১১ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দুদিন আগে রাখাইন প্রদেশের বসবাসকারী রোহিঙ্গাদের ওপর অত্যাচার বন্ধ করতে নির্দেশ দিয়েছে আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালত (ICJ)। দেশে বসবাসকারী সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের মানুষদের সুরক্ষার বিষয়েও গুরুত্ব দিতে বলেছে। আর এতে কিছুটা আশার আলো দেখতে পেয়েছেন বাংলাদেশের বিভিন্ন ক্যাম্পে বসবাসকারী রোহিঙ্গারা। উলটো দিকে আন্তর্জাতিক ন্যায় আদালতের রায়ের বিরুদ্ধে প্রকাশ্যে মুখ না খুললেও রাখাইনে থাকা রোহিঙ্গাদের ওপর ফের হামলা চালাচ্ছে মায়ানমারের সেনা। শুক্রবার গভীর রাতে উত্তর রাখাইন প্রদেশের কিন টং গ্রামের ওপর লাগাতার গোলা ছুঁড়ল তারা। এর ফলে একজন অন্তঃসত্ত্বা-সহ দুই মহিলার মৃত্যুর খবর পাওয়া গিয়েছে। জখম হয়েছেন আরও সাতজন।

এপ্রসঙ্গে উত্তর রাখাইন প্রদেশের বুথিডাং শহরের বাসিন্দা ও স্থানীয় সাংসদ মাং কাইউ জান বলেন, শুক্রবার রাতে কিন টং গ্রামের কাছে থাকা একটি সেনা ক্যাম্প থেকে গ্রামের ওপর গোলাবর্ষণ হচ্ছি বলে জানতে পেরেছি। এর ফলে শনিবার একজন অন্তঃসত্ত্বা-সহ দুই মহিলার মৃত্যু হয়েছে। জখম হয়েছেন আর সাতজন। তাঁদের স্থানীয় হাসপাতালে ভরতি করা হয়েছে। সেনার তরফে আমাকে জানানো হয়েছে ওই গ্রামে কিছু ইসলামিক জঙ্গি লুকিয়ে আছে বলে খবর এসেছিল। তাই অল্পকিছু গোলা ছুঁড়ছে সেনা। বড় কোনও গন্ডগোল হয়নি। গত এক বছরের মধ্যে এই ধরনের দুর্ভাগ্যজনক ঘটনা দুবার ঘটল।

[আরও পড়ুন: মারণ ব্যাধি মোকাবিলায় নতুন হাসপাতাল, ইউহানে যুদ্ধকালীন তৎপরতায় চলছে কাজ ]

 

স্থানীয় সূত্রে জানা গিয়েছে, ২০১৭ সালের আগস্ট মাসের পর থেকে রোহিঙ্গাদের জঙ্গি সংগঠনগুলির সঙ্গে সেনার বিভিন্ন সময়ে গুলি লড়াই হয়েছে। বৌদ্ধ ধর্মের অনেক মানুষকে চোরাগোপ্তা আক্রমণ চালিয়ে খুন করেছে জঙ্গি সংগঠন আরাকান আর্মির সদস্যরা।

[আরও পড়ুন: ‘কোহিনুর নয়, পরিবার জুড়ে রাখতে দরকার ফেভিকল’, রয়্যাল সংসারে ভাঙনের দাওয়াই বিজ্ঞাপনে ]

 

পালটা অভিযান চালিয়ে অনেক জঙ্গিকে খতম করেছে মায়ানমারের সেনাও। উভয়পক্ষের লড়াইয়ের জেরে প্রচুর সাধারণ মানুষের মৃত্যু হওয়ার পাশাপাশি ১০ হাজারের বেশি মানুষ ঘরছাড়াও হয়েছেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং