৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: এবার সংবাদমাধ্যমের স্বাধীনতার প্রসঙ্গে মুখ খুললেন বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। বুধবার সকালে তাঁর তেজগাঁওয়ের কার্যালয়ে বাংলাদেশের টেলিভিশন চ্যানেল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে সাক্ষাৎ করেন তিনি। সেখানেই তিনি বলেন, “দেশে সব টেলিভিশন চ্যানেলের পূর্ণ স্বাধীনতা রয়েছে।  চ্যানেলগুলি পূর্ণ স্বাধীনতা ভোগ করছে বলেও দাবি করেন তিনি।

[আরও পড়ুন:অপরাধমূলক কাজে যুক্ত থাকায় ২০ জন তরুণকে কারাদণ্ডের শাস্তি বাংলাদেশে]

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার কথায়, ‘বাংলাদেশে আগে কেবল একটি টেলিভিশন চ্যানেল ছিল। সেটি বিটিভি। আমরা ৯৬ সালে সরকার গঠনের পর সেটিকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছি।’ এ প্রসঙ্গে বেসরকারি টেলিভিশন চ্যানেল কর্তৃপক্ষের তরফে বলা হয়, তাঁরা বঙ্গবন্ধু স্যাটেলাইট-১ এর মাধ্যমে সম্প্রচার শুরুর জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে আন্তরিকতা বজায় রেখে কাজ করে যাচ্ছে। কেবল টিভি সম্প্রচার কার্যক্রম ডিজিটাইজেশনের আওতায় এনে সব চ্যানেলকে পে-চ্যানেলে রূপান্তর করা-সহ বিভিন্ন দাবিও উপস্থাপন করেন সংগঠনের আধিকারিকরা।

এদিনের বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন তথ্যমন্ত্রী হাসান মাহমুদ, প্রধানমন্ত্রীর উপদেষ্টা এবং টেলিভিশন চ্যানেলের স্বত্বাধিকারী সলমন এফ রহমান এবং তথ্যসচিব আবদুল মালেক। এছাড়াও ছিলেন এটিসিও চেয়ারম্যান এবং মাছরাঙা টেলিভিশনের স্বত্বাধিকারী অঞ্জন চৌধুরি, ডিবিসি চ্যানেলের স্বত্বাধিকারী ইকবাল সোবহান চৌধুরি, একাত্তর টিভির এডিটর ইন চিফ এবং ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোজাম্মেল এবং সময় টেলিভিশনের ব্যবস্থাপনা পরিচালক আহমেদ জোবায়ের।

[আরও পড়ুন:বাংলাদেশে গুলির লড়াই, খতম যুব লিগ নেতা হত্যায় জড়িত ২ রোহিঙ্গা ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং