১২ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ২৯ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

নজিরবিহীন সিদ্ধান্ত ‘ডাকসু’র, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিষিদ্ধ ধর্মভিত্তিক ছাত্র রাজনীতি

Published by: Sayani Sen |    Posted: September 27, 2019 12:58 pm|    Updated: September 27, 2019 4:08 pm

Dhaka University bans religious based students union

সুকুমার সরকার, ঢাকা: লক্ষ্য শিক্ষাঙ্গনে গণতন্ত্র এবং মুক্ত মানসিকতার প্রসার ঘটানো। আর তার জেরেই অভাবনীয় পদক্ষেপ  ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের। এবার থেকে আর ক্যাম্পাসে কোনও ধর্মভিত্তিক কিংবা সাম্প্রদায়িক রাজনীতি করা যাবে না। বৃহস্পতিবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ বা ‘ডাকসু’র সভায় এই সিদ্ধান্ত সর্বসম্মতভাবে নেওয়া হয়।

[আরও পড়ুন: ভোজনরসিক বাঙালির জন্য সুখবর, পুজোয় কলকাতার বাজার কাঁপাবে পদ্মার ইলিশ]

বৃহস্পতিবার ‘ডাকসু’র কার্যনির্বাহী বৈঠকের আয়োজন করা হয়। ওই বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মহম্মদ আখতারুজ্জামান। তিনিই ওই বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের সভাপতিও বটে। এদিনের বৈঠক শেষে উপাচার্য আখতারুজ্জামান বলেন, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় একটি গণতান্ত্রিক, অসাম্প্রদায়িক মূল্যবোধ ও চেতনার জায়গা। এখানে ধর্মভিত্তিক, সাম্প্রদায়িক রাজনীতি চর্চার কোনও সুযোগ নেই। ফলে তারা যাতে কোনও ধরনের তৎপরতা দেখাতে না পারে সে বিষয়ে ‘ডাকসু’র তরফ থেকে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষকে অনুরোধ জানানো হয়েছে। একইসঙ্গে এই ধরনের সাম্প্রদায়িক শক্তিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন মঞ্চে নিষিদ্ধ করে আইন তৈরির দাবিও জানানো হয়েছে।” কিন্তু এখন প্রশ্ন হল, কে বা কারা এই সভার প্রকৃতি খতিয়ে দেখে সিদ্ধান্ত নেবে? যদিও এই প্রসঙ্গেও সাফ জবাব দিয়েছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য। পরিচালন সমিতি এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নিতে পারে বলেই জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য।

[আরও পড়ুন: বৌদ্ধ পরিবারের ৪ সদস্যের গলার নলি কেটে খুন, কারণ নিয়ে ধন্দে পুলিশ]

এদিনের বৈঠকে ‘ডাকসু’র সাহিত্য বিষয়ক সম্পাদক মাজহারুল কবি ক্যাম্পাসে সমস্ত ধরনের সাম্প্রদায়িক রাজনীতি নিষিদ্ধ করার পক্ষে সায় দেন। ওই বৈঠকে উপস্থিত অন্যান্যদেরও তাতে সম্মতি ছিল। ‘ডাকসু’র সহ সাধারণ সম্পাদক সাদ্দাম হোসেন বলেন, “ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে অলিখিতভাবে ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধ। তবে এতকাল যা মৌখিক নিয়ম ছিল, তাই লিখিত হল।” তাঁর আরও দাবি, সাম্প্রদায়িক রাজনীতি বন্ধের কথা ‘ডাকসু’র গঠনতন্ত্র এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আইনে যুক্ত করতে হবে। তবে এদিনের বৈঠকে দেখা মেলেনি ‘ডাকসু’র সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানির। দিনকয়েক আগে তোলাবাজির অভিযোগে ছাত্রলিগের পদ থেকে সরিয়ে দেওয়া হয়েছিল তাকে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে