৩০ আশ্বিন  ১৪২৬  শুক্রবার ১৮ অক্টোবর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: গণধর্ষণের শিকার হয়েছিলেন গৃহবধূ। থানায় অভিযোগ জানাতে গিয়েছিলেন। সুবিচার পাবেন ভেবেছিলেন ঠিকই। তবে তা মেলেনি। পরিবর্তে ঘটনার মীমাংসায় ওসি থানাতেই অভিযুক্তের সঙ্গে বিয়ে দিয়ে দিলেন অভিযুক্তের। এই সিদ্ধান্তের জেরে ঢাকায় পুলিশ সদর দপ্তর ওই ওসিকে বরখাস্ত করেছে।

[আরও পড়ুন: নাতির বয়সি প্রেমিকের প্রতারণায় রেগে আগুন, যুবকের যৌনাঙ্গে কোপ বৃদ্ধার]

নারকীয় এই ঘটনাটি ঘটেছে গত ২৯ আগস্ট। নির্যাতিতা ওই গৃহবধূ ঢাকার পাবনার বাসিন্দা। অভিযোগ, ওই রাত থেকেই অভিযুক্তরা চারদিন ধরে ওই গৃহবধূকে আটকে রাখে। একাধিকবার ধর্ষণও করা হয় তাঁকে। চারদিন পর ওই নির্যাতিতা কোনওক্রমে পালিয়ে যান। সদর থানায় অভিযোগ জানাতেও যান তিনি। সেখানে গিয়ে অভিযোগ জানান। তবে নির্যাতিতার দাবি, তাঁর অভিযোগে আমল দেননি পাবনা সদর থানার ওসি ওবাইদুল হক। পরিবর্তে নির্যাতিতার সঙ্গে রাসেল নামে এক অভিযুক্তের বিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেন তিনি।

[আরও পড়ুন: রোহিঙ্গা সংকট নিরসনে উদ্যোগ, চিন ও মায়ানমারের সঙ্গে বৈঠকে বসছে ঢাকা]

গত ৯ সেপ্টেম্বর ঘটনাটি জানাজানি হয়ে যায়। এরপর নড়েচড়ে বসে পুলিশ প্রশাসন। জেলা পুলিশের পক্ষ থেকে অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (হেডকোয়ার্টার) ফিরোজ আহমেদের নেতৃত্বে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করা হয়। ওই তদন্ত কমিটির সুপারিশে থানাতেও বিয়ে দেওয়ার অভিযোগ খতিয়ে দেখা হয়। ১২ সেপ্টেম্বর পাবনা সদর থানার ওসি ওবাইদুল হককে বরখাস্ত করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়। অভিযুক্ত পাঁচজনকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। আপাতত জেল হেফাজতে রয়েছে তারা।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং