২১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  বুধবার ৮ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

বাংলাদেশে ছাত্র আন্দোলনের জেরে বন্ধ 4G ও 3G পরিষেবা

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: August 5, 2018 1:17 pm|    Updated: August 5, 2018 1:17 pm

4G and 3G service stops in Bangladesh

সুকুমার সরকার, ঢাকা: মোবাইল ফোনে 4G ও 3G বন্ধ, চলবে 2G। ফেসবুকে গুজব ছড়ানোর মাধ্যমে ঢাকার ধানমণ্ডিতে নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সঙ্গে শাসকদল আওয়ামি লিগ কর্মীদের সংঘাতের পর মোবাইল ইন্টারনেটের 4G ও 3G সেবা বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক মোবাইল অপারেটরগুলোর একাধিক কর্মকর্তা জানান, ইন্টারনেটের গতি ১.২৮ কেবিপিএসে নামানোর ‘নির্দেশ দেওয়া হয়েছে’ তাদের। তারা বলেছেন, শনিবার সন্ধ্যার পর থেকে এই নির্দেশ বাস্তবায়নে কাজ করছেন তারা। তবে এই নির্দেশ কত দিনের জন্য বা কত ঘণ্টার জন্য এই নির্দেশনা সে সম্পর্কে কিছু বলতে চাননি এই কর্মকর্তারা। তবে বিটিআরসির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান জহুরুল হক জানান, এভাবে কোনও নির্দেশ দেওয়া হয়নি। ইন্টারনেট ঠিকই আছে। তথ্যপ্রযুক্তি বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, ১.২৮ কেবিপিএসে ফেসবুকে ছবি আপলোড করা সম্ভব হবে না। অন্যান্য ওয়েবসাইট দেখতেও গ্রাহকদের বেশ ভোগান্তিতে পড়তে হবে।

[বাংলাদেশের শিশুরাই ভাল দেশ চালাতে পারে, ফেসবুকে সরব তসলিমা]

নিরাপদ সড়কের দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলনের ঘটনায় ‘জনমতে আতঙ্ক সৃষ্টি এবং জনবিশৃঙ্খলা সৃষ্টির আশঙ্কা তৈরি’ হয় এমন দৃশ্য সম্প্রচার করায় দুটি টেলিভিশনকে সতর্ক করেছে সরকার। একাত্তর ও নিউজ২৪ টেলিভিশনকে বিশেষ ঘটনায় এবং সব টেলিভিশন চ্যানেলকে আগাম সতর্ক করা হয়েছে বলে তথ্য মন্ত্রণালয়ের এক কর্মকর্তা জানিয়েছেন। তথ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সহকারী সচিব মহম্মদ আখতারুজ্জামান তালুকদার স্বাক্ষরিত ওই চিঠিতে বলা হয়, সাম্প্রতিক সড়ক দুর্ঘটনার প্রেক্ষিতে ছাত্র অসন্তোষ সৃষ্টি হলে একাত্তর মিডিয়া লি. কর্তৃক পরিচালিত বেসরকারি টিভি চ্যানেল ’৭১ টেলিভিশন’-এ এমন অনেক দৃশ্য সম্প্রচার করা হয়েছে, যার ফলে জনমতে আতঙ্ক সৃষ্টি এবং জনবিশৃঙ্খলা সৃষ্টির আশংকা তৈরি হয়েছে। টিভি চ্যানেলটির এহেন কার্যক্রম ‘জাতীয় সম্প্রচার নীতিমালা ২০১৪’ এর অনুচ্ছেদ ৫.১.৫, ৫.১৬ এবং ৫.১.৯ এর পরিপন্থী। বিদ্যমান পরিস্থিতিতে জাতীয় সম্প্রচার ‘নীতিমালার পরিপন্থী এবং জনবিশৃঙ্খলা সৃষ্টিতে উৎসাহ দিতে পারে’ এমন অনুষ্ঠান/সংবাদ/দৃশ্য সম্প্রচার না করতে অনুরোধ করা হয়েছে চিঠিতে। গত ২৯ জুলাই ঢাকার শহিদ রমিজউদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী বাসচাপায় নিহত হলে তাদের বিক্ষুব্ধ সহপাঠীরা সড়কে নেমে আসে। পরদিন সারা ঢাকায় শিক্ষার্থীরা সড়কে অবস্থান নিলে পরিবহণ ব্যবস্থা প্রায় অচল হয়ে পড়ে। এক সপ্তাহ ধরে চলমান এই বিক্ষোভের মধ্যে কয়েকটি স্থানে শিক্ষার্থীদের উপর পুলিশ চড়াও হয়।

[ছাড়ছে না কোনও বাস, ভারত ভ্রমণ শেষে বেনাপোলে আটকে কয়েক হাজার যাত্রী]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে