৯ মাঘ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারত থেকে পালিয়েছেন ধর্ষণের অভিযোগে। দেশের একাধিক রাজ্যে ধর্ষণের অভিযোগ রয়েছে স্বঘোষিত ধর্মগুরু স্বামী নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে। সেই সঙ্গে রয়েছে শিশুদের নিজের আশ্রমে জোর করে আটকে রাখার অভিযোগও। এ হেন বিপজ্জনক ব্যক্তি পুলিশের চোখে ফাঁকি দিয়ে দেশ ছেড়েছেন আগেই। এবার শোনা যাচ্ছে তিনি নাকি, আস্ত একটা দ্বীপ কিনে নিজের আলাদা একটি দেশ তৈরি করার উদ্যোগ নিয়েছেন।


শোনা যাচ্ছে, দেশ থেকে পালিয়ে নিত্যানন্দ আশ্রয় নিয়েছেন ত্রিনিদাদের একটি দ্বীপে। তবে, নিজের দেশটি তিনি তৈরি করছেন ইকুয়েডরের কাছে। সেখানে একটি আস্ত দ্বীপ কিনে ফেলেছেন স্বঘোষিত ধর্মগুরু। সেই দ্বীপটিকে তিনি গড়ে তুলতে চান স্বাধীন রাষ্ট্র হিসেবে। নিজের নতুন দেশের নাম তিনি রাখতে চাইছেন ‘কৈলাস’। নিজের স্বাধীন দেশের সবকিছু অন্যান্য পূর্ণাঙ্গ রাষ্ট্রের মতোই করতে চাইছেন ধর্ষণে অভিযুক্ত বাবা। তাঁর দেশের আলাদা পাসপোর্ট, এমব্লেম, জাতীয় পতাকা সবই থাকবে। সেসব নকশাও নাকি তৈরি হয়ে গিয়েছে। এমনকী, ওই দেশটিতে একজন প্রধানমন্ত্রীও নিয়োগ করতে চান নিত্যানন্দ। বাবার দাবি, তাঁর দেশে নাকি বিনামূল্যে শিক্ষার ব্যবস্থা করা হবে। আলাদা করে ব্যবস্থা করা হবে বিজ্ঞান চর্চার। বিশেষ প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে যোগের। তাছাড়াও আর পাঁচটা দেশের মতো, নাগরিকদের স্বাচ্ছন্দ, চাকরি-বাকরি সবকিছুই তিনি দেবেন বলে প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন ধর্ষণে অভিযুক্ত বাবা।

[আরও পড়ুন: ‘থ্যাংক ইউ ডোনাল্ড ট্রাম্প’, বলছেন হংকংয়ের গণতন্ত্রকামীরা]

নিজের ওয়েবসাইটে নতুন দেশ সম্পর্কে বিস্তারিত তথ্য দিয়েছেন বাবা নিত্যানন্দ। আন্তর্জাতিক মিডিয়ার দাবি অনুযায়ী, আমেরিকার এক বিখ্যাত কূটনীতিবিদের সাহায্যে রাষ্ট্রসংঘে একটি আবেদন জানিয়েছেন নিত্যানন্দ। স্বাধীন ও সার্বভৌম রাষ্ট্র তৈরির অধিকার দিতে অনুরোধ করেছেন তিনি। উল্লেখ্য, স্বামী নিত্যানন্দের বিরুদ্ধে কর্ণাটকে একটি ধর্ষণের মামলা চলছে। আমেদাবাদের আশ্রমে শিশুদের আটকে রাখারও অভিযোগ রয়েছে। নিজের দুই প্রিয় শিষ্যা প্রাণপ্রিয়া এবং প্রিয়তভাকে অপহরণের অভিযোগও রয়েছে বাবার বিরুদ্ধে। কিছুদিন আগেই পুলিশের চোখে ধুলো দিয়ে দেশ ছেড়ে পালান নিত্যানন্দ।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং