৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এ যেন একেবারে মৃত্যুর মুখ থেকে ফিরে আসা৷ স্রেফ উপস্থিত বুদ্ধির জোরে ২৩৩ জনের জীবন রক্ষা করলেন মস্কোর এক পাইলট৷ রাশিয়ার উরাল এয়ারলাইন্সের এয়ার ৩২১ জুকভস্কি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ২৩৩ জন যাত্রীকে নিয়ে ক্রিমিয়ার উদ্দেশে উড়েছিল৷ মাঝপথে ধাক্কা একদল পাখির সঙ্গে৷ সকলকে বাঁচাতে পাইলট যা করলেন, তা থেকে শিক্ষা নিচ্ছেন তাবড় বিমানকর্মী, আধিকারিকরাও৷

[আরও পড়ুন: রাতের অন্ধকারে মার্কিন সীমান্তে উড়ল রুশ আণবিক অস্ত্রবাহী যুদ্ধবিমান]

জুকভস্কি আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে ওড়ার এক কিলোমিটারের মধ্যেই একঝাঁক সামুদ্রিক পাখির সঙ্গে ধাক্কা খায় এয়ারবাস ৩২১৷ সেই ধাক্কা এতটাই প্রবল যে নড়েচড়ে ওঠেন যাত্রীরা৷ ইঞ্জিনের বেশ ক্ষতি হয়৷ চালক দামির ইউসুপভ বুঝতে পারেন, সাংঘাতিক বিপদ ঘনিয়ে আসছে৷ তিনি সঙ্গে সঙ্গে খুব তৎপরতা এবং দক্ষতার সঙ্গে বিমানটিকে নিচের ভুট্টা খেতে অবতরণ করান৷ এমন আচমকা অবতরণে অন্তত ২৩ জন যাত্রী জখম হয়েছেন৷ তবে কারও মৃত্যু হয়নি বলেই উড়ান কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে৷

তবে কাজটা খুবই কঠিন ছিল বলে জানিয়েছেন পাইলট দামির ইউসুপোভ৷ তাঁর কথায়, ‘বুঝতে পারছিলাম, পাখির ধাক্কায় ইঞ্জিনটা বিকল হয়ে গিয়েছে৷ অবতরণের গিয়ারটি কাজ করছে না৷ তবু যথাসাধ্য চেষ্টা করে, খুব সাবধানে বিমানটাকে ভুট্টা খেতের মাঝে নামাই৷ চারপাশ খোলা ছিল বলে কিছুটা সুবিধা হয়েছে, বদ্ধ জায়গা হলে সমস্যায় পড়তাম৷ আর ভুট্টা খেত হওয়ায় যাত্রীদের বেশি চোট লাগেনি৷’

[আরও পড়ুন: ‘ফায়দা লুটছে ভারত-চিন’, উন্নয়নশীল তকমা হঠাতে ফের সওয়াল ট্রাম্পের]

এই ঘটনার পরই রীতিমতো ‘হিরো’ বনে গেছেন পাইলট দামির৷ স্থানীয় সংবাদমাধ্যম তাঁকে ত্রাতা বলে চিহ্নিত করছে৷ এমনকী পাইলটের এহেন কাজে প্রশংসায় পঞ্চমুখ তাঁর উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষও৷ অনেকেই এর সঙ্গে তুলনা করছেন ২০০৯ সালে এমনই এক জরুরিকালীন পরিস্থিতিতে মার্কিন বিমানের অবতরণের সঙ্গে তুলনা করা হচ্ছে৷ সেবারও আকাশে একঝাঁক হাঁসের ধাক্কায় ইঞ্জিন বিকল হয়ে হাডসন নদীতে জরুরি অবতরণ করান পাইলট৷ একটু-আধটু চোট লাগলেও, প্রাণে রক্ষা পাওয়ায় যাত্রীরাও পাইলটকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন৷

 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং