BREAKING NEWS

২৮ শ্রাবণ  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১৩ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

প্রাকৃতিক বিবর্তনের ফসল করোনা ভাইরাস, প্রকাশ্যে নয়া তথ্য

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: March 19, 2020 8:48 am|    Updated: March 19, 2020 10:43 am

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিশ্বজুড়ে ছড়িয়েছে মারণ করোনা ভাইরাসের আতঙ্ক।এখনও পর্যন্ত দুনিয়ায় ৮ হাজার মানুষের প্রাণ কেড়েছে কোভিড-১৯ মহামারী। কয়েকদিন আগেই বলা হয়েছিল যে কৃত্রিমভাবে এই ভাইরাস তৈরি করা হয়েছে। তবে এই জল্পনায় জল ঢেলেছে এক নতুন গবেষণা।

[আরও পড়ুন: করোনা আতঙ্কের মাঝেই স্বস্তির বাণী, ইতিমধ্যেই সুস্থ ভারতের ১০ শতাংশ আক্রান্ত]

সদ্য করোনা ভাইরাস নিয়ে একটি নতুন গবেষণার ফল প্রকাশিত হয়েছে নেচার মেডিসিন পত্রিকায়। নোভেল করোনা ভাইরাস সার্স-কো ভি-২ বা কোভিড-১৯ ও তার সম্পর্কীত ভাইরাসগুলির জিনের গঠন সংক্রান্ত তথ্য বিশ্লেষণ করেছেন গবেষকরা। এই গবেষণার সঙ্গে যুক্ত ছিলেন আমেরিকার স্ক্রিপস রিসার্চ ইনস্টিটিউট সহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের বিজ্ঞানী। নোভেল করোনা ভাইরাস কৃত্রিমভাবে তৈরির হয়েছে বলে গবেষণায় কোনও প্রমাণ মেলেনি। গবেষণাপত্রটির অন্যতম লেখক স্ক্রিপস রিসার্চ ইনস্টিটিউটের বিজ্ঞানী ক্রিস্টিয়ান অ্যান্ডারসেন বলেন, “পরিচিত করোনা ভাইরাসের স্ট্রেইনগুলির তুলনামূলক বিশ্লেষণ করে আমরা নিশ্চিতভাবে বলতে পারি, সার্স-কো ভি-২ স্বাভাবিক প্রক্রিয়ায় সৃষ্টি হয়েছে।” গবেষকদের বক্তব্য, চিনা কর্তৃপক্ষ খুব দ্রুত এই মহামারী শনাক্ত করেছেন। একজনের থেকে অন্যজনের শরীরে সংক্রমণের জেরেই কোভিড-১৯ ছড়িয়ে পড়ার ঘটনা বাড়ছে। হাতে আসা এই সব তথ্য বিশ্লেষণ করেই সার্স-কো ভি-২ ভাইরাসের উৎপত্তি কীভাবে, তা জানতে পেরেছেন গবেষকদের এই দলটি। বিজ্ঞানীদের দাবি, স্বাভাবিক বিবর্তনের ফলেই এগুলি তৈরি হয়েছে। কৃত্রিমভাবে তৈরি করা হয়নি।

উল্লেখ্য, চিন থেকে ছড়িয়ে পড়া করোনা ভাইরাস ক্রমেই মহামারীর আকার নিচ্ছে। লাফিয়ে বাড়ছে মৃত ও আক্রান্তের সংখ‌্যা। আক্রান্ত হতে বাদ নেই ইউরোপ, আমেরিকাও। বিমানযাত্রীদের মাধ‌্যমে ছড়াচ্ছে ভাইরাস। আতঙ্ক ছড়িয়েছে সুদূর অস্ট্রেলিয়া থেকে দক্ষিণ আফ্রিকাতেও। এই ঘটনায় রেসিডেন্ট ইভিল সিনেমার ভয়ানক প্রতিফলনই দেখতে পাচ্ছেন অনেকে। ইজরায়েলের গোয়েন্দা সংস্থা মোসাদ সন্দেহ করেছে, রহস্যময় ‘নোভেল করোনা ভাইরাস’ চাষ করেছে চিনের গোপন সামরিক গবেষণাগার। দ্বিতীয়, মার্কিন পত্রিকা ওয়াশিংটন পোস্ট মোসাদের এই দাবিকেই সমর্থন করেছে। তবে নয়া গবেষণার ফল প্রকাশ্যে আসায় এবার সেই জল্পনা ও বিতর্ক কিছুটা থামবে বলেই মনে করা হচ্ছে। 

[আরও পড়ুন: করোনা পরিস্থিতি: কলকাতায় আক্রান্ত যুবকের পরিবারে সংক্রমণ ঘটেনি, স্বস্তি রিপোর্টে]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement