BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

করোনা যুদ্ধে জয়, টানাপোড়েন পেরিয়ে কাজে ফিরছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন

Published by: Paramita Paul |    Posted: April 26, 2020 8:11 pm|    Updated: April 26, 2020 8:11 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সম্পূর্ণ সুস্থ ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। প্রায় একমাস পর সোমবার থেকে কাজে ফিরছেন তিনি। রবিবার ১০ ডাউনিং স্ট্রিট সূত্রে এমনটাই খবর। প্রসঙ্গত, নোভেল করোনায় আক্রান্ত হয়েছিলেন তিনি। শারীরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাঁকে আইসিইউতেও রাখা হয়েছিল। তবে করোনা যুদ্ধে জয়ী হয়ে ফিরে এসেছেন তিনি। এবার অফিসে ফেরার পালা। তাঁর অবর্তমানে এই দায়ভার সামলাচ্ছিলেন ব্রিটেনর বিদেশ সচিব ডমিনিক রাব।

ডাউনিং স্ট্রিট সূত্রে খবর, ২৫ মার্চ বরিস জনসনের সামান্য উপসর্গ ধরা পড়ে। তারপরই ব্রিটেনের মুখ্য স্বাস্থ্য আধিকারিকের পরামর্শ পরীক্ষা করান। ১০ ডাউনিং স্ট্রিটেই তাঁর নমুনা পরীক্ষা করা হয়। তাতেই দেখা যায়, কোভিড-১৯ (COVID-19) আক্রান্ত হয়েছেন প্রধানমন্ত্রী। সেইসময় তিনি সুস্থ ছিলেন। দেশের কাজও চালিয়ে যাবেন বলে জানিয়েছিলেন। কিন্তু বাস্তবে তা হয়নি। হোম আইসোলেশনে থাকার পরও শারীরিক অবস্থার কোনও উন্নতি হচ্ছিল না। ছাড়ছিল না জ্বরও। বাধ্য হয়ে এপ্রিলের প্রথম সপ্তাহে ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভরতি করা হয়। সেখানে তাঁর বিভিন্ন শারীরিক পরীক্ষা করা হয়। তারপরের দিন ব্রিটেনের প্রধানমন্ত্রীর দপ্তর থেকে এক বিবৃতিতে বলা হয়, “প্রধানমন্ত্রীর অবস্থার অবনতি হয়। এবং মেডিক্যাল টিমের পরামর্শে তাঁকে ইনটেন্সিভ কেয়ার ইউনিটে স্থানান্তর করা হয়েছে।” লন্ডনের সেন্ট থমাস হাসপাতালের তরফে জানান হয়েছে, প্রধানমন্ত্রী এখনও সচেতন অবস্থায় আছেন। এবং এখনই তাঁকে ভেন্টিলেশনে রাখার প্রয়োজন নেই। তবে, পরবর্তীকালে তাঁর ভেন্টিলেশনের প্রয়োজন হতে পারে। সেকারণেই আইসিইউতে নেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন : দ্রুত করোনা রোগী চিহ্নিতকরণে পদক্ষেপ, নিউ ইয়র্কের ফার্মেসিগুলিতেও হবে পরীক্ষা]

যদিও সমস্ত প্রতিকূলতাকে হারিয়ে দ্রুত সুস্থ হয়ে ওঠেন বরিস জনসন। হাসপাতাল থেকেও ছাড়া পয়েছিলেন দ্রুত। ১০ ডাউনিং স্ট্রিটের তরফে টুইট করে ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রীর সুস্থ হয়ে ছাড়া পাওযার খবর জানানো হয়েছিল। একইসঙ্গে তাঁরা জানান, প্রধানমন্ত্রী এখনই কাজে যোগ দিচ্ছেন না। মেডিক্যাল টিমের পরামর্শ মেনে কয়েকদিন বিশ্রামে থাকবেন তিনি। আর তাই এক পরিচারক ও গাড়ি চালককে নিয়ে এদিনই জনসন বাকিংহ্যাম্পশায়ারে রওনা হয়ে গিয়েছেন। অবশেষে সোমবার থেকে তিনি প্রধানমন্ত্রীর দায়িত্ব সামলালেন।

[আরও পড়ুন : করোনা আতঙ্কের মধ্যেই সুখবর, আগামী মাসে WHO-এর গুরুত্বপূর্ণ পদ পাচ্ছে ভারত]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement