ ঝলসে গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: ‘৩১ অক্টোবরই বেরিয়ে যাবে ব্রিটেন’, ব্রেক্সিট পিছনোর আরজি জানিয়েও দাবি মন্ত্রীর]

স্থানীয় প্রশাসন সূত্রে জানা গিয়েছে, যাত্রীবোঝাই ওই বাসটি অ্যাঙ্গোলার নিকটবর্তী সীমান্ত শহর লুফু থেকে ১ নম্বর জাতীয় সড়ক ধরে কিনশাসা আসছিল। রাত একটা নাগাদ কিনশাসা থেকে ১৫০ কিলোমিটার আগে মবানজা-নাঙ্গুঙ্গু গ্রামের কাছে এসে আচমকা উলটে যায়। তারপরই আগুন লাগে তাতে।

মাবানজা-নাঙ্গুঙ্গু অঞ্চলের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রশাসক দিদিয়ের এনসিম্বা জানান, ওই বাসটি প্রচুর যাত্রী ও জিনিস ছিল। আচমকা ব্রেক ফেল হওয়ার ফলে সেটি উলটে যায়। তারপর জিনিসপত্রের মধ্যে থাকা প্রচুর তেল ও মদের মতো দাহ্য পদার্থ থাকার কারণে বাসটিতে আগুন লেগে যায়।

[আরও পড়ুন:স্বাধীন রাষ্ট্রের দাবিতে জ্বলছে স্পেনের কাতালুনিয়া, বিক্ষোভ দমনে কড়া বার্তা মেয়রের]

এপ্রসঙ্গে দক্ষিণ-পশ্চিম কিনশাসার মাবানজা-নাঙ্গুঙ্গু অঞ্চলের রেড ক্রস মুখপাত্র ডেভিড সিয়ালা বলেন, ‘বাসটিতে ১০০ জনের মতো যাত্রী ছিল বলে জানা যাচ্ছে। তার মধ্যে এখন পর্যন্ত ৩০ জনের দেহ বের করা সম্ভব হয়েছে। দেহগুলি সম্পূর্ণ ঝলসে গিয়েছে। ফলে তাঁদের পরিচয় জানতে সমস্যা হচ্ছে। এছাড়া গুরুতর জখম অবস্থায় ১৮ জনকে হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে।এখনও অনেক যাত্রীর মৃতদেহ উদ্ধার হবে বলে আশঙ্কা করা হচ্ছে।’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং