২৩ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  মঙ্গলবার ১০ ডিসেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সুকুমার সরকার, ঢাকা: বহুচর্চিত হোলি আর্টিজান বেকারিতে জঙ্গি হামলার মামলায় ২৭ নভেম্বর রায় ঘোষণা করতে চলেছে আদালত। টানা চারদিন ধরে ধরে চলা শুনানির শেষে রবিবার মামলার রায় ঘোষণার তারিখ ধার্য করেন বিচারক।

প্রায় দেড় বছর ধরে চলা শুনানির শেষে রবিবার ঢাকার সন্ত্রাস বিরোধী বিশেষ ট্রাইব্যুনাল রায় ঘোষণার দিন ধার্য করে। রায়দানকে কেন্দ্র করে ইতিমধ্যেই শুরু হয়েছে জল্পনা। রাজধানী ঢাকা-সহ আশপাশের নিরাপত্তা আর বাড়িয়ে তোলা হবে বলে জানা গিয়েছে। এদিন শুনানি শেষে সরকারি কৌঁসুলি গোলাম সারওয়ার আশা প্রকাশ করেন যে দোষীদের মৃত্যুদণ্ড দেবে আদালত। পালটা আসামি পক্ষের আইনজীবী মহম্মদ দেলোয়ার হোসেনের বক্তব্য, তাঁরা ন্যায় চান। অভিযুক্তদের ফাঁসানো হয়েছে। এই মামলায় গ্রেপ্তার আট জঙ্গির নাম হচ্ছে- রাশেদ ওরফে র‍্যাশ, রাকিবুল ইসলাম ওরফে রিগ্যান, জাহাঙ্গীর আলম ওরফে রাজীব গান্ধী, মিজানুর রহমান ওরফে বড় মিজান, হাদিসুর রহমান ওরফে সাগর, আবদুস সবুর খান ওরফে সোহেল মাহফুজ ওরফে হাতকাটা মাহফুজ, শরিফুল ইসলাম খালেদ ও মামুনুর রশিদ।

উল্লেখ্য, ২০১৬ সালের ১ জুলাইর রাতে ঢাকার গুলশনে হোলি আর্টিজান বেকারিতে হামলা চালায় জঙ্গিরা। সেখানে উপস্থিত অতিথিদের পণবন্দি বানায় হামলাকারীরা। ওই রাতেই অভিযান চালাতে গিয়ে দুই পুলিশকর্মী নিহত হন। পরদিন সকালে সেনা কমান্ডোদের অভিযানে পাঁচ জঙ্গি-সহ ছয়জন নিহত হয়। পরে পুলিশ ১৮ বিদেশি-সহ ২০ জনের লাশ উদ্ধার করে। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান একজন রেস্তরাঁকর্মী। হামলার আড়াই বছরের মাথায় গত বছরের ২৩ জুলাই আদালতে অভিযোগপত্র জমা দেয় পুলিশ। এরপর ওই বছরের ২৬ নভেম্বর আট আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠনের মধ্য দিয়ে শুরু হয় মামলার শুনানি।

[আরও পড়ুন: চট্টগ্রামের বহুতলে গ্যাস পাইপ লাইনে বিস্ফোরণ, নিহত শিশু-সহ অন্তত ৭]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং