৬ আশ্বিন  ১৪২৬  মঙ্গলবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: যুদ্ধের ময়দানে অবতীর্ণ হওয়ার জন্য এবার কি তিমি মাছদেরও সামরিক প্রশিক্ষণ দিচ্ছে রাশিয়া? সাম্প্রতিক একটি ঘটনা বিশ্বজুড়ে উসকে দিয়েছে এই জল্পনা৷ শুরু হয়েছে ঘটনার তদন্ত৷

[আরও পড়ুন: চাপে ইসলামাবাদ, মাসুদ ইস্যুতে ভারতের পাশে দাঁড়াতে চলেছে চিন! ]

নরওয়ের একদল মৎস্যজীবী জানিয়েছেন, গত শুক্রবার দেশের উত্তরাংশে অবস্থিত আর্টিক নরওয়েতে মাছ ধরতে গিয়েছিলেন তাঁরা৷ মুরমানস্কে অবস্থিত রুশ সেনার নৌসেনা ঘাঁটি থেকে ৪১৫ কিলোমিটার দূরে একটি তিমি মাছকে দেখতে পেয়েছিলেন তাঁরা৷ প্রথমে দ্রুত গতিতে সেটি তাদের বোটের দিকে ধেঁয়ে আসছিল৷ কিন্তু হঠাৎই জলের মধ্যেই অসুস্থ হয়ে পড়ে সেটি৷ এরপর জলে নেমেই তিমিটিকে উদ্ধার করেন মৎস্যজীবীরা৷ প্রাণে বেঁচে তিমিটি৷ মৎস্যজীবীরা আরও জানিয়েছেন, তখন সেটির গলায় জড়িয়ে ছিল একটি চেন৷ যাতে লেখা ছিল “Equipment St. Petersburg”৷ যা সাধারণত ব্যবহার করে থাকে রুশ সেনা৷ এই ঘটনাই তাদের মনে একটা আশঙ্কা তৈরি করে যে, এবার হয়তো তিমি মাছদেরও সামরিক প্রশিক্ষণ দিতে শুরু করেছে রাশিয়া৷ পরে এই জল্পনাই দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে তৎসংলগ্ন অঞ্চলে৷  

[আরও পড়ুন: শ্রীলঙ্কার পথে হেঁটে গোটা বিশ্বে বোরখা নিষিদ্ধ করার দাবি তসলিমা নাসরিনের ]

নরওয়ের ডিরেক্টরেট অফ ফিসারির তরফে তিমিটির ছবি প্রথম সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করা হয়৷ এরপর নরওয়ের বিভিন্ন সংবাদমাধ্যম সেটি দেখাতে থাকে৷ এবং তা ধীরে ধীরে সমগ্র বিশ্বের নজরে আসে৷ যা থেকে বিশ্বজুড়ে জল্পনা শুরু হয়, এবার তিমি মাছকেও সামরিক প্রশিক্ষণ দিচ্ছে রুশ সেনা৷ ডেইলি মেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে নরওয়ের আর্টিক ইউনিভার্সিটির অধ্যাপক এডুন রিকার্ডসেন জানান, ‘‘আমরা সকলেই জানি যে রাশিয়াতে তিমি মাছকে বন্দি হিসাবে রাখা হয়৷ এরাই মাঝে মাঝে সুযোগ বুঝে বন্দি দশা থেকে পালিয়ে যায়৷ এবং তাদের দেখতে পান মৎস্যজীবীরা৷’’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং