BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

২০২২ বিশ্বকাপের আগেই বদলাচ্ছে কাতারের শ্রম আইন, উপকৃত হবেন লক্ষ লক্ষ ভারতীয় শ্রমিক

Published by: Sulaya Singha |    Posted: September 1, 2020 4:54 pm|    Updated: September 1, 2020 4:54 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০২২ সালে কাতারে (Qatar) বসতে চলেছে ফিফা বিশ্বকাপের আসর। ফুটবলের মহাযজ্ঞের আয়োজন সুদূর কাতারে হলেও এতে উপকৃত হবেন লক্ষ লক্ষ ভারতীয় পরিযায়ী শ্রমিক। কারণ বিশ্বকাপের আগেই শ্রম আইনে বদল ঘটাচ্ছে কাতার। যাতে শ্রমিকদের আয় অনেকটাই বাড়বে বলে মনে করা হচ্ছে।

এতকাল ধরে সে দেশে ‘কাফালা’ নিয়ম চালু ছিল। অর্থাৎ কোনও শ্রমিক বা কর্মী অন্য কাজে যোগ দিতে চাইলে তাঁকে তাঁর উচ্চপদস্থ কর্মী বা সংস্থার অনুমতি নিতে হবে। দীর্ঘদিন ধরে চালু থাকা সেই নিয়মের এবার অবলুপ্তি ঘটল। ফলে চাকরি ছাড়ার ক্ষেত্রে আলাদা করে NOC-র প্রয়োজন হবে না। কাতারের লেবার অ্যান্ড সোশ্যাল অ্যাফেয়ার্স (MADLSA) বিষয়ক মন্ত্রকের তরফে এ খবর নিশ্চিত করা হয়েছে। একই সঙ্গে থাকা ও খাওয়ার জন্য আগে কর্মীদের যে বেতন দেওয়া হত, তা ২৫ শতাংশ বাড়িয়ে দেওয়া হল। ন্যূনতম বেতন হবে এক হাজার রিয়ালস মানে ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় সাড়ে ১৯ হাজার টাকা। শ্রম আইনে এই দুটি বিষয় পরিবর্তন হতে চলার কথা গত বছরই জানিয়েছিল কাতার। রবিবার অবশেষে সেই প্রস্তাবে সই করা হল।

[আরও পড়ুন: চিন চাইলে আগের থেকেও বেশি ক্ষতি করতে পারে ভারতীয় সেনার, হুঁশিয়ারি বেজিংয়ের]

মধ্যপ্রাচ্যের বেশিরভাগ দেশই ভিনদেশের কর্মী এবং শ্রমিকদের উপর নির্ভরশীল। লক্ষ লক্ষ শ্রমিক বেশি অর্থ আয়ের জন্য কাতারে যান। যেমন ভারতেরই ৬ লক্ষ ৩০ হাজার কর্মী কাতারে কাজ করেন। তাই বেতন বৃদ্ধি পেলে যে প্রত্যেকেই উপকৃত হবেন, তা বলাই বাহুল্য। একইসঙ্গে এক চাকরি ছেড়ে অন্য চাকরিতে যোগ দিতে গেলেও কঠোর নিয়ম পালনের প্রয়োজন হবে না।

আসলে সম্প্রতি শ্রমিকদের উপর অত্যাচার ও জোর করে কাজ করানো নিয়ে তীব্র সমালোচনার মুখে পড়েছিল ওই দেশ। বিশেষ করে ২০২২ বিশ্বকাপের জন্য স্টেডিয়াম তৈরির কাজে যুক্ত শ্রমিকদের রীতিমতো হুমকি দিয়ে কাজ করানোর অভিযোগ তুলেছিল একাধিক আন্তর্জাতিক স্বেচ্ছাসেবী সংস্থা। তারপরই শ্রম আইনে বদলের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। নয়া পরিবর্তনের ভূয়সী প্রশংসা করা হয়েছে কাতারের ভারতীয় দূতাবাসের তরফেও।

[আরও পড়ুন: তাড়াহুড়োয় জীবনযাত্রা স্বাভাবিক করে দিলে বিপর্যয় নেমে আসতে পারে, সতর্ক করল WHO]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement