BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জাপানের প্রতিবেশী জার্মানি! ভূগোল গুলিয়ে হাসির খোরাক ইমরান খান

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: April 24, 2019 11:19 am|    Updated: April 24, 2019 11:19 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এবার ভূগোলের মাঠে হিট উইকেট হলেন ইমরান খান। জাপান ও জার্মানিকে প্রতিবেশী দেশ বানিয়ে দিলেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী। সম্প্রতি ইরান সফরে গিয়েছিলেন ইমরান, সেখানেই বেফাঁস মন্তব্য করে হাসির খোরাক হয়েছেন তিনি। তবে, রাজনীতিবিদের এহেন বয়ান অস্বাভাবিক কিছু নয়। এর আগে এক ভারতীয় রাজনীতিবিদ আফগানিস্তান ও বাংলাদেশ পড়শি দেশ বলে বিতর্ক উসকে দিয়েছিলেন। 

[কেন শ্রীলঙ্কায় হামলা চালাল আইএস? চিন্তার ভাঁজ ভারতের কপালেও]

বালাকোট হামলার পরপরই সন্ত্রাসবাদ ইস্যুতে পাকিস্তান ও ইরানের মধ্যে তৈরি হয় উত্তেজনা। দু’দিক থেকে চাপ আসায় বেশ বেকায়দায় পড়ে যায় ইসলামাবাদ। তারপরই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক মজবুত করতে সোমবার দু’দিনের ইরান সফরে যান পাক প্রধানমন্ত্রী। মঙ্গলবার ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রৌহানির সঙ্গে যৌথ সাংবাদিক বৈঠক করেন ইমরান। সন্ত্রাসবাদ নিয়ে ‘জয়েন্ট অ্যাকশন ফোর্স’ গঠনের কথা ঘোষণা করেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান। বেনজিরভাবে পাক জমিতে সন্ত্রাসবাদীদের উপস্থিতি মেনে নেন ইমরান। তারপর দুই পড়শি দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক দৃঢ় করার আবেদন জানান পাক প্রধানমন্ত্রী। এপর্যন্ত সব ঠিকই ছিল, গোল বাধল তারপরই। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের নজির টানতে গিয়ে ভূগোল গুলিয়ে ফেললেন ইমরান। বললেন, জাপান ও জার্মানি নাকি প্রতিবেশী দেশ। পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, “দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য বাড়লে, আপনা থেকেই সম্পর্ক মজবুত হবে। দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধে জার্মানি ও জাপান পরস্পরের লক্ষ লক্ষ মানুষকে হত্যা করেছে। কিন্তু যুদ্ধের পর দু’দেশই যৌথভাবে সীমান্তে শিল্পকে নয়া মাত্রা দিয়েছে।” বক্তব্য রাখতে গিয়ে জার্মানি ও জাপানের ভৌগলিক অবস্থান গুলিয়ে ফেলেন ইমরান। সোশ্যাল মিডিয়ায় এই সংক্রান্ত একটি ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই তাঁকে নিয়ে মজা শুরু করেন নেটিজেনরা।                   

উল্লেখ্য, ইমরানের বেফাঁস মন্তব্য নিয়ে পাকিস্তানে সরব হয়েছে বিরোধীরা। ‘পাকিস্তান পিপলস পার্টি’-র চেয়ারম্যান বিলাওয়াল ভুট্টো কটাক্ষ করে বলেন। “ক্রিকেট খেলার জন্য যারা অক্সফোর্ডে সুযোগ পান, তাঁরা এমন মন্তব্য করবেন সেটাই স্বাভাবিক। বিষয়টি লজ্জাজনক।” পাশাপাশি, বিরোধীদের আরও অভিযোগ, পাক জমিতে সন্ত্রাসের অস্তিত্ব মেনে নিয়ে আন্তর্জাতিক মঞ্চে দেশকে বেকায়দায় ফেলেছেন ইমরান খান। তবে ঘটনাটিকে উড়িয়ে দিয়েছে পাক প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর। তাদের দাবি, ইমরানের বক্তব্যের অপব্যাখ্যা করা হচ্ছে। তবে সব মিলিয়ে এহেন বেফাঁস মন্তব্যে যে ইমরান খান বেশ বেকায়দায় তা স্পষ্ট।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement