২ কার্তিক  ১৪২৬  রবিবার ২০ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:  লন্ডনে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার একাধিক দপ্তরে একযোগে চলল তল্লাশি। শুক্রবার স্থানীয় সময় রাত আটটা থেকে ভোর তিনটে পর্যন্ত চলে তল্লাশি অভিযান। ফেসবুক থেকে বেআইনিভাবে তথ্য হাতানোর ঘটনায় অভিযুক্ত উপদেষ্টা সংস্থা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা। এই অভিযোগ সংক্রান্ত তথ্য সংগ্রহের জন্য সংস্থার একাধিক অফিসে তল্লাশি চালালেন গোয়েন্দারা। জানা গিয়েছে, ফেসবুক থেকে তথ্য হাতানোর ঘটনায় পদক্ষেপ করার আগে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার দপ্তর থেকে প্রাপ্ত তথ্য খতিয়ে দেখতে চাইছেন ব্রিটিশ গোয়েন্দারা।

[তথ্য চুরির দায় স্বীকার করলেন মার্ক জুকারবার্গ, আশ্বাস পূর্ণ তদন্তের]

শুক্রবার লন্ডনের স্থানীয় সময়ে গভীর রাতে কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার সদর দপ্তরে তল্লাশি অভিযানে যান গোয়েন্দারা। বিভিন্ন তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহ করেছেন ব্রিটিশ গোয়েন্দা সংস্থার অন্তত ডজন দেড়েক আধিকারিক। কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার তল্লাশি পরোয়ানা জারি করেছে আদালত। তবে কেন এই তল্লাশি অভিযান? তার বিস্তারিত আইনি ব্যাখ্যা দেননি বিচারক অ্যান্টনি জেমস লিওনার্ড। তবে আগামী মঙ্গলবার আদালত বিষয়টি স্পষ্ট করতে পারে বলে শোনা যাচ্ছে। নজরদারি সংস্থা তথ্য কমিশনারের দফতরের এক মুখপাত্র জানিয়েছেন, বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রচার কমিটি, দল, সোশ্যাল মিডিয়া সংস্থা, বাণিজ্যিক সংস্থাগুলি কীভাবে ব্যক্তিগত তথ্য হাতিয়ে নিয়ে বিশ্লেষণ করে কাজে লাগায়, তা নিয়ে বিস্তারিত তদন্ত চলছে। কেমব্রিজ অ্যানালিটিকায় অভিযান তারই অংশ।

[মোবাইল ফোন, সোশ্যাল মিডিয়াকে ব্যবহার করে কীভাবে ভোটার টানা হয় জানেন?]

মার্কিন মুলুকে রাষ্ট্রপতি নির্বাচনের সময়ে রিপাবলিক প্রার্থী ডোনাল্ট ট্রাম্পের প্রচারে সাহায্য করেছিল উপদেষ্টা সংস্থা কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা। অভিযোগ, ফেসবুক গ্রাহকের তথ্য ব্যবহার করে সম্ভাব্য ভোটারদের প্রভাবিত করেছিল সংস্থাটি। সোশ্যাল মিডিয়া থেকে বেআইনিভাবে সেই তথ্য সংগ্রহ করা হয়। এমনকী, ২০১৬- ‘ব্রেক্সিট’-এও  কেমব্রিজ অ্যানালিটিকার ভূমিকা ছিল বলে অভিযোগ। ইউরোপীয় ইউনিয়ন ব্রিটেন থাকবে কিনা, তা নিয়ে একটি গণভোট হয়েছিল রানির দেশে। সেই গণভোটই ব্রেক্সিট নামে পরিচিত।

[ফ্রান্সের শপিং মলে বন্দুকবাজের হামলা, পণবন্দি বহু ]

ফেসবুকে গ্রাহকের তথ্য হাতিয়ে নেওয়ার অভিযোগ তোলপাড় পশ্চিমী দুনিয়া। ফেসবুক কর্তৃপক্ষ তো বিড়ম্বনায় পড়েইছে, অতলান্তিকের উভয় তীরে ঘটনার তদন্ত চলছে। পরিস্থিতি এমন জায়গায় পৌঁছেছে, গ্রাহকদের বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগ মেনে নিয়ে ক্ষমা চেয়েছেন সংস্থার চিফ এগজিকিউটিভ মার্ক জুকারবার্গ। ফেসবুকের ভবিষ্যৎ নিয়ে আশঙ্কার হুহু করে পড়ছে সংস্থার শেয়ারদর।

[এভারেস্টের শীর্ষে পা রাখতে চায় বিশ্বের প্রথম যন্ত্রমানবী সোফিয়া]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং