BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

দেড় ঘণ্টায় তিনবার গণধর্ষণ! থানায় আটকে অত্যাচার করায় কাঠগড়ায় ওসি-সহ ৫

Published by: Sayani Sen |    Posted: August 12, 2019 4:48 pm|    Updated: August 12, 2019 4:49 pm

An Images

সুকুমার সরকার, ঢাকা: গৃহবধূকে দেড় ঘণ্টায় পরপর তিনবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠল জিআরপি থানার ওসি ওসমান গনি পাঠানের বিরুদ্ধে৷ এই ঘটনায় আরও চার পুলিশ আধিকারিক জড়িত রয়েছে বলেও অভিযোগ৷ গৃহবধূর অভিযোগ, মিথ্যা মামলায় তাকে থানায় নিয়ে এসে রীতিমতো আটকে রেখে ধর্ষণ করা হয়৷

[আরও পড়ুন: রাঙামাটিতে ব্রাশফায়ারে খুন ২ যুব নেতা, অভিযোগ জনসংহতি সমিতির বিরুদ্ধে]

অসুস্থ মাকে দেখতে ওই গৃহবধূ সিলেট থেকে খুলনায় এসেছিলেন। সেখান থেকে যশোরে ভাইয়ের বাড়িতে গিয়েছিলেন তিনি। খুলনায় ফেরার পথে মোবাইল চুরির অভিযোগ ওঠে৷ ফুলতলা স্টেশন থেকে রেলপুলিশ তাঁকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়৷ তাঁর পরিজনদের সঙ্গে যোগাযোগ করে পুলিশ৷ মহিলার দাবি, মোবাইল ফিরিয়ে দেওয়ার জন্য তাঁর পরিজনের কাছ থেকে এক লক্ষ টাকা চাওয়া হয়৷ তবে পরিজনেরা টাকা দিতে পারবেন না বলেই জানিয়ে দেন৷ তার ফলে থানায় আটক করে রাখা হয় ওই গৃহবধূকে৷ অভিযোগ, বাড়ির লোকজন চলে যাওয়ার পর থানায় আটকে রেখে প্রথমে তাঁকে ওসি ধর্ষণ করে৷ এরপর একে একে চারজন পুলিশ আধিকারিক ওই গৃহবধূকে ধর্ষণ করে বলেও অভিযোগ৷ গৃহবধূর আরও দাবি, ধর্ষণের পাশাপাশি বেধড়ক মারধরও করা হয় তাঁকে৷

[আরও পড়ুন: কাশ্মীর ইস্যুতে ঢাকা-সিলেটে ইসলামিক সংগঠনের বিক্ষোভ]

ঘটনার পরেরদিন তাঁকে আদালতে তোলা হয়৷ বিচারকের সামনে দাঁড়িয়ে কেঁদে ফেলেন গৃহবধূ৷ পুলিশকর্মীদের বিরুদ্ধে গণধর্ষণের অভিযোগ জানান তিনি৷ সেকথা শুনেই বিচারক তাঁর শারীরিক পরীক্ষা করার নির্দেশ দেন৷ এই ঘটনায় তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়৷ ওই কমিটিকে সাতদিনের মধ্যে রিপোর্ট দেওয়ার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ অভিযুক্ত পুলিশকর্মীদের জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement