BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

নেতানিয়াহুর ঘরে ঢুকলে খোলো অন্তর্বাস, হেনস্তা মহিলা সাংবাদিককে

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 25, 2018 3:24 pm|    Updated: January 25, 2018 3:24 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বজ্র আঁটুনি ফস্কা গেরো। সেই গোরোতেই পড়লেন এক মহিলা সাংবাদিক। মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেনসের ইজরায়েল সফরে সঙ্গী ছিলেন তিনি। কিন্তু ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী নেতানিয়াহুর ঘরে ঢুকতে যাওযার সময় কড়া নিরাপত্তার মুখে পড়তে হল তাঁকে। আর সেখানেই এল একেবারে অন্তর্বাস খোলার নির্দেশ।

আইনি রক্ষাকবচে নিশ্চিন্ত জঙ্গি হাফিজ সইদ, উদ্বিগ্ন দিল্লি ]

মার্কিন ভাইস প্রেসিডেন্ট মাইক পেনস গিয়েছেন ইজারয়েল প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে। স্বাভাবিকভাবেই নিরাপত্তার ঘনাঘটা ছিল। পেনসের সফরে ছিলেন একাধিক সংবাদমাধ্যমের সাংবাদিক। ছিলেন মহিলা সাংবাদিক তাল স্নেইডার। ফিনল্যান্ডের এক টেলিভিশন চ্যানেলে কর্মরত তিনি। ঘটনার সূত্রপাত গত সোমবার। পেনস দেখা করতে গিয়েছেন নেতানিয়াহুর সঙ্গে। তাঁর পিছনে পিছনেই ঢুকছিলেন সাংবাদিকরা। কিন্তু স্নেইডার যখন সামনে যান, তখন তাঁর ব্রা খুলতে নির্দেশ দেন নিরাপত্তাকর্মীরা। এরকম নির্দেশ পেয়ে রীতিমতো তাজ্জব হয়ে যান পোড় খাওয়া ওই সাংবাদিক। তীব্র প্রতিবাদ করেন। এরপরই তাঁকে ঘরের সামনে থেকে ফিরিয়ে দেওয়া হয়। পাঠিয়ে দেওয়া একটি ফেন্সের পিছনে। পুরুষ সাংবাদিকদের পিছনে দাঁড়িয়ে নিজের কাজই ঠিকমতো করতে পারছিলেন না ওই সাংবাদিক।

এরপরই নিজের ক্ষোভ উগরে দেন তিনি। অব্যবস্থার বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করেন। যেভাবে সাক্ষাৎ কভার করার আয়োজন করা হয়েছিল তা নিয়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেন। তাঁর পোস্ট ঘিরে সোশ্যাল মিডিয়াতেও তীব্র বিতর্ক দেখা দেয়। প্রথমত, ক্যামেরা ও পুরুষ সাংবাদিকদের পিছনে কেন একজন মহিলা সাংবাদিককে পাঠিয়ে দেওয়া হল সে প্রশ্ন উঠেছে। পাশাপাশি দুই রাষ্ট্রপ্রধানের সাক্ষাতে নিরাপত্তা থাকবে তা স্বাভাবিক। সাংবাদিকরাও তা জানেন। কিন্তু তা বলে একজন মহিলাকে ব্রা খোলার নির্দেশ কেন দেওয়া হল, সে প্রশ্নও উঠেছে। ট্রাম্পের সফরের সময়ও এরকম পরিস্থিতির মুখে পড়তে হয়েছিল বলে ক্ষোভ প্রকাশ করেন ওই সাংবাদিক।

বাঙালি জঙ্গি সিদ্ধার্থকে আন্তর্জাতিক সন্ত্রাসবাদীর তকমা আমেরিকার ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement