৫ আশ্বিন  ১৪২৬  সোমবার ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মাদক কেনাবেচা এবং ছিনতাইয়ের অভিযোগ প্রমাণিত হওয়ায় তিন কিশোর ও ২০ জন তরুণকে কঠোর শাস্তি দিল ব়্যাব ৩-এর ভ্রাম্যমাণ আদালত৷ সূত্রের খবর, মোট ২৩ জনকে বিভিন্ন মেয়াদে কারাদণ্ডের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে৷ তিনজন কিশোরকে টঙ্গির কিশোর সংশোধনাগারে পাঠানো হয়েছে। এবং ২০ জন তরুণকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

[ আরও পড়ুন: রাজাকারদের তালিকা তৈরির কাজ শুরু করল হাসিনা সরকার

জানা গিয়েছে, সোমবার রাতে ঢাকার মানডা এলাকায় অভিযান চালিয়ে এই ২৩ জন কিশোর ও তরুণকে গ্রেপ্তার করে ব়্যাব ৩ আদালত৷ অভিযোগ, দীর্ঘদিন ধরে মাদক বেচাকেনা ও ছিনতাইয়ে ঘটনার সঙ্গে জড়িত রয়েছে এরা৷ র‍্যাব ৩-এর মিডিয়া সেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার বীণা রানী দাশ বলেন, ‘‘গোপন তথ্যের ভিত্তিতে গতকাল সন্ধ্যা পৌনে সাতটার দিকে র‍্যাব ৩-এর ভ্রাম্যমাণ আদালত মানডা এলাকায় অভিযানে যায়। বিভিন্ন স্থানে আড্ডারত কিশোর-তরুণ গ্যাংয়ের ২৩ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।’’

[ আরও পড়ুন: বাংলাদেশে গুলির লড়াই, খতম যুব লিগ নেতা হত্যায় জড়িত ২ রোহিঙ্গা  ]

সূত্রের খবর, ঢাকার উত্তরা, হাজারিবাগ, চকবাজার এলাকাগুলিতে কিশোরদের একটি গ্যাং তৈরি হচ্ছে, যারা খুন, ধর্ষণ, মাদক-সহ নানা অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে শিশুরা৷ সমাজকর্মীরা বলছেন, কিশোরদের সমাজের প্রতি যে দায়িত্ববোধ গড়ে ওঠা উচিত, তা হচ্ছে না৷ আগে যে পারিবারিক, সামাজিক অনুশাসন ছিল, তা ভেঙে পড়েছে৷ মা, বাবা বা পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা ঠিকমতো বাচ্চাদের সময় দিতে পারছেন না৷ ফলে ইন্টারনেটে আসক্ত হয়ে পড়ায় তাদের মানসিকতা বদল আসছে৷ কখনও মাদকাসক্তিও দেখা যাচ্ছে৷ এমনকী প্রেম সংক্রান্ত জটিলতা থেকেও অপরাধে জড়িয়ে পড়ছে এই কিশোররা৷ যার শিকার ১২ থেকে ১৭ বছর বয়সিরা৷ দেখা গিয়েছে, এভাবে খুন হওয়ার কিশোররা বেশিরভাগই নিম্নবিত্ত পরিবারের৷

[ আরও পড়ুন: সততা নেই! তদন্তকারীদের নজরে বাংলাদেশ হাই কোর্টের ৩ বিচারপতি ]

প্রসঙ্গত, দীঘদিন ধরেই কিশোরদের অপরাধ নিয়ে উদ্বেগ বাড়ছে ঢাকায়৷ বিশেষজ্ঞ মহলের মতে, কিশোর বয়সেই মগজধোলাই করে তাদের নানা কুকাজে ব্যবহার করা হচ্ছে৷ আরেকদিকে কিশোর বয়সে ঝোঁকের বশেই কেউ কেউ খুনের মতো অপরাধ ঘটিয়ে ফেলছে৷ ঢাকার মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতের তথ্য অনুযায়ী, গত ১৬ বছরে ঢাকায় ৯৯টি খুনের মামলায় সন্দেহের তির তিনশোরও বেশি কিশোরের বিরুদ্ধে৷ এদের বিরুদ্ধে খুনের মামলা রুজু হয়েছে৷ এদের মধ্যে ২৭ জনকে আদালতের মাধ্যমেই কিশোর উন্নয়ন কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে৷

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং