BREAKING NEWS

১৯ আষাঢ়  ১৪২৭  শনিবার ৪ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

রাখে হরি মারে কে! দু’মিনিটের দেরিতে প্রাণে বাঁচলেন ‘অভিশপ্ত’ বিমানের যাত্রী

Published by: Bishakha Pal |    Posted: March 11, 2019 2:50 pm|    Updated: March 11, 2019 8:20 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাত্র দু’মিনিটের ব্যবধান। আর তার জন্যই বেঁচে গেল এক ব্যক্তির প্রাণ। ওই যাত্রীর নাম অ্যান্টনিস মাভরোপুলাস। ইথিওপিয়ার যে বিমানটি দুর্ঘটনার কবলে পড়েছিল, সেই বিমানে থাকার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু দেরিতে বিমানবন্দরে পৌঁছানয় একটুর জন্য রেহাই পেয়ে যান তিনি।

ইন্টারন্যাশনাল সলিড ওয়েস্ট অ্যাসোসিয়েশন নামে একটি স্বেচ্ছাসেবী সংস্থার প্রেসিডেন্ট ছিলেন মাভরোপুলাস। রাষ্ট্রসংঘে পরিবেশ সংক্রান্ত একটি আলোচনায় অংশ নিতে যাওয়ার কথা ছিল তাঁর। আদ্দিস আবাবা থেকে বিমান ধরার কথা ছিল তাঁর। কিন্তু তিনি বিমানবন্দরেই পৌঁছন ২ মিনিট দেরিতে। ততক্ষণে বোর্ডিং হয়ে গিয়েছিল। ফলে বিমানটি পাননি তিনি। কর্তৃপক্ষ তাঁকে অন্য একটি বিমানে যাওয়ার ব্যবস্থা করে দেয়। মাভরোপুলাস জানিয়েছেন, সেই সময় তিনি অনেক তর্কবিতর্ক করেছিলেন। কিন্তু পুলিশ তাঁকে থামিয়ে দেয়। তার পরেই তিনি জানতে পারেন ওড়ার ৬ মিনিটের মধ্যেই ভেঙে পড়ে বিমানটি। পুলিশ যখন তাঁকে খবরটি দেন, তখন তিনি বুঝতে পারেন, মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে এসেছেন তিনি। পুলিশ তাঁকে জানায়, তিনিই একমাত্র যাত্রী যিনি বিমান ধরতে ব্যর্থ হয়েছেন। মাত্প  মিনিচের জন্য বেঁচে গিয়েছেন তিনি।

আমেরিকার নাকের ডগাতেই ছিল মোল্লা ওমর! প্রকাশ্যে সিআইএ-র ব্যর্থতা ]

ফেসবুকে নিজের টিকিটের একটি ছবি পোস্ট করেছেন মাভরোপুলাস। সেখানে দেখা গিয়েছে ইথিওপিয়ান বিমানটিতে তাঁর টিকিট কাটা ছিল। ছবির ক্যাপশনে তিনি লিখেছেন, ‘My Lucky Day’.

ticket

রবিবার সকাল ৮টা ৩৮ নাগাদ আদ্দিস আবাবার বোলে বিমানবন্দর থেকে উড়েছিল ইথিওপিয়ান এয়ারলাইন্সের বোয়িং ৭৩৭ বিমান। কেনিয়ার রাজধানী নাইরোবির উদ্দেশে ওড়া বিমানে ছিলেন ১৫৭ জন যাত্রী। ছিলেন ৮ জন কেবিন ক্রু। বিমানবন্দর সূত্রে খবর, বিমান ওড়ার কিছুক্ষণের মধ্যে ৮টা ৪৪ নাগাদই এয়ার ট্রাফিক কন্ট্রোলের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায়। এরপরই বিমানটি আদ্দিস আবার দক্ষিণ পশ্চিমে বিশোফতু শহরের উপর ভেঙে পড়ে। বিমানে প্রায় ৩২ জন কেনিয়ার অধিবাসী, ১৮ জন কানাডার অধিবাসী, ৮ জন আমেরিকান, ৭ জন ব্রিটিশ ও ৪ জন ভারতীয় ছিলেন। এছাড়া আয়ারল্যান্ড, নেপাল, সৌদি আরব, বেলজিয়াম, ইন্দোনেশিয়া, সোমালিয়া, নরওয়ে, সার্বিয়া, সুদান, উগান্ডা ও ইয়ামেনের যাত্রীও ছিলেন।

কোনও ধর্মই সন্ত্রাসের কথা প্রচার করে না: বেঙ্কাইয়া নাইডু ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement