Advertisement
Advertisement
Netanyahu

‘হামাসের সঙ্গে চুক্তি হোক না হোক, রাফায় আমরা ঢুকবই’, ফের হুঙ্কার নেতানিয়াহুর

যে কোনও মুহূর্তে প্যালেস্তিনীয়দের ‘শেষ আশ্রয়’ রাফায় ঢুকে পড়বে ইজরায়েলি ফৌজ!

Netanyahu vowed to Rafah invasion ‘with or without a deal’
Published by: Suchinta Pal Chowdhury
  • Posted:May 1, 2024 4:25 pm
  • Updated:May 1, 2024 9:19 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: হামাসের সঙ্গে যুদ্ধবিরতি, পণবন্দিদের মুক্তি নিয়ে কোনও চুক্তি হোক না কেন কোনও পরোয়া নেই। দক্ষিণ গাজার রাফায় ঢুকে অভিযান শুরু করবেই ইজরায়েলি ফৌজ। সাফ জানালেন ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রী বেঞ্জামিন নেতানিয়াহু। নিজের সিদ্ধান্তেই অনড় থাকবেন তিনি। প্যালেস্তিনীয়দের ‘শেষ আশ্রয়’রাফায় ঢুকে আক্রমণ শানানো নিয়ে তেল আভিভকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছে রাষ্ট্রসংঘ। কিন্তু কোনও কিছুতেই কর্ণপাত করছে না ইজরায়েল। 

যে কোনও মুহূর্তে প্যালেস্তিনীয়দের ‘শেষ আশ্রয়’ রাফায় (Rafah) ঢুকে পড়বে ইজরায়েলি ফৌজ। হামাস জঙ্গিদের সমূলে বিনাশ করতে পুরোদমে হামলা শুরু করবেন জওয়ানরা। যার পরিণতি হবে ভয়ংকর। এখন রাফার ভবিষ্যৎ নিয়ে আশঙ্কার প্রহর গুনছে মানবাধিকার সংস্থাগুলো। মিশর সীমান্তবর্তী এই শহরের নিরীহ মানুষদের কথা ভেবে হামলা চালানো থেকে বিরত থাকার আর্জি জানিয়েছে আমেরিকা। এই আবহে ফের একবার নিজের অবস্থান স্পষ্ট করে দিলেন নেতানিয়াহু।

Advertisement

[আরও পড়ুন: কোভিশিল্ড ভ্যাকসিনে ভয়ংকর পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া! আক্রান্তদের সমবেদনা জানাল সংস্থা]

মঙ্গলবার ইজরায়েলের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে একটি বিবৃতি প্রকাশ করা হয়েছে। সেখানে নেতানিয়াহু সাফ জানিয়ে দিয়েছেন, ‘সাফল্য অর্জন করার আগে যুদ্ধ থামানোর কথা ভাবার কোনও মানে হয় না। এর কোনও প্রশ্নই উঠছে না। আমরা রাফায় ঢুকবোই। ওই শহরের হামাস ব্যাটালিয়নকে আমরা খতম করব। কোনও চুক্তি হোক আর না হোক। এই জয় আমরা অর্জন করবই।’ এই মুহূর্তে রাফায় প্রায় ১৫ লক্ষ প্যালেস্তিনীয়র বাস রয়েছে। যার মধ্যে অধিকাংশই শরণার্থী। ফলে পুরোদমে এই শহরে অভিযান শুরু করা নিয়ে আমেরিকা, মিশর-সহ একাধিক দেশের চাপের মুখে পড়েছেন নেতানিয়াহু।

Advertisement

বলে রাখা ভালো, রাফায় ইজরায়েলি সেনার অভিযান নিয়ে নেতানিয়াহুর প্রশাসনকে কড়া হুঁশিয়ারি দিয়েছে মিশর। কায়রো সাফ জানিয়ে দিয়েছে, রাফায় হামলা শুরু হলে কোনও প্যালেস্তিনীয়কে সীমান্ত পেরিয়ে মিশরে ঢুকতে দেওয়া হবে না। পাশাপাশি এও বলা হয়েছে, ইজরায়েলের এই অভিযানে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতি হবে। প্রাণ হারাবে লক্ষ লক্ষ মানুষ। রাফাকে সম্পূর্ণ ধবংসের দিকে ঠেলে দিচ্ছে তেল আভিভ। এর ফল ভুগতে হবে ইজরায়লকে।

[আরও পড়ুন: পাকিস্তানকে ১.১ বিলিয়ন ডলার দিল IMF! ‘আচ্ছে দিনে’র স্বপ্ন দেখছেন শাহবাজ]

উল্লেখ্য, সাত মাস পেরিয়ে গিয়েছে। হামাস নিধনে এখনও গাজায় আক্রমণ শানাচ্ছে ইজরায়েল। গত কয়েকমাস ধরে রাফায় আক্রমণের ধার তীব্র করেছে ইজরায়েলি সেনা। কয়েকদিন আগেই দক্ষিণ গাজার শহরটিতে ‘অগ্নিবর্ষণ’ করেছিল তেল আভিভ। ওই হামলায় প্রাণ হারিয়েছিলেন অন্তত ১৩ জন।আহত হয়েছিলেন বেশ কয়েকজন। জানা গিয়েছে, রাফার মানুষদের জন্য ৪০ হাজার তাঁবুর ব্যবস্থা করেছে ইজরায়েলের সরকার। এই প্যালেস্তিনীয়দের সরিয়ে নিয়ে যেতেও প্রস্তুতি নিচ্ছে সেনা।  

 

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ