১৫ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বৃহস্পতিবার ২ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

চিনের এই ৫টি অস্ত্রেই চিন্তিত ভারত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: February 7, 2017 8:19 am|    Updated: February 7, 2017 9:22 am

5 Chinese weapons of war India should fear

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: তিক্ত অভিজ্ঞতা৷ পারস্পরিক সন্দেহ৷ কৌশলগত দন্দ্ব ও আধিপত্যের লড়াই৷ এই কটা শব্দেই পরিষ্কার ভারত-চিন সম্পর্কের ছবি৷ বিশ্বমানচিত্রে আধিপত্যের লড়াইয়ে এশিয়া মহাদেশের পরমাণু শক্তিধর এই দুই দেশ ক্রমশ এগিয়ে যাচ্ছে সংঘাতের দিকে৷ নিউক্লিয়ার গ্রুপ থেকে শুরু করে পাকিস্তানকে মদত দেওয়া, ক্রমাগত ভারতকে দাবিয়ে রাখার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে চিন৷ তবে বেজিংয়ের কুমতলব বুঝতে পেরেছে দিল্লি৷ তাই এবার সাজিয়ে তোলা হচ্ছে ভারতীয় সেনাকে৷ তবে চিনের কাছে রয়েছে এমন পাঁচটি অস্ত্র যা বাড়িয়ে তুলেছে দিল্লির সামরিক কর্তাদের চিন্তা৷ কী সেই অস্ত্র জেনে নিন এই প্রতিবেদন থেকে৷

WU-14_web

১) WU-14 হাইপারসনিক ওয়েপন সিস্টেম: ৯ জানুয়ারি এই ভয়ঙ্কর অস্ত্রটি পরীক্ষা করে চিন৷ শব্দের থেকেও ৫-১০ গুণ গতিসম্পন্ন এই ক্ষেপণাস্ত্রটি ঘণ্টায় ৩,৮৪০ থেকে ৭,৬৮০ মাইল অতিক্রম করতে পারে৷ কয়েকদিন আগেই একটি DF-21 ব্যালিস্টিক মিসাইল থেকে পরীক্ষামূলক ভাবে ছোড়া হয় অস্ত্রটি৷ প্রচণ্ড গতিসম্পন্ন হওয়ায় অস্ত্রটি ২০ মিনিটের মধ্যে বেঙ্গালুরু ও ১০ মিনিটেরও কম সময়ে দিল্লিতে আঘাত হানতে পারে৷

Future-Chinese_web

২) অত্যাধুনিক বিমানবাহী রণতরী:  ভারত-চিন সীমান্তের অধিকাংশই পাহাড়ি এলাকা৷ তাই যদি যুদ্ধ বাধে, নির্ণায়ক লড়াই হবে সমুদ্রে৷ বিশ্বের অন্যতম শ্রেষ্ঠদের তালিকায় রয়েছে ভারতীয় নৌসেনা৷ তাই ভারত মহাসাগরে আধিপত্য বিস্তার করতে লালফৌজ এবার অত্যাধুনিক বিমানবাহী রণতরী বানাচ্ছে৷ লিয়াওনিং নামের একটি এয়ারক্রাফট কেরিয়ার  লালফৌজের ঝুলিতে রয়েছে৷ সূত্রের খবর, ইতিমধ্যে চিন এমন তিনটি বিমানবাহী রণতরী বানাচ্ছে যা ৭৫টি জঙ্গিবিমান বহনে সক্ষম৷

Second-Artillery-Corps_web

৩) সেকেন্ড আর্টিলারি কর্পস: লালফৌজের এই ভয়ংকর শাখায় রয়েছে DF-15C,  DF-21-র মতো কয়েকশো ব্যালিস্টিক মিসাইল৷ এছাড়াও রয়েছে পরমাণু অস্ত্র বহনে সক্ষম ক্ষেপণাস্ত্র৷ ১,০৮৭ মাইল থেকে শুরু করে ১০,০০০ কিলোমিটার পর্যন্ত আঘাত হানতে সক্ষম এই মিসাইলগুলি ভারতের যে কোনও জায়গায় আঘাত হানতে সক্ষম৷ ভারতীয় সেনার কাছে এই মুহূর্তে কোনও মিসাইল প্রতিরক্ষা পদ্ধতি নেই৷ তাই যুদ্ধ বাধলে পরিস্থিতি জটিল হতে পারে৷

DH-10_web

৪)  DH-10 ক্রুজ মিসাইল: আমেরিকার মারাত্মক অস্ত্র টমাহক ক্রুজ মিসাইলের আদলে তৈরি চিনের এই DH-10 বা ডং হাই-১০ ক্রুজ মিসাইল৷ ৯৪১ মাইল পর্যন্ত আঘাত হানতে সক্ষম এটি৷ রাডারে প্রায় অদৃশ্য এই ক্ষেপণাস্ত্রটি মাটি, আকাশ ও সুমদ্র থেকেও ছোড়া যায়৷ প্রায় ১০০০ পাউন্ড ওজনের বিস্ফোরক বহন করতে পারে এই মিসাইলটি৷

Chengdu-J-20-Fighter_web

৫)  Chengdu J-20:  চিনের এই জঙ্গি বিমানটি যে কোনও শত্রুকে চিন্তায় ফেলে দিতে পারে৷ ২০২০ থেকে লালফৌজের বায়ুসেনায় যুক্ত হবে এই বিমানটি৷ স্টেলথ প্রযুক্তি সম্পন্ন এই বিমানটি তিব্বতে মোতায়েন করতে পারে চিন৷ যুদ্ধ শুরু হলে তিব্বত থেকে ভারতে হামলা চালাতে পারে এই বিমানগুলো৷

নিশানায় ভারত-আমেরিকা ও জাপান, মহড়ায় নামল চিনের ‘রকেট ফোর্স’

দক্ষিণ চিন সাগরে চরমে লালফৌজের যুদ্ধ প্রস্তুতি

একসঙ্গে ১০টি পরমাণু বোমা বহনকারী ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা করল চিন

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে