১২ মাঘ  ১৪২৮  বুধবার ২৬ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

৩৪ বছর ধরে একে-অন্যের সন্তানকে পালন করলেন দুই মা

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: February 5, 2017 8:03 am|    Updated: February 5, 2017 8:03 am

two mother raised wrong children for 34 Years

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এক জন জন্ম দিয়েছেন। ৩৪ বছর ধরে পালন করেছেন আরেকজন। ঘটনাটি ঘটেছে রাশিয়ায়। ২১ জানুয়ারি ১৯৮৩ সালে একই দিনে জন্মেছিলেন ইউলিয়া এবং দুগারমা। কিন্তু ভুল মায়ের কাছে গত ৩৪ বছর ধরে পালিত হচ্ছিলেন তাঁরা। কুরুমকানের একটি হাসপাতালে একই সঙ্গে কন্যাসন্তানের জন্ম দিয়েছিলেন আলিসা সেরেনোভা এবং লিউভব সেরেনোভা। কিন্তু হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের গাফিলতিতে দু’জনের সন্তান অদলবদল হয়ে যায়। সম্ভবত পদবি এক হওয়ায় ভুলটি হয়ে গিয়েছিল।

এরপর ৩৪ বছর কেটে যায়। একে অন্যের সন্তানকে সযত্নে লালন-পালন করেন তাঁরা। কিন্তু মেয়েরা বড় হওয়ার পর বুঝতে পারে মায়ের চেহারার সঙ্গে তাঁদের কোনও মিল নেই। বাইরেও অনেকে এই বিষয়টি নিয়ে তাঁদের নানান কথা শোনাতে থাকে। কিন্তু কেন এমন হল?  জানা যাচ্ছিল না সেটা। তবে এতদিন পর সামনে এসেছে সেই তথ্য। গত বছর আলিসা যখন গুরুতর অসুস্থ হয়ে পড়েন, তখন তিনি ডিএনএ পরীক্ষা করতে উদ্যত হন। পরীক্ষার ফল বেরোলে জানতে পারেন, এতদিন যাঁকে তিনি মেয়ে ভেবেছিলেন, সে ইউলিয়া আসলে তাঁর মেয়ে নন। ঘটনায় ভেঙে পড়ে ইউলিয়াও। তিনি জানান, ‘আমি জানতাম খারাপ কিছু শুনতে হবে। শেষপর্যন্ত সেটাই হল। তবে আমার কাছে আমার মা আলিসাই। তিনি আমার কাছে পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ মা।’

একই ভাবে লিউভব এবং দুগারমাও ডিএনএ টেস্ট করান। দেখা যায় তাঁদের দু’জনের ডিএনএ মেলেনি। শেষপর্যন্ত দুই পরিবার বুঝতে পারে ঠিক কোথায় গলদ হয়েছে। এরপর একসঙ্গে ৩৪ বছরের জন্মদিন চারজন একসঙ্গেই পালন করেন। তখন আলিসা জানান, ‘এর ঘটনার পিছনে কারওর ভুল অবশ্যই রয়েছে। এখন আর এটা দেখলে হবে না কে ভালভাবে জীবন কাটিয়েছে আর কে খারাপ। তবে একটা জিনিস যে, কোনও মা তাঁর সন্তানকে লালন-পালন করার সুযোগ পেল না।’ অপরদিকে লিউভব বলেন, ‘আমার জন্য এটা মেনে নেওয়া খুব কঠিন ছিল। আমার এখনও বিশ্বাস হচ্ছে না। নিজের মেয়ের জন্য খারাপ লাগছে, ইউলিয়ার জন্য খারাপ লাগছে। তবে আগামীদিনে আমাদের সন্তান এবং নাতি-নাতনিদের নিয়ে থাকব। এখন থেকে দু’জনেই আমার মেয়ে।’ বর্তমানে ইউলিয়া এবং দুগারমা দু’জনেই বিবাহিত ও দুই সন্তানের মা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে