BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মেয়েদের ধর্মান্তকরণের ঘটনা বাড়ছে ইমরানের দেশে, বলছে পাকিস্তানের জাতীয় মানবাধিকার কমিশন

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: June 13, 2020 3:31 pm|    Updated: June 13, 2020 3:38 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: পাকিস্তানে হিন্দু ও ক্রিশ্চান মেয়েদের ধর্মান্তকরণের ঘটনা ক্রমশই বাড়ছে। এমনটাই রিপোর্ট দিয়েছে সেদেশের জাতীয় মানবাধিকার কমিশন। অভিযোগ, এই বিষয়ে সবকিছ জানা সত্ত্বেও কোনও ব্যবস্থা নিচ্ছে না রাজনৈতিক নেতারা ও প্রশাসন।

ব্রিটেন থেকে প্রকাশিত আন্তর্জাতিক দুনিয়ার একটি নামী পত্রিকা দ্য স্পেক্টাটর (The Spectator) সম্প্রতি পাকিস্তানে সংখ্যালঘুদের ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার সম্পর্কিত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে। তাতে পাকিস্তানের জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের রিপোর্টকেই হাতিয়ার করেছে তারা।

[আরও পড়ুন: চিনের সঙ্গে লড়াইয়ে ভারতের পাশেই আছে আমেরিকা, বলছেন মার্কিন কূটনীতিবিদ ]

আর তার ভিত্তিতে উল্লেখ করেছে, আন্তর্জাতিক নিয়ম অনুযায়ী একজন নাগরিকের ধর্মীয় স্বাধীনতার অধিকার রক্ষার বিষয়ে একটি রাষ্ট্রের যে কর্তব্য হওয়া উচিত। পাকিস্তান তাতে গুরুত্ব দেয় না। কোনও নির্দেশই সেখানে মানা হয় না। পাকিস্তানে ধারাবাহিকভাবে ধর্মীয় হিংসার ঘটনা ঘটে। প্রতিবছর প্রচুর ক্রিশ্চান ও হিন্দু মেয়েকে অপহরণের পরে জোর করে ইসলাম ধর্মে ধর্মান্তরিত করা হয়। তারপর মুসলিম সম্প্রদায়ের পুরুষদের সঙ্গে তাদের বিয়ে দেওয়া হয়।

ওই প্রতিবেদনে আরও উল্লেখ করা হয়েছে, এই বিষয়ে সবকিছু জানা সত্ত্বেও ব্যবস্থা নেয় না ইমরানের প্রশাসন। পাকিস্তানের বেশিরভাগ রাজনৈতিক নেতারাও আড়াল থেকে উসকানি দিয়ে অমুসলিম নাগরিকদের জীবন দুর্বিসহ করে তোলে। গত সপ্তাহেই চার জন হিন্দু ও তিনজন ক্রিশ্চান মেয়ে জোর করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করানো হয়েছে।

পাকিস্তানের জাতীয় মানবাধিকার কমিশনের (HRCP) রিপোর্ট অনুযায়ী, প্রতিবছর কমপক্ষে হাজার জন অমুসলিম মেয়ে জোর করে ধর্মান্তকরণ করানো হয়। এদের মধ্যে বেশিরভাগই সিন্ধু প্রদেশের হিন্দু পরিবারের নাবালিকা।

[আরও পড়ুন: ভোজনরসিকদের মন ভাঙার শাস্তি, ৭২৩ বছরের জেল হল রেস্তরাঁর দুই মালিকের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement