BREAKING NEWS

১০ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ২৪ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রেখেই লকডাউনের পথে ব্রিটেন, আর কোন নিয়মে বদল?

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 2, 2020 7:01 pm|    Updated: November 2, 2020 7:03 pm

UK will be under lockdown for 4 weeks with schools and educational institutions remain open| Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: স্কুল, কলেজ-সহ সমস্ত শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খোলা রেখেই ফের দীর্ঘমেয়াদি লকডাউনের (Lockdown) পথে হাঁটছে ইংল্যান্ড (UK)। বৃহস্পতিবার থেকেই নিয়ম জারি হওয়ার কথা। তবে লকডাউনের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসতে এখনও শেষ চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছেন ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। বুধবার এ নিয়ে ক্যাবিনেটে ভোটাভুটি রয়েছে। কোনওভাবে যদি সেখানে লকডাউনের বিপক্ষে সংখ্যাগরিষ্ঠ মত পেয়ে যান, তবে বৃহস্পতিবার থেকে আনুষ্ঠানিক লকডাউন আর হবে না ব্রিটেনে। তবে ব্রিটিশ এমপি-দের (MP) অধিকাংশই দ্বিতীয়বার করোনার ধাক্কা থেকে বাঁচতে লকডাউনের পক্ষেই। ফলে হয়ত পিছু হতেই হবে বরিস জনসনকে।

[আরও পড়ুন: তাইওয়ানের সঙ্গে সম্পর্ক বৃদ্ধিতে ক্ষোভ, ভারতের উত্তর-পূর্বের রাজ্যগুলিতে অশান্তির ছক চিনের]

সব ঠিকঠাক থাকলে আগামী বৃহস্পতিবার অর্থাৎ ৫ নভেম্বর থেকে একমাসের বন্দিদশায় পা রাখছে ব্রিটেন। চলতে পারে ২ ডিসেম্বর পর্যন্ত। যদিও সোমবার থেকে স্কটল্যান্ডে বিধিনিষেধ চালু হয়েছে। পাঁচস্তরীয় নিয়মে মুড়ে ফেলা হয়েছে স্কটিশদের। ওয়েলস, নর্থ আয়ারল্যান্ড মাঝামাঝি অবস্থায় রয়েছে। তার আগে পর্যন্ত সংক্রমণের নিরিখে এলাকাভিত্তিতে বিভিন্ন স্তরে বিধিনিষেধ জারি করা হচ্ছে – একস্তরীয়, দ্বিস্তরীয় ও ত্রিস্তরীয়। জেনে নিন এবারের লকডাউনের বিস্তারিত বিধিনিষেধ –

  • যাবতীয় জরুরি পরিষেবার পাশাপাশি স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয় খোলা থাকছে।
  • পানশালা, রেস্তরাঁ বন্ধ, তবে Takeaway চালু থাকছে।
  • বন্ধ থাকছে বিলাস সামগ্রীর দোকান।
  • বিনোদনের সমস্ত জায়গার ঝাঁপ বন্ধ।
  • বাড়িতে থাকতে হবে, শুধুমাত্র শিক্ষার্থী এবং চাকরিজীবীদের বেরনোর অনুমতি।
  • ওষুধ এবং অন্য কোনও জরুরি পরিষেবা পেতে বাড়ির বাইরে পা রাখা যেতে পারে।
  • উৎপাদন শিল্পের সঙ্গে যে কোনও অফিস খোলা থাকতে পারে। তবে বেশিরভাগ অফিসের ক্ষেত্রে ‘ওয়ার্ক ফ্রম হোমে’ জোর দেওয়া হচ্ছে।
  • শরীরচর্চার জন্য বাইরে বেরনো যাবে, তবে জিম, সুইমিং পুল বন্ধ।

করোনার দ্বিতীয় ধাক্কায় ইংল্যান্ডের পরিস্থিতি রীতিমত চিন্তার ভাঁজ ফেলেছে। বিশেষজ্ঞদের আশঙ্কা, এবার আরও শক্তি দেখাচ্ছে মারণ ভাইরাস, মৃত্যু বাড়ছে। প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন নিজেও এই আশঙ্কার কথা মেনে নিয়েছেন। আর সেই কারণেই নিমরাজি হয়েও লকডাউনের সিদ্ধান্ত। আসলে, তিনি চান যে ক্রিসমাসের মতো উৎসবের আগে যেন সংক্রমণ বাগে আনা যায়। তাই প্রয়োজনে লকডাউনের মেয়াদ ডিসেম্বরে গোড়া পর্যন্তও বাড়ানো হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্তের সংস্পর্শে আসায় সেলফ কোয়ারেন্টাইনে WHO প্রধান]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে