১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

লাহোরে পা রাখলেই গ্রেপ্তারির সম্ভাবনা নওয়াজ ও মেয়ে মারিয়মের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: July 13, 2018 1:27 pm|    Updated: September 17, 2019 4:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আর্থিক দুর্নীতির অভিযোগে দোষী প্রমাণিত হওয়ায় দশ বছরের কারাদণ্ডের সাজা ঘোষণা হয়েছে প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফ এবং সাত বছরের কারাদণ্ডের সাজা ঘোষণা হয়েছে তাঁর মেয়ে মারিয়মের বিরুদ্ধে৷ যে সময় সাজা ঘোষণা হয়, তখন স্ত্রীর ক্যানসার চিকিৎসার করাতে লন্ডনে ছিলেন শরিফ ও তাঁর মেয়ে৷ এরপর আজ, শুক্রবার পাকিস্তানে ফিরছিলেন তাঁরা৷ সূত্রের খবর, পাকিস্তানের মাটিতে পা রাখার সঙ্গে সঙ্গে লাহোর বিমানবন্দরে আটক করা হবে প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী ও তাঁর মেয়েকে৷

[OMG! বিকিনি পরে ফটোশুট করতে গিয়ে হাঙরের কবলে মডেল]

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে আবুধাবির আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে পাকিস্তানের উদ্দেশে রওনা দিয়েছেন নওয়াজ শরিফ ও মারিয়ম৷ স্থানীয় সময় সন্ধ্যায় ৬টা ১৫ মিনিট নাগাদ লাহোর আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে নামার কথা রয়েছে তাঁদের৷ সেজন্য মঙ্গলবার সকাল থেকেই বিমানবন্দরে মোতায়েন করা হয়েছে পাক ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরোর অফিসারদের৷ পাক প্রশাসনের সবুজ সংকেতে ইসলামাবাদ থেকে একটি চাটার্ড বিমানে মঙ্গলবার সকালেই আবুধাবিতে পৌঁছে গিয়েছেন তাঁরা৷ দলের নেতৃত্বে রয়েছেন ন্যাশনাল অ্যাকাউন্টেবিলিটি ব্যুরোর ডিরেক্টর আমজাদ আলি ওউলাখ এবং দুই মহিলা সদস্য-সহ ১৬ জন অফিসার৷ সূত্রের খবর, এছাড়া স্থানীয় বেশ কয়েকটি বিমানবন্দরে মোতায়েন রয়েছে পুলিশ৷ আশঙ্কা করা হচ্ছে, গ্রেপ্তারি এড়াতে অন্যত্র বিমান অবতরণ করতে পারেন নওয়াজ শরিফ৷ জানা গিয়েছে, গ্রেপ্তার হওয়ার পর প্রথমদিন বাবা ও মেয়েকে রাখা হবে রাওয়ালপিণ্ডির আদিয়ালা জেলে৷ তারপর সেখান থেকে তাঁদের নিয়ে যাওয়া হবে অ্যাটাক ফোর্ট প্রিজনে৷ শীর্ষ আদালতের রায় অনুযায়ী, আগামী দশ বছরের জন্য সেটাই হবে প্রাক্তন পাক প্রধানমন্ত্রী নওয়াজ শরিফের এবং আগামী সাত বছরের জন্য তাঁর মেয়ে মারিয়মের ঠিকানা৷ এই রায় নিয়ে আগেই মুখ খুলেছেন নওয়াজ শরিফ৷ তিনি জানিয়েছেন, জীবনের সবচেয়ে ভয়ঙ্কর সময়ের মধ্যে দিয়ে দিন কাটাতে হচ্ছে এবং তাঁদের মিথ্যা অভিযোগে ফাঁসানো হয়েছে৷ তবে পাকিস্তানের মানুষের জন্য এই শাস্তি মাথা পেতে নিতে রাজি তিনি  ও তাঁর মেয়ে৷

[মার্কিন হুমকি অগ্রাহ্য করে ভারতকে জ্বালানি তেল দেবে ইরান]

মঙ্গলবার, লন্ডন থেকে পাকিস্তানের উদ্দেশে রওনা দেওয়ার আগে লন্ডনের হার্লে স্ট্রিট ক্লিনিকে ক্যানসার চিকিৎসারত স্ত্রী, কুলসুম বেগমের সঙ্গে সাক্ষাৎ করতে যান নওয়াজ শরিফ৷ সঙ্গে ছিলেন মেয়ে মারিয়মও৷ স্বামী-স্ত্রী ও মেয়ের মধ্যে তৈরি হওয়া সেই সাক্ষাতের বিশেষ মূহুর্তের ছবি ইতিমধ্যেই বেশ ভাইরাল হয়েছে সোশ্যাল মিডিয়ায়৷ যেখানে দেখা যাচ্ছে লন্ডন থেকে বিদায় নেওয়ার শেষবেলায় স্ত্রী-র মাথা স্পর্শ করে রয়েছেন নওয়াজ, পাশে দাঁড়িয়ে কাঁদছেন মেয়ে মারিয়ম৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement