BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

ভারতীয় বংশোদ্ভূত ভাইঝিকে ধর্ষণ করে খুন পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত কাকার

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: January 18, 2018 1:17 pm|    Updated: January 18, 2018 1:17 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  রানির দেশে ভারতীয় বংশোদ্ভূত এক কিশোরীকে ধর্ষণ করে খুন করল কাকা! গলা কেটে খুনের পর, মৃতদেহটি ফ্রিজ রেখে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ। অভিযুক্ত কাকা আবার পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত। অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। ঘটনায় তুমুল চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে লন্ডনে

[সেলফিতে বিপদ, বান্ধবীর সঙ্গে ছবি তুলে ধরা পড়ে গেল খুনি!]

জানা গিয়েছেন, অভিযুক্তের নাম মুজাহিদ আর্শাদ। জন্মসূত্রে পাকিস্তানি হলেও, এখন ইংল্যান্ডের নাগরিক সে। তবে লন্ডনে কোনও স্থায়ী ঠিকানা নেই আর্শাদের। একপ্রকার ভবঘুরেই বলা যায় তাকে। তদন্তকারী জানিয়েছেন, গত বছরের ১৯ জুলাই রাতে গভীর রাতে দক্ষিণ পশ্চিম লন্ডনের একটি বাড়ি থেকে ২ কিশোরীর অপহরণ করে আর্শাদ ও তার সঙ্গী। ভিনসেন্ট টাপ্পো। আর্শাদের অধীনে শ্রমিকের কাজ করে টাপ্পো। মুখে কাপড় বেঁধে ওই দুই কিশোরীকে ধর্ষণ করে আর্শাদ। এরপরই গলা কেটে দুজনকেই খুন করতে চেয়েছিল সে। কিন্তু, বরাতজোরে প্রাণে বেঁচে যায় এক কিশোরী। কোনওমতে পালিয়ে গিয়ে পুলিশকে গোটা ঘটনাটি জানায় সে।

[শীতের বহরে চোখের পাতায় বরফ, ফেটে চৌচির থার্মোমিটার]

পুলিশের দাবি, নিহত কিশোরী আর্শাদের ভাইঝি। ওই কিশোরীর মা ভারতীয় এবং বাবা ওয়েস্ট ইন্ডিজের নাগরিক। কিন্তু, পরবর্তীকালে তাঁদের মধ্যে বিচ্ছেদ হয়ে যায়। দ্বিতীয়বার পাকিস্তানের এক নাগরিককে বিয়ে করেন ওই কিশোরীর মা। সেই ব্যক্তি অভিযুক্ত মুজাহিদ আর্শাদের ভাই। আর্শাদকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। কিন্তু, কেন হঠাৎ এই অপরাধ করল সে?  তদন্তকারীদের দাবি, মৃত ও আহত কিশোরীর প্রেমিক ছিল। তাই তাঁদের সঙ্গে আর্শাদের দূরত্ব বাড়ছিল। সেটা মেনে না পেরেই ওই ২ জন কিশোরী ধর্ষণ করে খুন করতে চেয়েছিল পাকিস্তান বংশোদ্ভূত ওই ব্যক্তি। কিন্তু, ভাইঝিকে মেরে ফেলতে পারলেও, বরাতজোরে বেঁচে যায় অপর কিশোরী।

[মার্কিন সেনানী হয়েও সুন্দরী প্রতিযোগিতায় সেরা এই প্রবাসী ভারতীয়]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement