১৭ শ্রাবণ  ১৪২৮  মঙ্গলবার ৩ আগস্ট ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

পদ খোয়ালেন ওলি, সুপ্রিম নির্দেশে নেপালের প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন শের বাহাদুর দেউবা

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 12, 2021 6:46 pm|    Updated: July 12, 2021 7:16 pm

Nepal's Supreme Court orders appointment of Sher Bahadur Deuba as PM | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জল্পনায় ইতি টেনে নেপালের মসনদে (Nepal’s PM) নেপালি কংগ্রেসের সভাপতি শের বাহাদুর দেউবা (Sher Bahadur Deuba)। রেপি শর্মা ওলিকে সরিয়ে প্রধানমন্ত্রী হচ্ছেন তিনি। সোমবারই সু্প্রিম কোর্ট এ হেন নির্দেশ দিল। রাজনৈতিক অস্থিরতার জেরে ভেঙে দেওয়া হয়েছিল সংসদ তথা মন্ত্রিসভা। পদত্যাগ করেছিলেন প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি। পুনর্নিবাচনের দাবি জানিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু সেই দাবির পালটা আদালতের দ্বারস্থ হয়েছিলেন বিরোধীরা। তাঁদের দাবিকে মান্যতা দিয়েই এদিন শের বাহাদুর দেউবাকে প্রধানমন্ত্রী পদে নিয়োগের নির্দেশ দিল নেপালের সুপ্রিম কোর্ট।

এদিন নেপালের সুপ্রিম কোর্টের প্রধান বিচারপতি চোলেন্দ্র সামসের রানার নেতৃত্বাধীন পাঁচ বিচারপতির বেঞ্চ গত সপ্তাহেই বিরোধীদের আবেদনের শুনানি শেষ করেন। অবশেষে সোমবার রায় ঘোষণা করলেন বিচারপতিরা। রাষ্ট্রপতি বিদ্যাদেবী ভান্ডারিকে দু’দিনের মধ্যে নিয়োগপ্রক্রিয়া শেষের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। স্বাভাবিকভাবেই আদালতের এই নির্দেশে নাখুশ নেপালে প্রাক্তন ক্ষমতাসীন দল CPN-UML। নেপালের প্রাক্তন বিদেশমন্ত্রী তথা CPN-UML-এর মুখপাত্র প্রদীপ গয়াওয়ালি বলেন, “ভ্রান্ত রায়। তবে এ রায় মানতে আমরা বাধ্য।”

[আরও পড়ুন: দক্ষিণ চিন সাগরে মার্কিন রণতরী, ‘পিছু ধাওয়া’ করল চিনা নৌবহর]

উল্লেখ্য, গোড়া থেকেই চিনপন্থী হিসেবে পরিচিত নেপালের সদ্যপ্রাক্তন প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলি। তাঁর আমলে ভারতের সঙ্গে নেপালের সম্পর্ক তলানিতে ঠেকেছিল। সীমান্ত নিয়ে ভারতের সঙ্গে যেমন বিবাদে জড়িয়েছেন ওলি। একের পর এক ভিত্তিহীন মন্তব্য করে পরিস্থিতি উত্তপ্ত করে তুলেছেন তিনি। এককালের বন্ধু পুষ্পকমল দাহালের সঙ্গেও সম্পর্কে চিড় ধরে ওলির। ফলে দু’ভাগে ভাগ হয়ে যায় নেপাল কমিউনিস্ট পার্টি। কিন্তু নেপালি কংগ্রেসের সঙ্গে ভারতের সম্পর্ক ঐতিহাসিক ভাবে ঘনিষ্ঠ। ফলে মসনদে শেরবাহাদুর দেউবা বসলে আপাতত অনেকটাই স্বস্তি পাবে নয়াদিল্লি।

দেউবাকে প্রধানমন্ত্রী করতে চেয়ে রাষ্ট্রপতির কাছে ১৪৯ জন সাংসদের একটি পিটিশন পাঠানো হয়েছিল। সেখানে নেপাল কংগ্রেসের নেতা দেউবাকেই সমর্থন করেছিলেন অধিকাংশ সাংসদ। সেই পিটিশন খারিজ করে ওলিকেই প্রধানমন্ত্রী হিসেবে কাজ চালাতে নির্দেশ দেন রাষ্ট্রপতি। এই সিদ্ধান্তের বিরোধিতা করে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছিলেন সাংসদেরা। এদিন রাষ্ট্রপতির সেই নির্দেশ খারিজ করে দিল সুপ্রিম কোর্ট।

[আরও পড়ুন: হাইতির প্রেসিডেন্ট খুনের নেপথ্যে রাজনৈতিক ষড়যন্ত্র, ফাঁস বিস্ফোরক তথ্য]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement