১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

ডিম ছুড়ে এ কেমন প্রতিবাদ ফুটবলের দেশে!

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 16, 2017 11:25 am|    Updated: July 16, 2017 11:25 am

Brazil protesters pelt politician with eggs at her wedding

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যার প্রতি ক্ষোভ তাঁকে লক্ষ করে ডিম ছুড়তে হবে। দুনিয়া জুড়ে এটাই যেন প্রতিবাদের জনপ্রিয় পথ। রাস্তায় বেরোলে বা কোনও কর্মসূচিতে জনসমক্ষে পচা ডিমের মুখে পড়েছেন বহু তাবড় রাজনীতিক। তবে কাউকে অপছন্দ হলে বিয়ের অনুষ্ঠানে গিয়ে ডিম ছুড়তে হবে। এমন বেনজির ঘটনা দেখা গেল ব্রাজিলের পারানা এলাকায়। চার্চের মধ্যে বিয়ে চলছিল সেদেশের স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মেয়ের। আচমকাই শতাধিক বামপন্থী সমর্থক চার্চে ঢুকে ডিম ছুড়তে থাকেন। নবদম্পতির মানরক্ষা হলেও, অভ্যাগতরা চূড়ান্ত বিড়ম্বনায় পড়েন।

[পঞ্চাশ পেরিয়েও যা ইনি করলেন, অতি বড় ব্যায়ামবীরেরও চোখ কপালে উঠতে বাধ্য]

অমিত শাহ থেকে অরবিন্দ কেজরিওয়াল বা আর্নল্ড সোয়ার্জনেগার। দুনিয়ার নানা প্রান্তে এমন অনেক হেভিওয়েটকে ডিম হামলার মুখে পড়তে হয়েছে। হচ্ছেও। ব্রিটেন এবং মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে এই প্রবণতা সবথেকে বেশি। এবার সেই আঁচ দক্ষিণ আমেরিকার ব্রাজিলে। নানা ইস্যুতে বর্তমান প্রেসিডেন্ট মাইকেল টেমেরের ওপর সে দেশে ক্ষোভ বাড়ছে। তাঁর স্বাস্থ্যমন্ত্রী রিকার্ডো বারোসও বিরোধীদের নিশানায়। প্রেসিডেন্টের রাগ এবার আছড়ে পড়ল স্বাস্থ্যমন্ত্রীর মেয়ের বিয়েতে। রিকার্ডো বারোসের মেয়ে মারিয়ার বিয়ে ভণ্ডুল করতে বিক্ষুব্ধদের অস্ত্র হল  ডিম। ঝাল মেটাতে বামপন্থী সমর্থকরা হাজির হন মারিয়ার বিয়ের অনুষ্ঠানে। চার্চে চলছিল এই পর্ব। কিছু বোঝার আগেই কয়েকজন ডিম ছুড়তে শুরু করেন। আমন্ত্রিতরা গোটা ঘটনায় হকচকিয়ে যান। কয়েকজনকে নিগ্রহের চেষ্টা হয়। চার্চের মধ্যে চলতে থাকে সরকারবিরোধী এবং বারোসের বিরুদ্ধে স্লোগান।

[ডিম ছুড়তে ভালবাসেন? তাহলে এই প্রতিযোগিতা আপনার জন্য]

২৫ বছরের মারিয়া পারানার আইনসভার সদস্য। নমঃ নমঃ করে অনুষ্ঠান সেরে শেষ পর্যন্ত বড় লজ্জার হাত থেকে বাঁচেন মারিয়া। বিয়ের অনুষ্ঠানে ছিলেন মারিয়ার বাবা, মা, পারানার ডেপুটি গর্ভনরের মতো লোকজন। বিয়ের সাক্ষী হতে এসেছিলেন ব্রাজিল কংগ্রেসের ৩০ জন সদস্য। শেষ পর্যন্ত তারা চূড়ান্ত অপমানিত হন। নবদম্পতিকে হেনস্থার মুখ থেকে বাঁচাতে শেষ পর্যন্ত রায়ট পুলিশ ডাকতে হয়। ব্রাজিলের এই ছবি বুঝিয়ে দিল ফুটবলের দেশে রাজনৈতিক অসহিষ্ণুতা কোন পর্যায়ে পৌঁছেছে। দিলমা রুসেফের জমানার শেষ দিকে ব্রাজিলে প্রতিদিন সরকারবিরোধী মিছিল বের হত। রুসেফের ইমপিচমেন্টের পর টেমের হাল ধরার পরও অবস্থা এতটুকু বদলায়নি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে