Advertisement
Advertisement
Durga Puja

প্রথমবার কালীপুজো নেদারল্যান্ডসে, কুমোরটুলি থেকে পাড়ি দিল প্রতিমা, পৌরোহিত্যে দম্পতি

চার পরিবারের উদ্যোগেই এই প্রথমবার মা কালীর আরাধনায় মাতবেন সেখানকার বাঙালিরা।

First initiative of kalipuja in the Netherlands
Published by: Akash Misra
  • Posted:July 9, 2024 8:25 pm
  • Updated:July 10, 2024 1:57 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পুজোর ঢাকে কাঠি পড়লেই বাঙালির মনে আনন্দের ঢেউ খেলে যায়। তা সে একান্ত নিজের দেশের বাড়িতে হোক কিংবা বিদেশ-বিভুঁইয়ে, পুজোর পাঁচটা দিন উৎসবে গা ভাসাতে বাঙালি কার্পণ্য করে না। সূদূর নেদারল্যান্ডসের বাঙালি পাড়ার ছবিটাও ব্যতিক্রমী নয়। কিন্তু দেবী দুর্গার বিসর্জন মানেই উৎসবে ইতি। প্রতিবারই বিজয়ার বিষাদের সঙ্গে জুড়ে যায় গোটা একটা বছরের অপেক্ষা। তবে এবার তেমনটা হবে না। কারণ কদিনের ব্যবধানেই ফিরবেন মা। কালী রূপে। এই প্রথম ডাচদের দেশে শক্তির আরাধনার আয়োজন করে তাক লাগাবেন বাঙালিরা। আলোর রোশনাইয়ে নেদারল্যান্ডসেও এবার দিপাবলি হবে আরও রঙিন। মঙ্গলবার বিমানে চেপে নেদারল্যান্ডসে পাড়ি দিয়েছে প্রতিমা। আয়োজনও প্রচুর। আর হবে নাই বা কেন, নেদারল্যান্ডসে এবার প্রথম কালীপুজো বলে কথা।

Advertisement

নেদারল্যান্ডসের চার পরিবারের উদ্যোগেই এই প্রথমবার মা কালীর আরাধনায় মাতবেন সেখানকার বাঙালিরা। এই উদ্যোগের নাম উচ্ছ্বাস। এই উচ্ছ্বাসের হাত ধরেই শ্যামা মায়ের আরাধনায় মাতবেন সুদূরে থাকা বাঙালিরা। নেদারল্যান্ডসে প্রায় আড়াইলক্ষ ভারতীয়দের বসবাস। যার মধ্যে বাঙালির সংখ্যা প্রায় হাজারখানেক। প্রতিবছরই এই হাজার খানেক বাঙালিরাই মেতে ওঠেন দুর্গাপুজো। কিন্তু দুর্গাপুজো মিটলেই, যেন মন খারাপ তাঁদের। কারণ, কালীপুজোর সময় যখন চোখের সামনে ভেসে ওঠে, আদি বাড়ি অর্থাৎ ভারতের দীপাবলির ছবি, তখন নেদারল্যান্ডসের বাঙালির মন জুড়ে অদ্ভুত অন্ধকার। সেই অন্ধকার, দুঃখ থেকেই ‘উচ্ছ্বাস’- এর জন্ম। আর তাই তো ঠিক বাংলার মতো করেই নেদারল্যান্ডস, বেলজিয়াম, লুক্সেনবার্গ এক হয়ে মেতে উঠবে মা কালীর আরাধানায়। আর পৌরোহিত্যে থাকবেন ভট্টাচার্য দম্পতি নীলাঞ্জন ও লিপিকা।

Advertisement

নেদারল্যান্ডসের বাসিন্দা শ্রেয়সী রক্ষিত দণ্ড বলেন, ”এখানে অনেক দুর্গাপুজো হয়, কিন্তু কালীপুজো এতদিন হতো না। আমরা কলকাতার কালীপুজো খুব মিস করি। তাই সেই মন খারাপ কাটাতেই আমাদের এই উচ্ছ্বাস উদ্যোগ।”

[আরও পড়ুন: নাচেই জগন্নাথ বন্দনা ডোনার, ইন্দ্রাণী হালদারের ভোগে থাকে রকমারি পদ]

কুমোরটুলির জনপ্রিয় মৃৎ শিল্পী জয়ন্ত পালের হাতেই তৈরি হয়েছে মা কালীর মূর্তি। দক্ষিণেশ্বরের মা ভবতারিণীর আদলেই তৈরি হয়েছে সাড়ে তিন ফুটের এই প্রতিমা। বিমানযাত্রার কথা মাথায় রেখেই হালকা ওজনের এই মূর্তি। শিল্পী জানিয়েছেন, যত্নসহকারে রাখলে আগামী চার-পাঁচ বছর পুজো করা যাবে।

তবে শুধুই কালীপুজো নয়। বিশেষ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানেও মেতে উঠবে নেদারল্যান্ডস। ইতিমধ্যেই শুরু হয়ে গিয়েছে তার মহড়া। প্রতিমা গিয়ে পৌঁছলেই কোমর বেঁধে শুরু হবে পুজোর অন্য়ান্য সাজসজ্জা।

[আরও পড়ুন: হার্দিক-নাতাশার বিচ্ছেদের জল্পনায় সিলমোহর! অভিনেত্রীর ভিডিও ঘিরে চাঞ্চল্য]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ