৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

‘৩ মাস বেতন নেই, কী করে চুপ থাকি?’, সার্বিয়ার পাক দূতাবাসের টুইট ঘিরে শোরগোল

Published by: Biswadip Dey |    Posted: December 3, 2021 4:20 pm|    Updated: December 3, 2021 4:45 pm

Pakistan Embassy in Serbia posts video mocking Imran Khan। Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বেতন নেই তিন মাস। এই পরিস্থিতিতে আর তাদের পক্ষে নীরব থাকা সম্ভব নয়। সার্বিয়ার পাক (Pakistan) দূতাবাসের তরফে একটি টুইটে এভাবেই সরাসরি কটাক্ষ করা হল ইমরান খানের (Imran Khan) প্রশাসনকে। দূতাবাসের টুইটার অ্যাকাউন্ট থেকে একটি পোস্ট করে দাবি করা হয়, তাদের কর্মীরা গত ৩ মাস বেতন পাননি। এই পরিস্থিতিতে তাঁদের পক্ষে নীরব থাকা কোনও ভাবেই সম্ভব নয়। সেই টুইট ঘিরে শোরগোল পড়ে গিয়েছে। যদিও পরে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের তরফে জানানো হয়, সার্বিয়ার পাক দূতাবাসের টুইটার, ফেসবুক ও ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্ট হ্যাক করে ওই পোস্ট করা হয়েছে।

কী লেখা হয়েছে ওই টুইটার পোস্টে? দূতাবাসের তরফে ওই পোস্টে লেখা ছিল, ”মুদ্রাস্ফীতি যখন আগের সব রেকর্ড ভেঙে দিচ্ছে, তখন কতদিন আর ইমরানের পিটিআই সরকারের বিরুদ্ধে আমরা চুপ করে থাকব আর কাজ করে যাব? যেখানে ৩ মাস আমরা বেতন পাইনি! আমাদের সন্তানদের স্কুল থেকে বের করে দেওয়া হচ্ছে। এটাই আপনার নতুন পাকিস্তান? দুঃখিত। কিন্তু এটা করা ছাড়া কোনও উপায় ছিল না।”

[আরও পড়ুন: বাড়ছে ‘ওমিক্রন’ আতঙ্ক, রাজ্যগুলিকে চিঠি দিয়ে নয়া গাইডলাইন জারি করল কেন্দ্র]

পোস্টটি পরে মুছে দেওয়া হয়েছে

কেবল এই পোস্টই নয়। এর সঙ্গে একটি ৫৫ সেকেন্ডের ভিডিও-ও জুড়ে দেওয়া হয়। ‘আপনে ঘাবড়ানা নেহি’ রিমিক্সের সেই ভিডিওটি কিছুদিন আগেই ভাইরাল হয়েছিল। সেখানে ইমরান খানের পুরনো বক্তৃতা শোনা গিয়েছিল।

কিন্তু পরে সেই পোস্টটি মুছে ফেলা হয়। এরও বেশ কিছু সময় পরে পাকিস্তানের বিদেশ মন্ত্রকের তরফে একটি বিবৃতি পেশ করা হয়। তাতে দাবি করা হয়, সার্বিয়ার পাক দূতাবাসের সোশ্যাল মিডিয়া অ্যাকাউন্টগুলি হ্যাক করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: দিল্লির দূষণের জন্য দায়ী পাকিস্তান! উত্তরপ্রদেশ সরকারের আজব যুক্তিতে বিস্মিত সুপ্রিম কোর্ট]

উল্লেখ্য, গত নভেম্বরে পাকিস্তানের মুদ্রাস্ফীতি পৌঁছয় ১১.৫ শতাংশে। যা গত ২০ মাসের রেকর্ড ভেঙে দিয়েছে। এর ধাক্কায় সবজি, ফল, মাংস থেকে শুরু করে জ্বালানি তেল- সব কিছুর দামই আগুন হয়ে উঠেছে। শহর ও গ্রাম, সর্বত্রই এক ছবি। একদিকে বিরোধী ঐক্য, অন্যদিকে মুদ্রাস্ফীতি– জোড়া ফলায় আপাতত বিদ্ধ ইমরান সরকার। এই পরিস্থিতিতে পাক প্রধানমন্ত্রী যে কোনও মুহূর্তে পদত্যাগ করতে পারেন বলেও গুঞ্জন শোনা যাচ্ছে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে