BREAKING NEWS

১১ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  সোমবার ২৮ নভেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

মাছ ধরার ট্রলারে বিস্ফোরণ, মাঝ নদীতে ঝাঁপ দিয়ে প্রাণে বাঁচলেন বাংলাদেশের ১৩ মৎস্যজীবী

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 15, 2022 1:45 pm|    Updated: July 15, 2022 1:53 pm

Explosion in fishing troller, 13 Bangladeshi fishermen dive in river to save lives | Sangbad Pratidin

সুকুমার সরকার, ঢাকা: মাছ ধরতে গিয়ে মাঝনদীতে বিপত্তি। ট্রলারে থাকা সিলিন্ডার বিস্ফোরণের জেরে অগ্নিকাণ্ড। নদীতে ঝাঁপ নিয়ে প্রাণে বাঁচলেন ১৩ জন মৎস্যজীবী। বাংলাদেশের (Bangladesh) নোয়াখালির কাছে মেঘনা নদীতে এই দুর্ঘটনায় ২ জন দগ্ধ হয়ে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। বৃহস্পতিবার বিকেলে দমার চরের দক্ষিণে মেঘনা নদীতে এই ঘটনা ঘটেছে। যার জেরে আতঙ্কিত মৎস্যজীবীরা। ট্রলারগুলির সুরক্ষা নিয়েও উঠছে প্রশ্ন।

নিঝুম দ্বীপ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মহম্মদ দিনাজউদ্দিন জানিয়েছেন, বৃহস্পতিবার বিকেলে রাকিব মাঝির ট্রলার (Traller)নিয়ে ১৫ জন জেলের একটি দল মেঘনা নদীতে মাছ ধরার জন্য যাত্রা শুরু করে। ট্রলারটির গতিপথ নিঝুম দ্বীপের বন্দরটিলা ঘাট থেকে মেঘনা নদী হয়ে বঙ্গোপসাগরের দিকে ছিল। কিন্তু মাঝপথে ট্রলারটিতে অগ্নিকাণ্ড ঘটে। দমার চরের দক্ষিণে পৌঁছালে তার কেবিনে থাকা গ্যাস সিলিন্ডারে বিস্ফোরণ ঘটে। দাউদাউ জ্বলে ওঠে আগুন (Fire)।

[আরও পড়ুন: দলত্যাগ বিরোধী আইনে সিদ্ধান্ত হোক নির্দিষ্ট সময়সীমার মধ্যে, চাইছেন স্পিকার ওম বিড়লা]

ট্রলারে থাকা জেলেদের মধ্যে ১৩ জন মৎস্যজীবী (Fishermen) লাফ দিয়ে নদীতে পড়েন। তাতেই প্রাণ বাঁচে তাঁদের। এই দুর্ঘটনমার সময় ট্রলারের মালিক রাকিব ও শামসুদ্দিন আগুন নেভানোর জন্য কেবিনে ঢোকার চেষ্টা করেন। তাঁরা দু’জনই দগ্ধ (Burnt) হন। নদীতে থাকা অন্য ট্রলারের জেলেরা এগিয়ে দগ্ধ রাকিম ও শামসুদ্দিনকে উদ্ধার করেন। পরে তাঁদের নিঝুম দ্বীপে নিয়ে গিয়ে চিকিৎসা করা হয়। চেয়ারম্যান দিনাজউদ্দিন বলেন, দগ্ধ দুই জেলের শরীরের ভিন্ন অংশ ঝলসে গিয়েছে। তবে শারীরিক অবস্থা নিয়ে চিন্তার কিছু নেই বলে জানাচ্ছেন চিকিৎসকরা।

[আরও পড়ুন: সংসদ চত্বরে কোনওরকম ধরনা-বিক্ষোভ নয়! বাদল অধিবেশনের আগে নয়া ‘ফরমান’]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে