৫ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ১৯ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

ল্যাব নয়, পশু থেকেই ছড়িয়ে থাকতে পারে করোনা! WHO ও চিনের রিপোর্টের খসড়া ঘিরে বিতর্ক

Published by: Arupkanti Bera |    Posted: March 29, 2021 4:50 pm|    Updated: March 29, 2021 5:20 pm

Allegdly China trying to skew report to prevent blame for coronavirus pandemic falling on them । Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনার (Coronavirus) উৎসস্থল খুঁজে বের করতে একটি যৌথ তদন্ত করে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা (WHO) এবং চিন। তদন্তের রিপোর্ট প্রকাশের ক্ষেত্রে বার বার তারিখ পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে। এর মধ্যেই সংবাদ সংস্থা অ্যাসোসিয়েট প্রেস (এপি) রিপোর্টের একটি খসড়া হাতে পেয়েছে। যা চূড়ান্ত রিপোর্টের আগের ধাপ বলে দাবি করা হচ্ছে। যেখানে পশুদের থেকে করোনা ছড়ানোর সম্ভাবনার কথা বলা হলেও চিনের (China) পরীক্ষাগার থেকে ভাইরাস লিক হওয়ার সম্ভাবনার কথা একেবারেই উড়িয়ে দেওয়া হয়েছে। চিন নাকি নিজেদের ঘাড় থেকে দায় নামাতে রিপোর্টে প্রভাব খাটানোর চেষ্টা করছে বলে অভিযোগ।

প্রাক্তন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প (Donald Trump) অতিমারীর সময় করোনাকে সরাসরি ‘চিনা ভাইরাস’ বলেই মন্তব্য করেন। যা নিয়ে তীব্র আপত্তি জানায় ড্রাগনের দেশ। তবে গোটা বিশ্বের বেশির ভাগ মানুষই হয়তো বিশ্বাস করেন করোনার উৎসস্থল ছিল চিন। চিন থেকেই বিশ্বে অতিমারী (Pandemic) ছড়িয়ে পড়ে। ফলে বিশ্বজুড়ে চিনের ভাবমূর্তি ব্যাপক ক্ষতিগ্রস্তও হয়। হু এবং চিনের যৌথ তদন্ত কমিটির তৈরি রিপোর্টে প্রভাব খাটিয়ে সেই ভাবমূর্তি উদ্ধারের চেষ্টা করা হচ্ছে বলে অভিযোগ।

[আরও পড়ুন: ‘শাপমুক্তি’র পথে সুয়েজ খাল, অবশেষে ভাসল আটকে থাকা দৈত্যাকৃতি জাহাজ]

এপির হাতে আসা রিপোর্টে দাবি করা হয়েছে, বাদুড়ের শরীর থেকে অন্য কোনও প্রাণীর মাধ্যমে মানব শরীরে প্রবেশ করে থাকতে পারে কোভিড-১৯ ভাইরাস। কিন্তু পরীক্ষাগার থেকে লিক হওয়া ‘অত্যন্ত অসম্ভব’ বলে মন্তব্য করা হয়েছে রিপোর্টে। তবে করোনা সংক্রমণ নিয়ে ওঠা বহু প্রশ্নের উত্তর নাকি এই রিপোর্টে নেই। করোনা ছড়ানোর সম্ভাব্য সব দিকগুলি নিয়ে আরও তদন্তের প্রয়োজন রয়েছে বলে দাবি করা হয়েছে। যদিও সেই তালিকায় রাখা হচ্ছে না পরীক্ষাগার থেকে ছড়ানোর তত্ব।

দিনের পর দিন পিছিয়ে দেওয়া হচ্ছে এই রিপোর্ট প্রকাশের তারিখ। যা নিয়ে বার বার প্রশ্নও উঠছে, চিনের কারণেই কি এটা হচ্ছে? সেক্ষেত্রে চিন হয়তো চাইছে এই রিপোর্টের কনক্লুশন বদলাতে। অভিযোগ, চিন চাইছে চূড়ান্ত রিপোর্ট এমন ভাবে তৈরি হোক যাতে করোনার উৎসস্থল হিসাবে তাদের দিকে অভিযোগের আঙুল না ওঠে।

[আরও পড়ুন: সীমান্তে শান্তি ফেরাতে ব্রিগেড কমান্ডার স্তরের বৈঠক ভারত-পাকিস্তানের]

গত সপ্তাহের শেষের দিকে হু-এর এক অধিকারিক জানিয়েছেন, আগামী কয়েক দিনের মধ্যেই রিপোর্ট প্রকাশ করা হবে। তবে যে খসড়া রিপোর্টটি বেরিয়ে এসেছে সেটা পরিবর্তন হবে কিনা জানা যায়নি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে